কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

কক্সবাজারে নাশকতা প্রতিরোধ কমিটি আজ থেকে মাঠে

প্রকাশিত : ২০ জানুয়ারী ২০১৫
  • পণ্যবাহী গাড়ি গন্তব্যে পৌঁছাতে বিজিবির উদ্যোগ

এইচএম এরশাদ, কক্সবাজার থেকে ॥ কক্সবাজারে কোথাও জামায়াত-বিএনপির অবরোধের প্রভাব পড়েনি। অবরোধ-হরতালেও সড়ক-উপসড়কে নিয়মিত চলছে যানবাহন। দোকানপাট-শপিং কমপ্লে¬ক্স ও সব ধরনের মার্কেট খোলা। এখানে নিত্যপণ্যের মূল্যও তেমন একটা বাড়েনি। স্থলবন্দরের আমদানি পণ্যবাহী ট্রাকের বহরও যাচ্ছে প্রতিদিন। বিজিবি, র‌্যাব ও পুলিশের সহযোগিতায় যে কোন পণ্য ও যাত্রীবাহী গাড়ি চালাচ্ছেন চালক ও ব্যবসায়ীরা।

কক্সবাজার জেলার ফিশিং ব্যবসায়ী, দোকানি, ফিলিং স্টেশন, যানবাহন ও জনসাধারণের ব্যবহারের জন্য জ্বালানি ও ভোজ্যতেলের সঙ্কট দূর করতে কক্সবাজার ও টেকনাফ বিজিবি ব্যাটালিয়নের জওয়ানরা তেলবাহী ও পণ্যবোঝাই যানবাহনে নাশকতা ঠেকাতে নিরাপত্তা জোরদার করেছে। কয়েক দিন ধরে বিজিবির সহযোগিতায় চট্টগ্রাম থেকে অসংখ্য জ্বালানি তেল ও বিভিন্ন পণ্যবোঝাই গাড়ি কক্সবাজারে এসেছে। কক্সবাজার বিজিবির সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মোঃ খালেকুজ্জামান বলেন, জ্বালানি তেল বহনকারী লরিতে যাতে কেউ কোন ধরনের নাশকতা সৃষ্টি করতে না পারে, বিজিবির সদস্যরা সতর্কতার সঙ্গে কঠোর নিরাপত্তা দিয়ে চলছে। বিজিবির টহল জোরদার রাখা হয়েছে। কক্সবাজার ১৭ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল খন্দকার সাইফুল আলম বলেন, বিজিবির সদস্যরা সব সময় সহযোগিতা দিয়ে চলছে। এতে বাজারে পণ্য সঙ্কট এবং কোন দ্রব্যের মূল্যে প্রভাব পড়েনি। বিজিবির সহযোগিতা পেয়ে দূরপাল্ল¬ার যানবাহনগুলোও যাত্রী নিয়ে যথাসময়ে পৌঁছে যাচ্ছে নির্দিষ্ট স্থানে।

এদিকে সড়ক পথে নাশকতা ঠেকাতে আজ মঙ্গলবার থেকে মাঠে নামছে সন্ত্রাস ও নাশকতা প্রতিরোধী কমিটির সদস্যরা। লাগাতার অবরোধের নামে বিএনপি-জামায়াতসহ ২০ দলের ক্যাডার ও ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা বিভিন্ন স্থানে সন্ত্রাস ও নাশকতা সৃষ্টি করে জনজীবনে দুর্ভোগ সৃষ্টি ও মূল্যবান সম্পদ নষ্ট করার বিরুদ্ধে সোমবার কক্সবাজার জেলায় সন্ত্রাস ও নাশকতা প্রতিরোধ কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সমন্বয়ক জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সালাহ উদ্দিন আহমদ বলেন, জনগণের জানমালের নিরাপত্তার খাতিরে প্রশাসনকে সহযোগিতা দিতে নাশকতা প্রতিরোধ কমিটির সদস্যরা সব সময় প্রস্তুত থাকবে।

চট্টগ্রামে বিজিবির

ব্যাপক প্রস্তুতি ॥

স্টাফ রিপোর্টার চট্টগ্রাম অফিস থেকে জানান, অবরোধে যে সহিংসতা অব্যাহত রয়েছে এবং যানবাহন জ্বালিয়ে দেয়া হচ্ছে, পেট্রোলবোমা মেরে মানুষ মারা হচ্ছে, সহায় সম্পদের ব্যাপক ক্ষতিসাধন করা হচ্ছে তার বিরুদ্ধে জনপ্রশাসনকে সহযোগিতায় চট্টগ্রামে বিজিবি ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। ইতোমধ্যে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চট্টগ্রাম থেকে মীরসরাই পর্যন্ত তিনটি পয়েন্টে বিজিবি ক্যাম্প প্রতিষ্ঠা করেছে ও চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়কেও দু’টি ক্যাম্প প্রতিষ্ঠার সর্বাত্মক প্রস্তুতি চলছে।

উত্তরের ১৬ জেলায়

৫২ প্লাটুন বিজিবি ॥

স্টাফ রিপোর্টার রংপুর থেকে জানান, অবরোধ প্রতিরোধে উত্তরের ১৬ জেলাজুড়ে বিজিবির ৫২ প্লাটুন কাজ করছে। আরও ২২ প্লাটুন রিজার্ভ রয়েছে। প্রয়োজেন সেসব মাঠে নামবে। সোমবার বিজিবির রিজিয়ন সদর দফতরে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ সব তথ্য তুলে ধরেন বিজিবির রংপুর রিজিয়ন দফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মাহফুজার রহমান।

তিনি জানান, রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের ১৬ জেলায় পাঁচটি ল্যান্ড কাস্টম পোর্ট, চারটি ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট ও ১২ ক্যাটেল করিডর রয়েছে। এসবের মাধ্যমে দেশের আমদানি রফতানি তথা অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে বিজিবি সদস্যরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে।

দিনাজপুরে যৌথবাহিনীর

নজরদারি ॥

স্টাফ রিপোর্টার দিনাজপুর থেকে জানান, পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবির সহায়তায় দিনাজপুরের সব রুটে সোমবার থেকে যাত্রীবাহী গণপরিবহন চলাচল শুরু রয়েছে। স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় দিনাজপুরে সোমবার থেকে পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবির নিরাপত্তায় জেলার ১১ রুটে যাত্রীবাহী গণপরিবহন স্বাভাবিকভাবে চলাচল করায় ২০ দলের ডাকা অবরোধ ভেস্তে গেছে।

এছাড়া বেসামরিক জনগণের জানমালের নিরাপত্তাসহ গণপরিবহন, পণ্যবাহী ট্রাক ও ট্যাঙ্কলরি চলাচলে বিজিবির দিনাজপুর সেক্টরের ১২ প্লাটুন সদস্য টহল কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। যৌথ বাহিনীর সঙ্গে সমন্বয় সাধন করে বিশেষ টাস্কফোর্স অপারেশনে অংশ নিচ্ছে বিজিবি। সোমবার সকালে বিজিবির দিনাজপুর সেক্টরের সেক্টর কমান্ডার কর্নেল হলা হেনমং স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে আলোচনায় এ তথ্য জানান।

বগুড়ায় যৌথবাহিনীর

বিশেষ অভিযান ॥

স্টাফ রিপোর্টার বগুড়া থেকে জানান, বগুড়ায় সোমবার রাত থেকে পুলিশ র‌্যাব ও বিজিবি সমন্বয়ে গঠিত যৌথবাহিনীর বিশেষ অভিযান শুরু হয়েছে। এসপি জানিয়েছেন, এ জন্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিশেষ বৈঠক হয়েছে। যারা সড়ক মহাসড়ক ও রেলপথসহ বিভিন্ন স্থানে নাশকতা করেছে তাদের বিরুদ্ধে এই অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। এসব ঘটনায় ইতোমধ্যে ২৩ মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ছাড়াও যাদেরই নাশকতা করতে দেখা যাবে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মাগুরায় যা দরকার তাই

করবে-বিজিবি ॥

নিজস্ব সংবাদদাতা মাগুরা থেকে জানান, মাগুরা প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে জেলার সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতিতে বিজিবির ভূমিকা সম্পর্কে সকলকে অবহিত করতে রবিবার রাতে বিজিবির পক্ষ থেকে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বিজিবি-৬ ব্যাটালিয়নের পরিচালক লে. কর্নেল এসএম মনিরুজ্জামান বলেন, পরিস্থিতি শান্ত রাখার জন্য যা যা করা দরকার তাই করবে বিজিবি।

প্রকাশিত : ২০ জানুয়ারী ২০১৫

২০/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: