আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সড়ক দুর্ঘটনায় হত ৮ ॥ ম্যানহোল পরিষ্কার করতে গিয়ে প্রাণ গেল ২ জনের

প্রকাশিত : ৩ জানুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর রমনায় ইস্কাটন গার্ডেন এলাকায় দুর্বৃত্তদের পিটুনিতে এক প্রাইভেটকার চালক নিহত হয়েছেন। মুগদায় ম্যানহোল পরিষ্কার করতে নেমে বিষাক্ত গ্যাসে দুই পরিচ্ছনকর্মীর মৃত্যু হয়েছে। পৃথক সড়ক দুঘর্টনায় ৬জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে কদমতলীতে মালভর্তি একটি ট্রাক খাদে পড়ে এক নারীসহ দুই শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় চার শ্রমিক আহত হয়েছে। এছাড়া বিমানবন্দর, শেরে বাংলানগর, মতিঝিল ও কমলাপুরের টিটি পাড়ায় সড়ক দুঘর্টনায় আরও চারজন নিহত হয়েছে। এদিকে ধানম-িতে একটি খাবারের দোকানে অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার পুলিশ ও মেডিক্যাল সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

পুলিশ জানায়, রমনা থানাধীন ইস্কাটন গার্ডেন এলাকায় দুর্বৃত্তরা বাদল মৃধা (৩৫) নামে এক প্রাইভেটকার চালককে পিটিয়ে হত্যা করেছে। নিহত বাদলের বাবার নাম মৃত সাহেব আলী। তিনি ইস্কাটন গার্ডেন এলাকাতে থাকতেন। রমনা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মুজিবুর রহমান জানান, নিহত বাদল মৃধা ইস্কাটন গার্ডেন এলাকায় এক বাড়িতে প্রাইভেটকার চালক ছিলেন। মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে ওই এলাকায় ৪-৫ দুর্বৃত্ত তাঁকে বেদম মারধর করে। তার চিৎকারে লোকজন এগিয়ে এলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। প্রথমে আহত অবস্থায় তাকে হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার তাঁর মৃত্যু ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ রাত সাড়ে ১১টার দিকে ওই হাসপাতাল থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে। পরে গভীররাতে তাঁর লাশের ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠায়। শুক্রবার সকালে ঢামেক মর্গে তাঁর লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। এসআই মুজিবুর রহমান জানান, এ ঘটনায় দুই জনের নাম উল্লেখপূর্বক অজ্ঞাত আরও ৪-৫ জনের নাম উল্লেখ করে রমনা থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

দুই পরিচ্ছন্ন কর্মীর মৃত্যু ॥ শুক্রবার বিকেলে মুগদায় মানিকনগর মডেল স্কুল রোডে ম্যানহোল পরিষ্কার করার সময় বিষাক্ত গ্যাসক্রিয়ায় দুই পরিচ্ছন্নকর্মীর মৃত্যুর হয়েছে। এঁরা হচ্ছেন, নুরু মিয়া (৬০) ও দিলা মিয়া (৬২)। তাঁরা মানিক নগরের ওয়াসা রোড এলাকায় থাকতেন। নিহতদের সহকর্মী বাবুল জানান, বিকেল ৩টার দিকে তাঁরা তিনজন ম্যানহোল পরিষ্কারের কাজ করছিলেন। এর মধ্যে নুরু ও দিলা ম্যানহোলের ভেতরে নামেন। অনেকক্ষণ তাঁদের সাড়াশব্দ না পেয়ে তিনি ম্যানহোলে উঁকি দিয়ে দুইজনকে অজ্ঞান অবস্থায় দেখতে পান। পরে তিনিসহ স্থানীয়রা তাঁদের অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে বিকেল সোয়া ৪টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। মুগদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক জানান, ধারণা করা হচ্ছে, ম্যানহোলের বিষাক্ত গ্যাসে দুই পরিচ্ছন্ন কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। বিকেল ৩টার দিকে মানিকনগর মডেল স্কুলসংলগ্ন সড়কে ম্যানহোল পরিষ্কার করার সময় ওই দুজন সংজ্ঞা হারান। পরে স্থানীয়রা তাঁদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে গেলে ডাক্তার দু’জনকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি জানান, নুরু ও দিলা মিয়া সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্নকর্মী নন। ওই ম্যানহোলের কারণে কোন বাড়ির পয়ঃনিষ্কাশন লাইনে হয়ত সমস্যা হচ্ছিল। তাই হয়ত ব্যক্তিগতভাবে কেউ তাদের নামিয়েছিল। পরে তাদের লাশের ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে। এলাকাবাসী সুন্দর আলী জানান, বিকেলে ম্যানহোল পরিষ্কার করতে নামেন দিলা ও নুরু মিয়া। তাঁদের দু’জনের কিছুক্ষণ পর নামেন বাবুল। কিন্তু ওই দু’জনের কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে বাবুল উঠে আসেন। এরপর স্থানীয়রা মিলে খোঁজাখুঁজি শুরু করলে দু’জনকে ম্যানহোলের ভেতরে অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায়। তিনি জানান, পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় দিলা ও নুরু মিয়াকে ঢামেকে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে ডাক্তার মৃত ঘোষনা করেন তাদের। সুন্দর আলী দাবি করেন, দুই পরিচ্ছন্নকর্মীকে উদ্ধারে পুলিশ ও র‌্যাব-৩ এর সদস্যরা সহযোগিতা করলেও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন অনেক পরে আসে।

যানবাহনের ধাক্কায় ৮ জন নিহত ॥ শুক্রবার সকালে পুরনো ঢাকার কদমতলীর জিয়া সরণির পালপাড়ায় ইটভর্তি একটি ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে এক নারীসহ দুই শ্রমিক নিহত হয়েছেন। এঁরা হচ্ছেন, হনুফা বেগম (৪৭) ও নজরুল ইসলাম (৪৫)। তাঁরা ওই ট্রাকের শ্রমিক ছিলেন। এ সময় চার শ্রমিক আহত হন। নিহত হনুফার স্বামীর নাম নোয়াব আলী। গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালী জেলার গলাচিপা থানা এলাকায়। তিনি নামাশ্যামপুর বড়ইতলা এলাকায় সপরিবারে বসবাস করতেন। আর নিহত নজরুলের বাবার নাম ইমাত ম-ল। গ্রামের বাড়ি গাইবান্ধা জেলায়। তিনি পুরনো ঢাকার শ্যামপুর লাল মসজিদ সংলগ্ন ১ নম্বর রোডে সপরিবারে ভাড়া থাকতেন। তাঁর স্ত্রীর নাম রোকেয়া বেগম। কদমতলী থানার এসআই আব্দুল মান্নান জানান, শুক্রবার সকাল পৌনে ৭টার দিকে পূর্ব শ্যামপুরে জিয়া সরণির পালপাড়া নামক স্থানে একটি ট্রাক অপর একটি ইটভর্তি ট্রাককে ধাক্কা দেয়। এ সময় ইটভর্তি ট্রাকটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পাশের একটি খাদে পড়ে যায়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ওই খাদ থেকে ছয় শ্রমিককে উদ্ধার করে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে জরুরী বিভাগে আনে। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক হনুফা ও নজরুলকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ হাসপাতাল থেকে তাদের লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠায়। নিহত হনুফার ছেলে মামুন জানান, মা প্রতিদিনের মতো ট্রাকে ইট তোলার কাজে গিয়েছিলেন। এরপরই তিনি এই দুর্ঘটনার শিকার হন। নিহত নজরুলের মেয়ে সাবিনা জানান, সকালে তার বাবা নজরুল ইট বোঝাই করে সেখানে গিয়েছিলেন। পরে সেই ট্রাক উল্টো খাদে পড়ে যায়। এতে তার বাবার মৃত্যু ঘটে।

এদিকে রাজধানীর দক্ষিণ যাত্রাবাড়ী হানিফ ফ্লাইওভারের কাছে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় আনোয়ার হোসেন (২২) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। শুক্রবার রাতে মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ঢাকা মেডিক্যাল পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মোজাম্মেল হক রাতে জনকণ্ঠকে বলেন, শুক্রবার রাত ৯টার দিকে দুর্ঘটনায় আহত অবস্থায় আনোয়ারকে হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার বাসা দক্ষিণখানের ফায়দাবাদে। আব্দুল্লাহপুরের ‘সরকার অটো মোবাইলের’ দোকানে তিনি চাকরি করতেন। নিহতের বন্ধু হৃদয় জানান, তারা তিন বন্ধু মোটরসাইকেল নিয়ে হানিফ ফ্লাইওভারের ওপর দিয়ে যাওয়ার সময় মোটরসাইকেল থেকে নেমে তিনজন ছবি তুলছিলেন। এ সময় একটি মোটরসাইকেল আনোয়ারকে ধাক্কা দিলে সে গুরুত্বর আহত হয়। তারা দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে এলে তাকে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।

হাসপাতালে আনোয়ারকে মৃৃত ঘোষণার পরপরই রুবেল ও শামীম নামে দুই যুবক হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এলে হৃদয় চেঁচিয়ে বলেন, তাদের মোটরসাইকেলই আনোয়ারকে ধাক্কা মেরেছিল। অবশ্য ওই দুই যুবক তার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। রাতে ওই দুই যুবককে ওয়ারী থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে ঢাকা মেডিক্যাল পুলিশ ফাঁড়ি।

এদিকে বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে বিমানবন্দর থানাধীন উত্তরা পদ্মা অয়েলের সামনে রাস্তা পার হবার সময় গাড়ি ধাক্কায় অজ্ঞাত (৪০) এক পথচারীর মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ সেখান থেকে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শুক্রবার সকালে ঢামেক মর্গে পাঠায়। বিমানবন্দর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নাসির উদ্দিন জানান. ওই স্থানে তাকে একাধিক গাড়ি চাপা দিয়ে যায়। শেরেবাংলা নগর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নুরুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন কেন্দ্র থেকে অজ্ঞাত (৪০) এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে তার লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য শুক্রবার ভোরে ঢামেক মর্গে পাঠায়। তিনি জানান, সড়ক দুঘর্টনায় ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। অন্যদিকে বৃহস্পতিবার রাতে মতিঝিল শাপলা চত্বর এলাকায় রাস্তা পার হবার সময় আফতাব গ্রুপের এ্যাসিস্ট্যান্ট এ্যাকাউন্ট অফিসার রঞ্জন দেবনাথের (৩৮) মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ জানায়, পল্টনমুখী যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় তিনি প্রাণ হারান। নিহত রঞ্জন দেবনাথের স্ত্রী বীণা দেবনাথ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের জ্যেষ্ঠ সেবিকা। এ দম্পতির বসবাস পুরনো ঢাকার শনিরআখড়ায়। স্থানীয় সূত্র জানায়, অফিস ছুটি শেষে রঞ্জন দেবনাথ বাসায় ফেরার জন্য রাস্তার পাশে অপেক্ষা করছিলেন। এ সময় গাজীপুরগামী একটি বাস তাঁকে চাপা দেয়। নিহতের স্ত্রী বীণা দেবনাথ জানান, রঞ্জন দেবনাথ মতিঝিলের আফতাব গ্রুপের প্রধান কার্যালয়ে কর্মরত ছিলেন। তার বাবার নাম আশুতোষ দেবনাথ। তারা শনিরআখড়ার ধনিয়া ৮১৬/এ নম্বর বাড়িতে থাকেন। খবর পেয়ে পুলিশ হাসপাতালে তার লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠায়। শুক্রবার তার লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। অপরদিকে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে কমলাপুরের টিটিপাড়ায় কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় সাঈদ আকন্দ (৫০) নামে সাইকেল আরোহীর মৃত্যু হয়েছে।

গাজীপুর থেকে নিজস্ব সংবাদদাতা জানান, গাজীপুরের শ্রীপুরে শুক্রবার রাতে গাড়ির ধাক্কায় এক কারখানার শ্রমিক নিহত ও অপর ৩ পথচারী আহত হয়েছে। নিহতের নাম বিল্লাল হোসেন (২১)। সে সিরাজগঞ্জ জেলার বেলকুচি থানার বাওগান গ্রামের সোলায়মান মোল্লার ছেলে। বিল্লাল গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার নয়নপুর এলাকার হংকং স্পিনিং মিলের কর্মী। শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে শ্রীপুরের নয়নপুর এলাকায় ময়মনসিংহগামী যাত্রীবাহী হিউম্যান হলার লেগুনা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা ৪-৫ পথচারীকে ধাক্কা দেয়। এতে তিন পথচারীসহ লেগুনার চালক আহত হয়। স্থানীয়রা গুরুতর আহত ওই ৪ জনকে উদ্ধার করে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথে বিল্লাল মারা যায়। পুলিশ লেগুনাটি আটক করেছে বলে মাওনা হাইওয়ে থানার ওসি সানোয়ার হোসেন জানিয়েছেন।

বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে শ্রমিকের মৃত্যু ॥ শুক্রবার বিকেলে পুরনো ঢাকার কদমতলীতে বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে জুয়েল হোসেন (৪০) নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। নিহত জুয়েল সোয়েটার কারখানায় কাজ করতেন। তাঁর বাবার নাম সোবহান মাতব্বর। গ্রামের বাড়ি শরীয়তপুর সদর থানার পশ্চিম ছাব্বিশপাড়া গ্রামে। তিনি কদমতলীর মুরাদপুর হাজী লালমিয়া সরকার রোডের একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন। নিহতের বাবা সোবহান মাতব্বর জানান, দুপুরে জুয়েল হোসেন বিদ্যুতের কাজ করার সময় বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়। পরে ছেলে জুয়েলকে উদ্ধার করে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ঢামেক হাসপাতালে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

খাবার দোকানে অগ্নিকা- ॥ শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে ধানম-িতে একটি খাবারের দোকানে অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটেছে। ধানম-ি থানার ওসি আবু বকর সিদ্দিক জানান, শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে ধানম-ি ক্লাব মাঠের কাছে মিরপুর রোডে ময়ূরী নামের ফাস্ট ফুডের দোকানে আগুন লাগে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চালায়। আধা ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে তারা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। আগুনে কেউ হতাহত হয়নি। ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা মোঃ আলী জানান, কি কারণে ওই দোকানে আগুন লেগেছে, কি পরিমাণ ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

প্রকাশিত : ৩ জানুয়ারী ২০১৫

০৩/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: