কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ক্রুইফই আসছেন

প্রকাশিত : ১০ জানুয়ারী ২০১৫
ক্রুইফই আসছেন
  • নিশ্চিত করলেন বাফুফে সহ-সভাপতি তাবিথ আউয়াল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ হতে যাচ্ছে সব জল্পনা-কল্পনার অবসান। আর কেউ নন, শেষ পর্যন্ত লোডভিক ডি ক্রুইফই আসছেন বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের দ্রোণাচার্য্যরে দায়িত্ব বুঝে নিতে। আজ অথবা কাল বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে বাংলাদেশ দলকে কোচিং করাতে ঢাকায় উড়ে আসছেন সুদূর হল্যান্ড থেকে। আর এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সহ-সভাপতি তাবিথ আউয়াল।

আপাতত একমাসের জন্য দায়িত্ব পালন করতেই আসছেন ৪৪ বছর বয়স্ক এই ডাচ্ কোচ। ক্রুইফই যে আসছেন সেই আভাসটা অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে অনুষ্ঠিত এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের (এএফসি) বার্ষিক অধিবেশনে যোগ দিতে যাওয়ার আগেই দিয়েছিলেন বাফুফে সভাপতি কাজী মোঃ সালাউদ্দিন। জানিয়েছিলেনÑ বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের দায়িত্ব দিতে তাঁর পছন্দের তালিকায় ক্রুইফই এগিয়ে। গত এক-দেড় বছর ক্রুইফ যে দলটি নিয়ে কাজ করেছেন বলতে গেলে সেই জাতীয় দলটাই এখনও আছে। কাজেই বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের জন্য দলটাকে নিয়ে তাঁর খুব বেশি কাজ করতে হবে না। আর এ কারণেই মূলত তাঁকে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের দায়িত্ব দিয়েছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। এছাড়া বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোচ হতে আগ্রহী জার্মান কোচ (২০০৭ সালে ইরান জাতীয় দলের সাবেক সহকারী জার্মান কোচ এনজিন ফিরাত) যে বেতন চেয়েছেন, তা অনেক বেশি। ক্রুইফের জন্য অত টাকা খরচ করতে হচ্ছে না বাফুফেকে। আগের মতো ১২ হাজার ইউরো নয়, এবার প্রায় অর্ধেক বেতনেই কাজ করবেন তিনি।

কদিন অগেই আসন্ন বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুর্নামেন্ট আদৌ সময় মতো শুরু হবে কি না, এ নিয়ে যেমন ছিল ধোঁয়াশা, তেমনি এই আসরে বাংলাদেশ জাতীয় দলের বিদেশী কোচ হিসেবে সাবেক ডাচ্ কোচ লোডভিক ডি ক্রুইফই আবার দায়িত্ব নিতে আসবেন কি না, এটা নিয়েও তৈরি হয়েছিল অনিশ্চয়তার। বাফুফের একটি সূত্র জানিয়েছিল, ত্রুুইফ যে আসবেন, এটা এখনও নিশ্চিত নয়। কেননা বিবেচনায় আছেন এক জার্মান কোচও।

এই টুর্নামেন্টে স্বাগতিক বাংলাদেশ দলকে সেমিফাইনালে দেখতে চান বাফুফে সভাপতি কাজী মোঃ সালাউদ্দিন। তাই টুর্নামেন্ট শুরুর আগে বিদেশী কোচের অধীনে অনুশীলন করাতে চান বাংলাদেশ জাতীয় দলকে। কিন্তু বাংলাদেশ জাতীয় দলে কোন বিদেশী কোচ আসছেÑ সেটিই চূড়ান্ত হচ্ছিল না। তবে গোল্ডকাপের দায়িত্ব দিতে বাফুফে সভাপতির পছন্দের তালিকায় এগিয়ে ক্রুইফ, সেটি তিনি নিজেই জানিয়েছিলেন। যদিও বাফুফের আরেকটি সূত্র জানিয়েছিল টুর্নামেন্টের চূড়ান্ত তারিখ নির্ধারণ হয়নি বলেই এখনও কোন বিদেশী কোচকে দায়িত্ব দেয়া হচ্ছে না। ক্রুইফ যদি আসেন, তাহলে টুর্নামেন্ট চলাকালে তাঁর সহকারী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন দলের বর্তমান প্রধান কোচ সাইফুল বারী টিটু। তাবিথ জানান, ‘ইতোমধ্যেই ক্রুইফ কাজ শুরু করে দিয়েছেন। তিনি কিছু খেলোয়াড় ও স্থানীয় কোচের সঙ্গে যোগাযোগও করেছেন। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ হওয়া পর্যন্ত আমরা তাঁকে নিয়ে আসছি।’

ক্রুইফ আসার পর বাফুফে তাঁর সঙ্গে আলোচনায় বসে বিভিন্ন নীতি ও শর্তাবলীর ভিত্তিতে সবকিছু চূড়ান্ত করবে।

উল্লেখ্য, সিনসিয়ারিটির অভাব, ব্ল্যাকমেইলিংয়ের প্রবণতা, চুক্তির বাইরে চলে যাওয়া, মিডিয়ার কাছে অনবরত নেগেটিভ কথা বলা, ৪৮০ দিনের মধ্যে ২২৪ দিনই নানা অজুহাতে হল্যান্ডে গিয়ে ছুটি কাটানো ... ইত্যাদি অভিযোগ তুলে গত অক্টোবরে বাফুফে প্রথমে ক্রুইফকে বরখাস্ত করার ঘোষণা দেয়। ক্রুইফ সে সময় নিজ দেশে ছুটিতে ছিলেন। পরে তিনি বাংলাদেশে ফিরলে অবশ্য কৌশলগত কারণে সে অবস্থান থেকে সরে এসে ক্রুইফকে উল্লিখিত অভিযোগ নিয়ে শোকজ করে এই ডাচ্ কোচকে। ক্রুইফ কারণ দর্শাও নোটিসের জবাব দিয়ে বাফুফের কাছে তাঁর বকেয়া কয়েক মাসের বেতন ফেরত চান। নইলে ফিফার কাছে নালিশ দেয়ার হুমকি দেন। বাফুফেও তার অবস্থানে অনড় থাকলে একপর্যায়ে বোধদয় হয় ক্রুইফের। বুঝে যান, বিবাদ করে লাভ নেই। বরং বাফুফের সঙ্গে সমঝোতা করে বাকি বকেয়া বতেন নিয়ে মানে মানে কেটে পড়াই সমীচীন। শেষ পর্যন্ত সেটাই করেন তিনি। বাংলাদেশে আগমনের ৩৬ ঘণ্টার মধ্যেই আবারও নিজ দেশ হল্যান্ডের উদ্দেশে বিমানে ওঠেন। বাফুফে তাঁকে জানিয়ে দেয়, পাওনা চার মাসের বেতন পরে ক্রুইফের কাছে হল্যান্ডে পাঠিয়ে দেয়া হবে।

জাতীয় ফুটবল দলের ১৬তম বিদেশী কোচ ছিলেন ক্রুইফ। তাঁর অধীনে জাতীয় ফুটবল দল ভারত, নেপাল, মালয়েশিয়ার বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ এবং এএফসি চ্যালেঞ্জ কাপ, সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ এবং এশিয়ান গেমসে অংশ নেয়। কোনটিতেই তাঁর দল আশাতীত রেজাল্ট করতে পারেনি। ফিফা র্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশকে ১৬৫ থেকে ১০০-১২০-এর মধ্যে নিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলেন ক্রুইফ। ক্রুইফ অক্টোবরে ফিরে যাওয়ার সময় বাংলাদেশের ফিফা র্যাঙ্কিং ছিল ১৮১! সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ছিল ক্রুইফদের মূল এ্যাসাইনমেন্ট, সেখানে সপ্তম হয় বাংলাদেশ। ব্যর্থ হন ক্রুইফ। এখন দেখার বিষয়, শেষ পর্যন্ত আবারও ক্রুইফের প্রস্তাবে রাজি হয়ে তাঁকে আবারও বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের দ্রোণাচার্য্য বানিয়ে আসন্ন বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুর্নামেন্টে কেমন রেজাল্ট পায় বাফুফে।

প্রকাশিত : ১০ জানুয়ারী ২০১৫

১০/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: