কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

প্যারিসের সুপার মার্কেটে ফের হামলা ॥ নিহত ২, পাকড়াও ২

প্রকাশিত : ১০ জানুয়ারী ২০১৫

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ প্যারিসের রম্যসাময়িকী শার্লি হেবদো পত্রিকায় হামলাকারী দুই বন্দুকধারীকে ধরতে উত্তরাঞ্চলের এক ছাপাখানা ঘিরে ফেলেছে পুলিশ। ওই ছাপাখানায় দুই বন্দুকধারী শিশুসহ অন্তত ৫ জনকে জিম্মি করে রেখেছে। এ সময় ওই দুই বন্দুকধারী আত্মঘাতী হওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছে। কিন্তু এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তাদের আটক করা যায়নি। অপরদিকে শুক্রবার প্যারিসে এক ইহুদি সুপারমার্কেটে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে দুই জন নিহত হয়েছে। ওই দুই বন্দুকধারীকে পাকড়াও করতে শ্বাসরুদ্ধকর অভিযান অব্যাহত রেখেছে ফরাসি পুলিশ। খবর বিবিসি, এএফপি ও আলজাজিরা অনলাইনের। এর আগে পুলিশ প্যারিসমুখী দ্রুত গতির একটি গাড়িকে ধাওয়া করে পুলিশ। এ সময় গুলিও চলে এবং কয়েকজন আহতও হয়। পুলিশ এবং সন্ত্রাসবিরোধী বাহিনী প্যারিসে ঢোকার সব পথ বন্ধ করে দিয়েছে।

শার্লি হেবদো অফিসে হামলায় ১২ জন নিহতের ঘটনার প্রায় ২৪ ঘণ্টা পর বন্দুকধারীদের ঘেরাও করল পুলিশ। হামলার পর বন্দুকধারীরা গাড়িতে করে পালিয়ে যায়।

পুলিশ উত্তরাঞ্চলীয় শহরের ওই ভবনে মানুষজনকে রক্ষা করার চেষ্টা করছে। তাছাড়া, অভিযান চলার সময়টিতে আশপাশের লোকজনকে লাইট নিভিয়ে রাখতে বলা হয়েছে। হামলাকারীদের ধরার অভিযানে এরই মধ্যে পুলিশের হেলিকপ্টার এবং সশস্ত্র কর্মকর্তাদের গাড়িবহর এসে পৌঁছেছে বলে জানিয়েছেন এলাকার অধিবাসীরা।

ফরাসি পুলিশ বিভিন্ন অঞ্চলে অভিযানে নামা বাহিনীগুলোকে সন্দেহভাজন তিন হামলাকারীর নামসম্বলিত যে নথি সরবরাহ করে তা বৃহস্পতিবার গণমাধ্যম কর্মীদের হাতে পৌঁছে যায়। ওই নথি মোতাবেক তিন হামলাকারী হলেন সাইদ কোওচি তাঁর ভাই শরিফ কোওচি (৩২) ও হামিদ মুরাদ (১৮)। এর মধ্যে পুলিশ বৃহস্পতিবার সকালে শরিফ ও সাইদ কোওচির ছবি প্রকাশ করে।

প্যারিসের সরকারী কৌঁসুলির দফতরের একজন কর্মকর্তা জানান, তিনজনের মধ্যে হামিদ মুরাদ প্যারিস থেকে ২৩০ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে বেলজিয়াম সীমান্তবর্তী একটি এলাকায় থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করেছেন। শার্লি হেবদো কার্যালয়ের সামনে ফেলে যাওয়া একটি পরিচয়পত্র দেখে তাকে আগেই শনাক্ত করা হয় বলে জানায় পুলিশ।

ইসলামি শ্লোগান দেয়া বন্দুকধারীরা শার্লি হেবদোয় মুসলিম নেতাদের ব্যঙ্গাত্মক উপস্থাপনার জন্য পত্রিকাটির ওপর ক্ষেপে ছিল বলে মনে করা হচ্ছে। হামলার সময় ‘আমরা ইয়েমেনের আল কায়েদা’ বলে শ্লোগান শোনা যায়।

যুক্তরাষ্ট্রে এক উর্ধতন কর্মকর্তা সংবাদিকদের বলেছেন, পত্রিকা অফিসে হামলা চালানো দুই ভাইয়ের একজন সাইদ কোওয়াচি ইয়েমেনে আল কায়দার হয়ে কয়েক মাস প্রশিক্ষণ নিয়েছে বলে অভিযোগ আছে।

শার্লি হেবদো কার্যালয়ে নৃশংস সন্ত্রাসী হামলা ঘটনার ২৪ ঘণ্টা না পেরোতেই বৃহস্পতিবার শহরটির দক্ষিণের ফের গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এক নারী পুলিশ নিহত ও অপর এক পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হয়। তবে শার্লি হেবদো কার্যালয়ে হামলার সঙ্গে এ ঘটনার যোগসূত্র আছে কিনা তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। বৃহস্পতিবারের হামলার পরই ওই বন্দুকধারী পালিয়ে যায়। এই বন্দুকধারী উত্তর আফ্রিকা অঞ্চলের অধিবাসীর মতো দেখতে আবার একই দিন লিও শহরের এক মসজিদের কাছের রেস্টুরেন্টে বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়।

প্রকাশিত : ১০ জানুয়ারী ২০১৫

১০/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: