কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

মাহমুদউল্লাহ-এর তিনটি ছড়া

প্রকাশিত : ৩ জানুয়ারী ২০১৫

শিশু

খাঁটি কথা বলেছিল

ও পাড়ার মাখনা,

শিশুরা যে কোলে ওঠে

সেটা নয় মাগনা।

কোলে ওঠেÑ বিনিময়ে

হাসি দেয় ফুল্ল,

সোনা-দানা, হীরা-মোতি

নয় তার তুল্য।

রোদসী

দেড় বছরের রোদসীকে তোমরা সবাই চেন,

রোদসী এক মিষ্টি মেয়ে চাঁদের টুকরো যেন।

আমরা তাকে রোদু কিংবা রোদ বলেও ডাকি,

হালকা গড়ন সোনার বরণ সে যে আলোর পাখি।

তারও আবার বন্ধু আছে, রোজ ডাকে সে তাকে,

খুব খুশি হয় কাছে পেলে বন্ধু নাবিলাকে।

তারা হাসে কী যে বলে, আমরা কি তা বুঝি,

আড়াল থেকে দেখি এবং মানে কেবল খুঁজি।

রোদু হঠাৎ দাদুর চশমা টেনে নিতে পারে,

দাদু তখন খুব অসহায়, রোদুর কাছে হারে।

কলিং বেলের শব্দ শুনে কে-কে বলে ছোটে,

চাচুকে সে দেখতে পেয়ে অমনি কোলে ওঠে।

চা খাবে সে দাদুর পাশে তাই তো ছুটে আসে,

ফুঁ দেয় আবার চায়ের কাপে, খুশির হাসি হাসে।

দুধের বাটি দেখলে পরে লুকোয় বারান্দাতে,

বুদ্ধিতে সে কম পাকা নয় বোঝা গেল তাতে।

অঙ্কের মাস্টার

খুব রাগী হারুদের

অঙ্কের মাস্টার,

ভাবখানা এই বুঝি

ছুড়ে মারে ডাস্টার।

ক্লাসে তাই কাঁপে সদা

আছে যত ছাত্তর,

যেন তারা কঠিন এক

শাস্তির পাত্তর।

কন তিনি, অবহেলা

সইব না জানবি,

বিশখানা অঙ্কই

করে তোরা আনবি।

হারু বলে, তবে স্যার

কথাখানা ভাববার,

এতে খুব অসুবিধা

হয়ে যাবে আব্বার।

প্রকাশিত : ৩ জানুয়ারী ২০১৫

০৩/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: