মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

ধূসর ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে সিরীয় যোদ্ধারা

প্রকাশিত : ৪ জানুয়ারী ২০১৫
  • আইএসের উত্থান পাল্টে দিয়েছে যুদ্ধের চালচিত্র

সিগারেটের ধোঁয়ায় ভরে গিয়েছিল হোটেল কক্ষের ভেতরটি। ঠিক যেমন তুরস্কের দক্ষিণাঞ্চলীয় সীমান্ত শহরের বাইরের পরিবেশ বেশ কুয়াশাচ্ছন্ন। সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধে শাসক বাশার আল আসাদের বিরুদ্ধে অস্ত্রধারণ করা বা তাদের সহায়তাকারীদের এখনকার ঠিকানা হলো এই হোটেল। শহরটি প্রায় চার বছর ধরে চলা গৃহযুদ্ধে অংশ নিতে আশা বিদেশী যোদ্ধাদের একটি পছন্দের জায়গা। ইন্টারন্যাশনাল নিউইয়র্ক টাইমস।

বাশার আল আসাদের বিরুদ্ধে ২০১১ সালের মার্চে শুরু হওয়া আন্দোলন শেষ পর্যন্ত গৃহযুদ্ধের রূপ নেয়। আরব বসন্ত নামে পরিচিত কয়েকটি আরব দেশে শুরু হওয়া গণতান্ত্রিক আন্দোলন থেকে উদ্বুদ্ধ হয়ে সিরিয়ার জনগণ ওই লড়াই শুরু করে। তাদের ভাষায় এটি হলো বিপ্লব। কিন্তু এই বিপ্লব নিয়ে এতদিনে তাদের মোহভঙ্গ হতে শুরু করেছে।

যেমন ওই হোটেল কক্ষে যারা আলাপচারিতা করছিল তারা করছে যে বিপ্লবের চেতনা নিয়ে তারা ঘর ছেড়েছিল তার কিছুই অর্জিত হয়নি বরং এই যুদ্ধ তাদের জীবনের স্বপ্নগুলো শেষ করে দিয়েছে। পরিবার পরিজন, বন্ধু বান্ধব এমন কি বাগদত্তাদের থেকেও যুদ্ধ তাদের বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে। হোটেল কক্ষে আশ্রয় নেয়া সবাই হয় সরাসরি যুদ্ধ করেছে অথবা যোদ্ধাদের সহায়তা করেছে। তারা এখন ইসলামিক স্টেট বা আইএস যোদ্ধাদের থেকে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। এদের প্রত্যেকের বয়স ২০-এর কোঠায়। তারা এখন ধূমপানের মধ্যে মনের শান্তি খুঁজে ফেরে। তারা এক সময় ছিল সিরিয়ার আন্তাকিয়া নগরীর বাসিন্দা। তারা এক সময়ে শাসক পরিবর্তনের স্বপ্ন দেখেছিলেন। তাদের লড়াই এখন তুরস্কের আন্তাকিয়া শহরের এই হোটেলের চার দেয়ালের মধ্যে সীমাবদ্ধ। সিরিয়ার সীমান্ত পেরিয়ে যারা আন্তাকিয়ায় এসেছে তারা এক সময় ছিল পরস্পরের বন্ধু কারণ তারা আসাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে নেমেছিল। কিন্তু তাদের মধ্যে কেউ কেউ এখন অন্যদের শত্রু হয়ে উঠেছে। কারণ বিদেশী জিহাদিদের সিরিয়া যাওয়ার একটি রুটের মধ্যে শহরটির অবস্থান। গত বছরটি ছিল সিরিয়ায় আসাদ বিরোধী যোদ্ধাদের জন্য একটি কঠিন সময়। যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমা দেশগুলোর দৃষ্টি এখন আসাদ থেকে সরে গিয়ে আইএসের দিকে নিবদ্ধ হয়েছে। ফলে দীর্ঘদিনের গৃহযুদ্ধে দেশে-বিদেশে কোণঠাসা হয়ে পড়া আসাদ কিছুটা দম ফেলানোর সুযোগ পেয়েছেন। অন্যদিকে আসাদ বিরোধী যোদ্ধাদের অনেককে পালিয়ে গিয়ে আত্মরক্ষা করতে হয়েছে। তারা এখন আসাদ ও কট্টরপন্থী গ্রুপ আইএসের তোপের মুখে পড়েছে। বিশ্লেষকদের অনেকে বলছেন, আসাদ বিরোধী লড়াইয়ে আইএস আসার পর যুদ্ধের গতি প্রকৃতি পাল্টে গেছে। আইএস জঙ্গীরা আসাদ বিরোধীদের পারস্পরিক ঐক্য নষ্ট করে দিয়েছে।

প্রকাশিত : ৪ জানুয়ারী ২০১৫

০৪/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: