মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

জয়পুরহাটপাহাড়পুর ॥ সড়ক হুমকির মুখে

প্রকাশিত : ৭ জানুয়ারী ২০১৫
  • অবৈধ বালু উত্তোলনে সংকুচিত আবাদী জমি

নিজস্ব সংবাদদাতা, জয়পুরহাট, ৬ জানুয়ারি ॥ আবাদী জমি ও ছোট যমুনা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের কারণে ভূমিধসে জয়পুরহাট-পাহাড়পুর ও জয়পুরহাট-নঁওগা-রাজশাহী সড়ক যে কোন সময়ে ছোট যমুনার গর্ভে বিলীন হয়ে যাবে। ইতোমধ্যেই পলিবাড়ী-পাহাড়পুর সড়ক ভূমি ধসের কারণে চলাচল অনুপযোগী হওয়ায় হাজার হাজার মানুষের চলাচলে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

জনপ্রতিনিধি, এনজিও কর্মকর্তা ও এলাকাবাসী জানায়, জয়পুরহাটের খঞ্জনপুর এলাকার কয়েকজন বালুদস্যু খঞ্জনপুর ও পাশের তেঁতুলতলী এলাকায় নিজের জমির বালু উত্তোলন করে বিক্রি করে আসছে। এর ফলে প্রতিবর্ষা মৌসুমে ভূমি ধসের কারণে আশপাশের আবাদী জমিগুলো তাদের বালু মহাল গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। শুকনো মৌসুমে প্রতিবছর তারা এসব জমি থেকে গভীর করে কেটে বালু উত্তোলন করে। আর বর্ষা মৌসুমে এই বালু মহালে মৎস্য চাষ করে থাকে। গভীরভাবে বালু উত্তোলন করে বিক্রির কারণে বৃষ্টি হলেই অপরের জমি ভেঙ্গে বালু এসে বালু মহালে এসে পরে। জমির মালিকরা তাদের জমি চাষ করতে না পেরে জমি ফেলে রাখলে ঐ বালুদস্যুরা ঐ সব জমি অল্প দামে কিনে নেয়। বালুদস্যুরা ছোট যমুনা নদী থেকে একইভাবে ইজারা ছাড়াই বালু উত্তোলন করে নিয়ে যাওয়ায় ঐ এলাকাগুলো ভূমিধসের কারণ হয়ে উঠছে। নদীর পার্শ্ববর্তী এলাকাগুলোতে প্রতিদিন জমি ভাঙছে। ফলে কৃষক জমিহারা হচ্ছে। বালু মহালে বিলীন হয়ে গেছে এমন জমির মালিক আমিনুল ইসলাম তারা, বয়েন উদ্দিন মাস্টার, পচা ম-লসহ কয়েকজন ক্ষোভের সঙ্গে জানায় বন্যার সময় ছোট যমুনা নদীর পানিতে জমির ফসল তলিয়ে গেলেও পানি নেমে যাওয়ার পর কিছুটা ফসল পাই। কিন্তু বালুদস্যুরা অবৈধভাবে নিজের জমি থেকে বালু উত্তোলন করলে এলাকায় ভূমিধসের সৃষ্টি হলে আমাদের আবাদী জমিগুলো নদীগর্ভে ও পুকুরে বিলীন হয়ে যায়। অব্যাহত বালু উত্তোলনের কারণে জমির বিলীন হওয়া ছাড়াও অসংখ্য খাদের সৃষ্টি হওয়ায় জমিগুলোর আখ ও পাট নষ্ট হয়ে গেছে। ঐ বালুদস্যুদের একাধিকবার এ বিষয়ে নিষেধ করলেও অবৈধভাবে তার বালু উত্তোলন বন্ধ না হওয়ায় এলাকার জমির মালিকরা তাদের বিরুদ্ধে আদালতে মামলাও করে। বালুদস্যুদের তা-বে অসহায় তেঁতুলতলী গ্রামের বৃদ্ধ কিনা ম-ল ৪ বিঘা জমি হারিয়ে মৃত্যুবরণ করলেও বালুদস্যুদের তা-ব এখনও বন্ধ হয়নি।

এদিকে অবৈধ ও অপরিকল্পিতভাবে বালু উত্তোলনের ফলে ভূমিধস হওয়ায় ইতোপূর্বেই পলিবাড়ি-পাহাড়পুর সড়কসহ আশপাশের সড়কগুলো চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। ঐতিহাসিক বৌদ্ধ বিহার পাহাড়পুরে যাওয়ার সড়কটি ছোট যমুনার গর্ভে যে কোন সময়ে বিলীন হয়ে যাবে। ফলে দেশী-বিদেশী হাজার হাজার পর্যটকের বৌদ্ধ বিহার পরিদর্শনে যাওয়ার সহজ পথটি বন্ধ হয়ে যাবে। বালুদস্যুদের অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধ না করা হলে অল্প দিনেই খঞ্জনপুর পলিবাড়ী গ্রামটি ভূমি ধসের কবলে পরে মারাত্মক দুর্ঘটনার কারণ হয়ে দাঁড়াবে বলে এলাকাবাসীর মাঝে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

এ ব্যাপারে জয়পুরহাট পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোঃ শাহেদুল আহসান সোহেল জয়পুরহাট-পাহাড়পুড় সড়ক সংলগ্ন দোগাছী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জহুরুল ইসলাম, এনডিসি নামের এনজিওর নির্বাহী কর্মকর্তা দেওয়ান কামরুজ্জামানসহ এলাকাবাসী আবাদী জমি এবং নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধের দাবি জানিয়ে বলেন, এই বালু উত্তোলনের কারণে ঐতিহাসিক জয়পুরহাট-পাহাড়পুর, জয়পুরহাট-নঁওগা-রাজশাহী সড়কপথটি ভূমিধসের কারণে ছোট যমুনায় বিলীন হয়ে যাবে এবং ঐ এলাকার কয়েক শ’ পরিবার ভূমিধসের কারণে মারাত্মক দুর্ঘটনার কবলে পড়বে।

প্রকাশিত : ৭ জানুয়ারী ২০১৫

০৭/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: