আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

কেয়া কসমেটিকসের এজিএম ১৪ জানুয়ারি

প্রকাশিত : ৪ জানুয়ারী ২০১৫

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ কেয়া কসমেটিকসের বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ১৪ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে। এদিন সকাল ১০টায় গাজীপুরে অবস্থিত কেয়া নিট কম্পোজিট লিমিটেডের কারখানা প্রাঙ্গণে এ আয়োজন করা হয়েছে। সম্প্রতি ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

রবিবার বিচারপতি মোঃ রেজাউল হাসানের একক বেঞ্চ এসব কোম্পানির একীভূতকরণের আবেদন মঞ্জুর করে সংক্ষিপ্ত রায় ঘোষণা করেন। তবে পূর্ণাঙ্গ রায়ে এ বিষয়ে বিস্তারিত উল্লেখ থাকবে বলে কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। কোম্পানি ও ডিএসই সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

একীভূতকরণের ফলে এসব কোম্পানির দায় বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়মানুযায়ী স্থানান্তর হবে। কোম্পানিগুলো একীভূত হবে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) আইনানুযায়ী।

আদালতের রায় অনুযায়ী, কোম্পানিগুলো একীভূত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এগুলোর সব দায় কেয়া কসমেটিকসের ওপর বর্তাবে। এরই অংশ হিসেবে এসব দায় নিরাপদ বলে বিভিন্ন ব্যাংকের দেয়া অনাপত্তিপত্র (এনওসি) কেয়া কসমেটিকসের পক্ষ থেকে আদালতে উপস্থাপন করা হয়। একীভূত হওয়ার পর পূবালী ব্যাংকের কাছে প্রায় ৫৭০ কোটি টাকা ঋণের বিপরীতে কেয়া কসমেটিকসের ৪৩ শতাংশের বেশি শেয়ার লিয়েনে থাকবে।

জানা গেছে, ২০১৩ সালের ২০ অক্টোবর কেয়া কসমেটিকসের সঙ্গে কেয়া কটন মিলস, কেয়া স্পিনিং মিলস ও কেয়া নিট কম্পোজিট লিমিটেডকে একীভূতকরণের ঘোষণা দেয়া হয়। আদালতে কেয়া কসমেটিকস ও আবেদনকারী কোম্পানিগুলোর পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করেন এ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী ও দেবাশীষ রায় চৌধুরী। বিএসইসির পক্ষে ছিলেন প্রবীর নিয়োগী ও পূবালী ব্যাংকের পক্ষে এম এ হান্নান।

এর আগে ২০১১ সালে কেয়া কটন মিলস ও কেয়া স্পিনিং মিলস প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে মূলধন সংগ্রহের আবেদন করে। উভয় কোম্পানি ফেসভ্যালু ১০ টাকার সঙ্গে ৩০ টাকা প্রিমিয়ামসহ বরাদ্দ মূল্য নির্ধারণ করে ৪০ টাকা। পরে ২০১২ সালের ৭ জুন কেয়া কটন মিলস অধিমূল্য কমিয়ে ৩০ টাকায় বরাদ্দের আবেদন জানায়। কিন্তু উদ্যোক্তা ও সংশ্লিষ্ট কোম্পানির সিআইবি প্রতিবেদন ইতিবাচক না হওয়ায় উভয় কোম্পানির আইপিওর আবেদন প্রত্যাহার করে নেয়া হয়।

কোম্পানির দেয়া তথ্যানুযায়ী, একীভূতকরণের জন্য ১০ টাকা ফেসভ্যালুর কেয়া কসমেটিকসের প্রতিটি শেয়ারের মূল্য ধরা হবে ২৬ টাকা, কেয়া নিট কম্পোজিটের ১৯ টাকা, কেয়া কটন মিলসের ৩৭ টাকা ও কেয়া স্পিনিং মিলসের ৪১ টাকা। এ মূল্যমানের ভিত্তিতে কেয়া কসমেটিকসের একটি সাধারণ শেয়ারের বিপরীতে কেয়া নিট কম্পোজিটের ১.৩৬৮৪২টি, কেয়া কটন মিলসের ০.৭০২৭০টি ও কেয়া স্পিনিং মিলসের ০.৬৩৪১৪টি শেয়ার বিনিময় হবে।

আরএসআরএম এ ক্যাটাগরিতে উন্নীত

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ প্রকৌশল খাতের কোম্পানি রতনপুর স্টিল রি-রোলিং মিলস (আরএসআরএম) ‘এন’ থেকে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে উন্নীত হয়েছে। আগামী ৫ জানুয়ারি থেকে কোম্পানিটি ‘এ’ ক্যাটাগরিতে লেনদেন করবে পুঁজিবাজারে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

জানা গেছে, কোম্পানিটি ৩০ জুন সমাপ্ত অর্থ বছরে শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২৫ শতাংশ লভ্যাংশ দিয়েছে। এর মধ্যে ২০ শতাংশ বোনাস ও ৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ। আর এই লভ্যাংশ দিয়ে কোম্পানিটি ‘এ’ ক্যাটাগরিতে উন্নীত হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১২ ডিসেম্বর আরএসআরএম বিনিয়োগকারীদের বিও (বেনিফিশিয়ারি ওনার্স) হিসেবে লভ্যাংশ পাঠিয়েছে।

প্রকাশিত : ৪ জানুয়ারী ২০১৫

০৪/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: