কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বাউফলে জামায়াতের এনজিও ॥ হাতিয়ে নিয়েছে ২০ কোটি টাকা

প্রকাশিত : ১৩ জানুয়ারী ২০১৫

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাউফল, ১২ জানুয়ারি ॥ বাউফলে এক জামায়াত নেতার এনজিও হাতিয়ে নিয়েছে গ্রাহকের প্রায় ২০ কোটি টাকা। গ্রাহকরা এই টাকা ফেরত পেতে প্রতিদিন ওই এনজিওর কার্যালয় ভিড় করছেন। কিন্তু টাকা ফেরত পাচ্ছেন না। বরং গা ঢাকা দিয়েছেন ওই এনজিওর কর্মকর্তারা। সোমবার সরেজমিন ওই এনজিও কার্যালয়ে গিয়ে পিয়ন ছাড়া কোন কর্মকর্তাকে দেখা যায়নি। একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, ২০০৯ সালে বাউফল হাসপাতাল সড়কের সৌদিয়া মার্কেটের ৩য় তলায় আরডিপি ফাইন্যান্স এ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট এমসিএস লিমিটেড নামের একটি এনজিও কার্যক্রম শুরু করে। বাউফল পৌর জামায়াতের আমির হাফেজ আবদুর রশিদ হচ্ছেন এই এনজিরও একজন পরিচালক। আর তার ভাই আবদুর রাজ্জাক হচ্ছেন এই এনজিওর চেয়ারম্যান। মোটা অংকের মুনাফার লোভ দেখিয়ে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে ওই এনজিওর কর্মকর্তারা টাকা সংগ্রহ শুরু করেন। মাসিক মুনাফা, মাসিক সঞ্চয় ও হজ প্রকল্পসহ নানা নামে ৪ হাজারেরও বেশি গ্রাহকের কাছ থেকে প্রায় ২০ কোটি টাকার আমানত সংগ্রহ করে। এরই মধ্যে মাসিক মুনাফা লাভের জন্য যারা লাখ লাখ টাকা স্থায়ী আমানত করেছেন তাদের মুনাফা প্রদান বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। এরপরই ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন ওই এনজিওর কয়েক হাজার সদস্য। প্রতিদিন তারা সঞ্চিত টাকা ফেরত পেতে আরডিপির কার্যালয়ে ভিড় করছেন। কিন্তু কিছুতেই ফেরত দেয়া হচ্ছে না সাধারণ মানুষের জমানো টাকা। বাউফল পৌর শহরের পুষ্প নাহার বেগম নামের এক গৃহিণী জানান, আমি প্রতি মাসে ১৫ হাজার টাকা সঞ্চয় করেছি। বর্তমানে আমার ৪৮ হাজার টাকা জমা হয়েছে। আমি ওই টাকা ফেরত চেয়ে পাচ্ছি না। আলী নামের এক কম্পিউটার ব্যবসায়ী জানান, আমি ৩ লাখ টাকা স্থায়ী আমানত রেখেছি। আমাকে কয়েক মাস মুনাফা দিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এখন আমি মুনাফা কিংবা আসল কোনটাই পাচ্ছি না। বাউফল পৌরসভার কাউন্সিলর সরোয়ার হোসেন টিটু একই অভিযোগ করে বলেন, আমি দেড় লাখ টাকা স্থায়ী আমানত প্রকল্পে জমা রেখেছি। এক ওষুধ ব্যবসায়ী নিজাম উদ্দিন বলেন, আমি ৬ লাখ টাকা রেখেছি কিন্তু ফেরত চেয়ে পাচ্ছি না। সূত্র জানায়, কেবল বাউফলেই নয় দেশের বিভিন্ন এলাকায় ৭১টি শাখার মাধ্যমে আরডিপি কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে জানা যায়। ৩২ পুরানা পল্টনের ৮ম তলায় আরডিপির প্রধান কার্যালয়। এদিকে বাউফল উপজেলা সমবায় অফিস সূত্র জানায়, আরডিপি নামে কোন এনজিওর সমবায় অধিদফতরের অনুমতি নেই। তাছাড়া আরডিপি যেভাবে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে অর্থ সংগ্রহ করেছে সমবায় আইন অনুযায়ী তা করা যায় না। আরডিপির বাউফল শাখার ব্যবস্থাপক শাহ আলমের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। সিদ্দিকুর রহমান নামের এই এনজিও এক বিভাগীয় কর্মকর্তা ০১৯২৯৯১২২৭৩ মোবাইল ফোন দিয়ে রিপোর্টটি পত্রিকায় প্রকাশ না করার জন্য ম্যানেজ করার চেষ্টা করেন।

প্রকাশিত : ১৩ জানুয়ারী ২০১৫

১৩/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: