মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

কথার চেয়ে কাজে মনোযোগী ছিলেন ধোনি ॥ দ্রাবিড়

প্রকাশিত : ২ জানুয়ারী ২০১৫
কথার চেয়ে কাজে মনোযোগী ছিলেন ধোনি ॥ দ্রাবিড়

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ শুধু ভারত নয়, পুরো বিশ্ব ক্রিকেটেরই অন্যতম সফল একজন অধিনায়ক ছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। কিন্তু হুট করেই গত মঙ্গলবার ‘বক্সিং ডে’ টেস্টের সময় জানা গেল দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন ‘ক্যাপ্টেন কুল’ নামে খ্যাতি জুটে যাওয়া ধোনি। অথচ মেলবোর্নে সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে কিছু না বলায় ঘুণাক্ষরেও কেউ টের পায়নি এত বড় একটি ঘটনা। ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই) থেকে আনুষ্ঠানিক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির পরই তা প্রকাশ পেয়েছে। ধোনির নেতৃত্ব নিয়ে তাঁরই সাবেক সতীর্থ কিংবদন্তি ক্রিকেটাররা প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছেন। টেস্ট ক্রিকেটে ‘দ্য ওয়াল’ খ্যাতি পাওয়া রাহুল দ্রাবিড় দাবি করলেন ধোনি ছিলেন পুরো দলের জন্যই অনুপ্রেরণার নাম। ধোনি সবসময় দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন দৃষ্টান্তের মাধ্যমে, শুধু কিছু কথার মাধ্যমে নয়। এমনটাই জানালেন তাঁর সাবেক সতীর্থ দ্রাবিড়। তবে সিরিজের মাঝামাঝি ধোনির এ সিদ্ধান্তে আশ্চর্য হয়েছেন দ্রাবিড় এবং আশা প্রকাশ করেছেন সিদ্ধান্ত বদলানোর বিষয়টি নিয়ে আরেকবার ভাববেন ধোনি।

ধোনির অধীনে ভারতের তিন কিংবদন্তি ক্রিকেটারা শচীন টেন্ডুলকর, সৌরভ গাঙ্গুলী ও দ্রাবিড় খেলেছেন। তাঁকে দেখেছেন খুব কাছ থেকে। তাঁর নেতৃত্ব দেয়ার কৌশলটা বিখ্যাত হয়েছে ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসে। এ বিষয়ে দ্রাবিড় বলেন, ‘তিনি এমন একজন অধিনায়ক যার অধীনে খেলে আমি অনেক উপভোগ করেছি। আমি তাঁর যে বিষয়টি সবচেয়ে বেশি পছন্দ করেছি সেটা হচ্ছে যা তিনি দেখেছেন সেটাই তিনি পেয়েছেন। জটিলতা ছাড়াই তিনি সবসময়ই বিভিন্ন দৃষ্টান্ত দিয়ে দলকে নেতৃত্ব দেয়ার প্রচেষ্টা চালিয়ে গেছেন। আরেকটি বিষয় যেটা আমি দেখেছি তিনি কখনই কোন খেলোয়াড়কে কোনকিছু করার জন্য বলতেন না।’ ধোনির নেতৃত্ব কৌশলটা এ কারণেই সবার কাছে বেশ মর্যাদা পেয়েছে। কারণ কথার চেয়ে কাজেই বেশি বিশ্বাসী ছিলেন তিনি। এ বিষয়ে দ্রাবিড় বলেন, ‘বাস্তবতা হচ্ছে তিনি তাঁর চেয়ে সিনিয়র এবং জুনিয়র ক্রিকেটারদের মধ্যে একটা দারুণ যোগসূত্র ছিলেন। একটি দিক থেকে দেখলে বলা যায় তিনি আসলে খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথাবার্তা বলার ক্ষেত্রে তেমন সুদক্ষ ছিলেন না। কিন্তু তিনি সবসময়ই প্রতিটি খেলোয়াড়ের সম্মান পেয়েছেন পারস্পরিক কথাবার্তা চালিয়ে যাওয়ার জন্য পদক্ষেপ নিয়ে। তিনি কথা বলার চেয়ে কাজ করেই দেখাতে চাইতেন বেশি।’

ধোনির নেতৃত্বে প্রথমবারের মতো টেস্ট ক্রিকেটের র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষস্থান পেয়েছিল ভারতীয় দল। তিনি ভারতীয় ক্রিকেটকে অনেক ওপরে নিয়ে গেছেন। যার কারণে আগের মতো পিছিয়ে নেই টেস্টে ভারতীয় দল। এ বিষয়ে দ্রাবিড় বলেন, ‘রাঁচির মতো ছোট একটি শহর থেকে উঠে এসে দলে স্থায়ী হওয়া, নেতৃত্ব দেয়া এবং ৯০ টেস্টের বেশি খেলে ফেলা নিজের প্রচেষ্টা ছাড়া সম্ভব নয়। আমি মনে করি তিনি অধিনায়কত্বের দায়িত্বে বিশেষ এক মর্যাদার সৃষ্টি করতে সক্ষম হয়েছেন।

তিনি হয়ত সবার কাছে সমানভাবে গ্রহণযোগ্য হতে পারেননি, কিন্তু তিনি নিজেকেই যোগ্য বলে প্রমাণ করেছেন এবং প্রচুর সাফল্যও পেয়েছেন। আর এটা তাঁর কাছ থেকে কখনই কেড়ে নেয়া সম্ভব নয়। তিনি একজন অনুপ্রেরণার নাম।’ তবে ধোনির অবসরে যাওয়ার সময়টা নিয়ে বেশ আশ্চর্য হয়েছেন দ্রাবিড়। কারণ এমন সময় তিনি সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন যখন অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে আরেকটি টেস্ট বাকি আছে। এ বিষয়ে দ্রাবিড় বলেন, ‘আমার মনে হয়েছে এটা অপ্রত্যাশিত। কারণ একটি সিরিজের মাঝামাঝি তিনি এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আমি আশা করব তিনি আরেকবার বিষয়টি নিয়ে ভাববেন সিরিজ শেষ হওয়ার পর। যেহেতু পরবর্তী ৭-৮ মাস ভারত আর কোন টেস্ট খেলবে না, তাই যথেষ্ট সময় আছে নতুন কিছু চিন্তা করার।’

প্রকাশিত : ২ জানুয়ারী ২০১৫

০২/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: