কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

জন্মদিনে বন্যাকে শুভেচ্ছা হাসিনারÑ সরাসরি গানের অনুষ্ঠানেই

প্রকাশিত : ১৪ জানুয়ারী ২০১৫

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ ‘হ্যালো... শুভ সকাল। আমি বন্যাকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। শুভ জন্মদিন বন্যা।’ চ্যানেল আইয়ের গানের অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচারের মধ্যেই টেলিফোনে এমন জন্মদিনের শুভেচ্ছা পেয়ে প্রথমে একটু থতমত খেয়ে যান রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা। মাত্র কয়েক সেকেন্ড বাদে কণ্ঠ শুনেই তিনি বুঝতে পারলেন, এ যে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কণ্ঠ। অবিশ্বাসের রেশ কাটতেই খুশিতে, বিস্ময়ে, আনন্দে উদ্ভাসিত হয়ে উঠল খ্যাতনামা শিল্পী বন্যার চোখমুখ। শুধু প্রধানমন্ত্রীই নন, এরপর টেলিফোনে তাঁকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আরেক কন্যা শেখ রেহানাও। জন্মদিনের সকালে বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যার অভাবনীয় ফোন পেয়ে রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার মনে তখন একই প্রশ্ন- ‘জন্মদিনে এমন সারপ্রাইজ কে পেয়েছে কোথায় কবে!

অবিশ্বাস্য হলেও সত্যিই এমন ঘটনা ঘটেছে মঙ্গলবার সকালে। চ্যানেল আইয়ের নিয়মিত অনুষ্ঠান ‘গানে গানে সকাল শুরু’ অন্য দিনের মতোই সকাল ৭টা ৫০ মিনিটে শুরু হয়। জন্মদিন উপলক্ষে আমন্ত্রিত শিল্পী হিসেবে অনুষ্ঠানে আসেন রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা। দু’বাংলার অত্যন্ত এই জনপ্রিয় শিল্পী নিয়েই শুরু হয় অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানের উপস্থাপিকা অনুষ্ঠানের শুরুতেই জানিয়ে দিলেন- দর্শকরা ফোন করে এ অনুষ্ঠানের শিল্পীকে গানের অনুরোধ জানাতে পারেন।

গান শোনাবেন, ভক্তদের সঙ্গে ফোনালাপ করবেন। প্রস্তুতি এতটুকুই। কিন্তু ফোনের ও প্রান্ত থেকে যে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রীর কণ্ঠ ভেসে আসবে, এটা ছিল শিল্পী বন্যার কল্পনারও অতীত। প্রস্তুতিও ছিল না এমনটা অভাবনীয় পরিস্থিতি মোকাবেলার। কিন্তু বাস্তবে তাই হয়েছে। সরাসরি সম্প্রচার হওয়া গানের অনুষ্ঠান শুরুর কিছু সময় পর হঠাৎ করেই বেজে উঠল টেলিফোন। অনুষ্ঠানে ফোন পেয়ে উপস্থাপক ‘শুভ সকাল’ বলার পরই ওপাশ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বলতে শোনা যায়, ‘শুভ সকাল। বন্যাকে আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা। শুভ জন্মদিন বন্যা।’ তখনই টিভি পর্দায় ভেসে উঠল ‘টেলিফোনে সরাসরি- মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।’ মুহূর্তেই পাল্টে গেল সবকিছু। এমন অভাবনীয় ফোন পেয়ে উচ্ছ্বসিত হয়ে উঠলেন উপস্থাপিকাও। শুধু অনুষ্ঠানের শিল্পী বা উপস্থাপিকাই নন- সকালে সরাসরি এই গানের দর্শকরাও বিস্মিত ও হতবাক হয়ে দেখলেন সত্যিই আর কেউ নন, সাত-সকালে ফোন করেছেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী।

ফোন করে রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী টেলিফোনে বলেন, ‘তোমার সুরের মূর্ছনায় সারা বাংলাদেশ মোহিত হয়ে থাকবে সেটাই আমি চাইব। যুগ যুগ ধরে তোমার এই সুরেলা কণ্ঠ বাংলাদেশের মানুষকে, মানুষের হৃদয়কে আরও জাগ্রত করুক, আরও সুন্দরভাবে তুমি গান গেয়ে যাও। দীর্ঘজীবী হও, আমার দোয়া সবসময় তোমার জন্য থাকবে।’

টিভি লাইভে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রীর এমন ফোন, শুভেচ্ছা ও দোয়া পেয়ে হতবাক, বিস্ময় ও খুশিতে তখন ঝলমল করছিল রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার চোখমুখ। শিশুর মতো বঙ্গবন্ধু কন্যার কথা শুনেছেন, দু’হাত জোড় করে কৃতজ্ঞতা প্রকাশও করেছেন বন্যা। আনন্দে-আবেগে আত্মহারা শিল্পী বন্যা এ সময় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন- ‘আপা...হঠাৎ রবীন্দ্রনাথের একটি লাইন শুধু মনে পড়ছে, ‘হঠাৎ আলোর ঝলকানি লেগে ঝলমল করে চিত্ত’। আজকে সকালে হঠাৎ আলোর ঝলকানির মতো আপনার এই ফোনটা... আমি জানি না... একটা বেস্ট গিফট (সেরা উপহার) দেয়ার জন্য...।’ আবেগে আত্মহারা বন্যা শেষদিকে যেন সবকথা গুছিয়ে বলতে পারছিলেন না। সেটা টেলিফোনের অপরপ্রান্ত থেকে ঠিকই বুঝলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সঙ্গীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার জন্মদিনে আরেকটিও যে চমক অপেক্ষা করছিল, তখনও ধারণার বাইরে ছিল উপস্থাপিকাসহ অনুষ্ঠানের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবার। প্রধানমন্ত্রীর কথা শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আরেকটি কণ্ঠ ভেসে উঠল। ‘শুভ জন্মদিন বন্যা আপা’- আমি শেখ রেহানা। বঙ্গবন্ধুর আরেক জীবিত কন্যার ফোন পেয়ে আবেগজড়িত বন্যা উত্তরে বলেন, “আমরাতো স্কুলে একসঙ্গে ছিলাম। ও (শেখ রেহানা) আমার জুনিয়র কিন্তু আমরা ধানম-ি স্কুলে একসঙ্গে ছিলাম। তুমি আজকে ফোন করেছো রেহানা, আমি... সো কাইন্ড অব ইউ (আমি তোমার প্রতি কৃতজ্ঞ)।’

এ সময় বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ রেহানা বলেন, ‘আপনার জন্য আমরা গর্বিত। আপনার জীবনটা খুব সুন্দর হোক।’ এরপর ‘ভরা থাক স্মৃতি সুধায়’ বলে শেখ রেহানা কথা শেষ করার পর রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা এই গানটি গেয়ে শোনান। টেলিভিশনে সরাসরি এ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার সঙ্গে দুই থেকে আড়াই মিনিট কথা বলেন।

মঙ্গলবার সকালে অভাবনীয় এই ঘটনার পর অনুষ্ঠান শেষেও তার রেশ ছিল দিনভরই। এ ঘটনার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও চলছে তুমুল ইতিবাচক আলোচনা। প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর ছোট বোন শেখ রেহানাকে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছায় স্নাত করেছেন হাজার হাজার মানুষ। অনুষ্ঠান শেষে চ্যানেল আইয়ের উপস্থাপিকা, প্রযোজকসহ অনেককেই রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা বলেছেন, আমি অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিলাম। এ সময় হঠাৎ প্রধানমন্ত্রী ফোন করবেন ভাবতেই পারিনি। উনি (প্রধানমন্ত্রী) ফোন করায় খুবই ভাল লাগছে। মনে হয়েছে, আমাদের প্রধানমন্ত্রী একজন রুচিশীল, সঙ্গীতপ্রিয় মানুষ। উনি যে সকালে উঠে এ ধরনের প্রোগ্রাম দেখেন এটাও আমার খুব ভাল লেগেছে।

প্রকাশিত : ১৪ জানুয়ারী ২০১৫

১৪/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: