মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

পাকিস্তানী ওয়েবসাইটকে আমিরের আইনী নোটিস

প্রকাশিত : ১৫ জানুয়ারী ২০১৫
পাকিস্তানী ওয়েবসাইটকে আমিরের আইনী নোটিস

সংস্কৃতি ডেস্ক ॥ আমির খানের ‘পিকে’-কে ঘিরে বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছেই না। এমনকি বিতর্ক আর ‘পিকে’ যেন সমার্থক হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিতর্কের কারণে চলচ্চিত্রটি নিয়ে দর্শকদের মধ্যে বাড়তি আগ্রহও তৈরি হয়েছে। এ কারণে সর্বকালের সেরা চলচ্চিত্র হিসেবে মুক্তির তিন সপ্তাহেই ৬শ’ কোটি রুপি আয় ছাড়িয়ে গেছে চলচ্চিত্রটির। এদিকে সম্প্রতি ‘পিকে’ চলচ্চিত্রটি নিয়ে আমির খানের একটি ভুয়া সাক্ষাৎকার ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়েছে পাকিস্তানী কিছু ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। ক্ষুব্ধ আমির এবার আইনী নোটিস পাঠিয়েছেন এই ওয়েবসাইটগুলোকে।

জানা গেছে, ‘পিকে’ নিয়ে পাঁচটি প্রশ্নে আমির খানের উত্তর এই শিরোনামে ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে বেশ কিছুদিন ধরেই ছড়িয়ে পড়েছে একটি সাক্ষাৎকার। সাক্ষাতকারটিতে ‘পিকে’তে ইসলাম ধর্মকে বাদ দিয়ে কেন কেবল হিন্দু ধর্মকে তুলে ধরা হয়েছে- এ ধরনের পাঁচটি প্রশ্নের উত্তর দিতে দেখা গেছে আমির খানকে। আমির খানের আইনজীবীদের দাবি, সাক্ষাতকারটি পুরোপুরি ভুয়া। আর তাই পাকিস্তানী ওয়েবসাইটগুলোকে আইনী নোটিশ পাঠিয়েছেন তারা। আমিরের পক্ষ থেকে এই নোটিশ পাঠিয়েছেন আনান্দ দেসাই। প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়াকে তিনি বলেন, বানোয়াট ওই সাক্ষাৎকারে আমিরকে ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে।

জানা গেছে, বিভিন্ন পাকিস্তানী ওয়েবসাইটে তার নতুন চলচ্চিত্র ‘পিকে’ নিয়ে ছাপা সাক্ষাতকার দেখে আমির খান স্তম্ভিত। তিনি কখনই এরকম কোন সাক্ষাৎকার দেননি। এটা পরিষ্কার যে, কেউ আমির খান সেজে এই বানোয়াট সাক্ষাৎকার দিয়েছে ওয়েবসাইটের কাটতি বাড়ানোর জন্য। এটা আমাদের মক্কেলের জন্য অবমাননাকর। তিনি আরও বলেন, আমির খান এখন যুক্তরাষ্ট্রে আছেন। দেশে ফিরেই তিনি এ ব্যাপারে মামলা দায়ের করবেন। আমরা জনাব খানের পক্ষ থেকে ওয়েবসাইটগুলোকে আইনী নোটিস পাঠিয়েছি। এ ধরনের প্রতারণা আমাদের মক্কেলের অধিকারের মারাত্মক লঙ্ঘনের শামিল এবং আমরা এ ব্যাপারে আইনী ব্যবস্থা নেব। মুম্বাইয়ে ফিরেই মুম্বাই পুলিশের সাইবার ক্রাইম সেলে এ ব্যাপারে আমির মামলা দায়ের করবেন বলে জানান তিনি।

এদিকে আমির খান অভিনীত ‘পিকে’ চলচ্চিত্রের আয় ৬শ’ কোটি রুপী ছাড়িয়ে গেছে। এরই মধ্যে সর্বকালের সবচেয়ে ব্যবসাসফল চলচ্চিত্রের খেতাব জেতা ‘পিকে’র জন্য এটি নতুন মাইলফলক। মুক্তির তৃতীয় সপ্তাহের মধ্যেই বিশ্বব্যাপী ৬শ’ ২০ কোটি রুপীর বেশি আয় করে নিয়েছে ‘পিকে’। ভারতের ভেতরেই চলচ্চিত্রটির আয় ছাড়িয়ে গেছে সাড়ে চার শ’ কোটি রুপী। এছাড়া আন্তর্জাতিক বাজারে চলচ্চিত্রটির আয় ছাড়িয়েছে দেড় শ’ কোটি রুপি। বিশ্বব্যাপী সর্বমোট আয়ে অন্যসব চলচ্চিত্রকে ছাড়িয়ে গেলেও আন্তর্জাতিক আয়ের দিক থেকে এখনও ‘পিকে’র চেয়ে এগিয়ে ‘ধুম থ্রি’। ২০১৩ সালের চলচ্চিত্রটি আন্তর্জাতিক বাজারে সব মিলিয়ে আয় করেছিল ১শ’ ৭০ কোটি রুপী। গত বছরের ১৯ ডিসেম্বর মুক্তি পাওয়া ‘পিকে’ বক্স-অফিসে সাফল্য ছাড়াও বিভিন্ন বিতর্কের কারণে বার বার শিরোনামে এসেছে। বিশেষ করে মুক্তির পর থেকেই রাজকুমার হিরানির চলচ্চিত্রটিকে হিন্দু উগ্রবাদী দলগুলো আখ্যা দিয়েছে ‘হিন্দুত্ববিরোধী’ হিসেবে। বিশ্ব হিন্দু পরিষদ এবং বাজরাঙ্গ দলের মতো উগ্রপন্থী দলগুলো হলে হামলা চালিয়ে চলচ্চিত্রটির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেছে। দলগুলোর পক্ষ থেকে চলচ্চিত্রটিকে নিষিদ্ধ ঘোষণারও দাবি উঠেছে। এদিকে ব্যবসার দিক দিয়ে আকাশচুম্বী সাফল্যের পর এবার বলিউডের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানেও শুরু হয়েছে ‘পিকে’র জয়জয়কার। জানা গেছে, স্টার গিল্ড এ্যাওয়ার্ডে সেরা চলচ্চিত্রসহ চারটি বিভাগে পুরস্কৃত হয়েছে চলচ্চিত্রটি। ‘পিকে’ চলচ্চিত্রের জন্য সেরা পরিচালকের পুরস্কার পেয়েছেন রাজকুমার হিরানি। এছাড়া সংলাপ, শব্দমিশ্রণ এবং দ্রুত ১শ’ কোটি রুপি আয়ের জন্য বিশেষ পুরস্কারে ভূষিত হয়েছে চলচ্চিত্রটি। ফিল্মসিটির রিলায়েন্স মিডিয়া ওয়ার্কসে গত ১১ জানুয়ারি বসেছিল স্টার গিল্ড এ্যাওয়ার্ডের আসর। ২০১৪ সালের নির্মিত সফল চলচ্চিত্রগুলোকে বিভিন্ন

ক্যাটাগরিতে এ পুরস্কার দেয়া হয়।

প্রকাশিত : ১৫ জানুয়ারী ২০১৫

১৫/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: