কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

হংকংয়ের মিডিয়া টাইকুনের লড়াই এখন আদালতে

প্রকাশিত : ১৩ জানুয়ারী ২০১৫

হংকং-এ সম্প্রতি ঘটে যাওয়া স্বাধীন ভোটাধিকারের দাবিতে গণতন্ত্রপন্থী ছাত্র বিক্ষোভে অর্থ ও মিডিয়া কভারেজ দিয়ে সহায়তা করেছিলেন জিমি লাই। নিজেকে একজন বিদ্রোহী ও অঘটন পটিয়সী হিসাবে দেখতেই স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন লাই। আন্দোলনে সহায়তা করার কারণে বেজিংয়ের কর্তৃপক্ষের হাতে তিনি এখন আটক আছেন।

স্বায়ত্তশাসিত দ্বীপ হংকংয়ের সবচেয়ে বড় গণতন্ত্রপন্থী মিডিয়া হাউস এখন লাইয়ের মালিকানায়। সম্প্রতি লাইকে বেশ কিছু অনাকাক্সিক্ষত ঘটনার শিকার হতে হয়েছে। যেমন তাকে হত্যার একটি গোপন চেষ্টা চালানো হয়েছিল। তার অফিসে আক্রমণ চালিয়ে তছনছ করে দেয়া হয়েছে। এছাড়া তার প্রতিষ্ঠান বেশ ক’বার হ্যাকিংয়েরও শিকার হয়েছে। লাই মনে করেন, সরকারী পৃষ্ঠপোষকতায় হ্যাকাররা একাজ করে থাকতে পারে। রবিবার রাতে অজ্ঞাত পরিচয় হামলাকারীরা তার অফিস ও বাসার প্রবেশপথে ককটেল হামলা করেছে। আক্রমণকারীদের লক্ষ্য ভবনগুলোতে আগুন ধরিয়ে দেয়া। হামলাকারীরা তার বাড়িতে পচা মাংসও ছুড়ে মেরেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। গত বছর শরতকালের প্রায় পুরোটা জুড়ে হংকংয়ে গণতন্ত্রপন্থী আন্দোলন চলেছে। কয়েক দশক ধরে লাই গণতন্ত্রের পক্ষের তৎপরতা ছিলেন এবারের আন্দোলনটি ছিল তার জন্য এক চূড়ান্ত পর্যায়। সাবেক ব্রিটিশ উপনিবেশ দ্বীপটি ১৯৯৭ সালে চীনের কাছে হস্তান্তরের পর ভিন্নমতের মিডিয়াগুলোর প্রতি বেজিং কোন সহনশীলতা দেখায়নি। বেজিংয়ের এই অনমনীয় মনোভাবের বিরুদ্ধে লাই সব সময়ই ছিলেন সোচ্চার। গত বছর আন্দোলন চলাকালে উৎসাহিত করার জন্য ৬৬ বছর বয়সী লাই নিয়মিত আন্দোলনকারীদের ক্যাম্পে যেতেন। এরকম একদিনের ঘটনা, ২৮ সেপ্টেম্বর হংকংয়ের রাস্তায় গণতন্ত্রপন্থী আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ চলছিল। এ সময় লাই ছিলেন আন্দোলনরত ছাত্রদের সঙ্গে। পুলিশের ছোড়া কাঁদানে গ্যাসের শেলের আঘাতে অন্যদের সঙ্গে লাইও আহত হয়েছিলেন। অকুপাই সেন্ট্রাল বা আমব্রেলা মুভমেন্টের নামে আন্দোলনকারীরা হংকং তিনটি প্রধান বাণিজ্যিক এলাকার সড়কে ক্যাম্প করে অবস্থান নিয়েছিল। শেষ পর্যন্ত কোন রক্তপাত ছাড়াই দুই মাসের বেশি সময় ধরা চলা ওই আন্দোলন দমন করে কর্তৃপক্ষ। লাইয়ের মালিকানাধীন মিডিয়া ওই আন্দোলনের নিয়মিত ও বিস্তারিত কভারেজ দেয়। ১১ ডিসেম্বর আন্দোলন দমনের পরপরই তিনি আটক হন। আন্দোলন চলাকালে তার ভূমিকা কি ছিল এ বিষয়ে বেজিং সমর্থিত হংকংয়ের কর্তৃপক্ষ এ মাসের ২১ তারিখ পুলিশের প্রধান কার্যালয়ে প্রতিবেদন জমা দিতে বলেছে। চীনের মূল ভূখণ্ডে জন্মগ্রহণকারী লাই ১৯৬০ সাল থেকে হংকংয়ে আছেন। তাকে এখন আদালতে পরবর্তী লড়াইটি করতে হবে।

-ইন্টারন্যাশনাল নিউইয়র্ক টাইমস।

প্রকাশিত : ১৩ জানুয়ারী ২০১৫

১৩/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: