কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ইতিহাস নতুন করে লিখবেন না

প্রকাশিত : ২ জানুয়ারী ২০১৫
  • মোদির প্রতি ভারতীয় ইতিহাসবিদদের আহ্বান

ভারতের প্রখ্যাত ইতিহাসবিদরা দেশটির ইতিহাস নতুন করে লেখার চেষ্টা থেকে বিরত থাকতে, তথ্য বিকৃতি বন্ধ করতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। ভারতীয় ইতিহাস কংগ্রেসের (আইএইচসি) প্লাটিনাম জুবিলি উপলক্ষে নয়াদিল্লীতে আয়োজিত সম্মেলনে গৃহীত এক প্রস্তাবে এ আহ্বান জানানো হয়। ২ হাজারেরও বেশি ইতিহাসবিদ এ সম্মেলনে যোগ দেন। খবর এনডিটিভি, হিন্দুস্তান টাইমস ও ডিএনএ অনলাইনের।

ইতিহাস নতুন করে লেখার চেষ্টা নিয়ে গভীর উদ্বেগ ব্যক্ত করে ইতিহাসবিদরা সুপ্রতিষ্ঠিত ঐতিহাসিক সত্যের পরিপন্থী এমন বিবৃতি দেয়া থেকে বিরত থাকতে নরেন্দ্র মোদিসহ রাজনৈতিক নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান। এরূপ বেপরোয়া ও দায়িত্বহীন মন্তব্য ভারতের সুনাম খর্ব করবে বলে তাঁরা মত ব্যক্ত করেন।

ইতিহাসবিদরা বলেন, প্রাচীন পৌরাণিক কাহিনী ও অনুমানভিত্তিক সময়পঞ্জি ব্যাপক হারে ব্যবহার করে ভারতীয় ইতিহাস পুনর্লিখনের প্রয়োজনীয়তার পক্ষে কোন কোন ‘প্রভাবশালী মহল’-এর উত্থাপিত দাবি শুনে তাঁরা বিচলিত বোধ করছেন। মর্যাদাবান আইএইচসির ওই অধিবেশনে মঙ্গলবার গৃহীত প্রস্তাবে বলা হয়, দুর্ভাগ্যের কথা এমনকি প্রধানমন্ত্রীও অভিমত ব্যক্ত করেছিলেন যে, প্রাচীনকালে ভারতীয়রা যা বর্তমানে সম্ভব তার চেয়েও উন্নত মানের প্লাস্টিক সার্জারি জানতেন এবং পরে তাঁরা তা ভুলে গিয়েছিলেন। গত অক্টোবরে নরেন্দ্র মোদি বলেছিলেন যে, কোন প্রাচীন প্লাস্টিক সার্জন অবশ্যই কোন হাতির মাথা গণেশ দেবতার দেহে লাগিয়েছিলেন। প্রস্তাবে বলা হয়, আমাদের স্কুলগুলোর ছাত্রদের মধ্যে এরূপ অতিশয় বিভ্রান্তিকর ও বিভাজনমূলক ইতিহাসের অনুপ্রবেশ ঘটাতে শীঘ্রই টেক্সট বইগুলোর সংশোধন ও পুনর্লিখন করা হবে বলে ব্যাপকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। কট্টর ডানপন্থী হিন্দু জাতীয়তাবাদী বাড়ামির সঙ্গে মিল রেখে স্কুল বইগুলো নতুন করে লেখানোর জন্য সরকারের ওপর চাপ দেয়ার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ভারতীয় ইতিহাস কংগ্রেসের প্রস্তাবে বলা হয়, সত্যিকারের ইতিহাসবিদরা তাদের পেশাগত মূল্যবোধ সমুন্নত রাখবেন এবং আমাদের অতীতের স্বার্থসম্পৃক্ত বিবৃতি প্রতিহত করবেন। ১৯৩৫ সালে প্রতিষ্ঠিত ওই কংগ্রেস ভারতীয় ইতিহাসবিদদের সবচেয়ে বড় পেশাগত ও একাডেমিক সংস্থা বলে জানা গেছে।

প্রস্তাবে বলা হয়, আইএইচসি বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে এবং কোন সাম্প্রদায়িকতা বা উগ্র মানসিকতা হতে মুক্ত থেকে ইতিহাস অধ্যয়ন করে যেতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আইএইচসির সদস্য সংখ্যা প্রায় ৯ হাজার। সুপরিচিত ইতিহাসবিদ আদিত্য মুখার্জী এনডিটিভিকে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ইতিহাস ও পৌরাণিক কাহিনীকে এক করে দেখা উচিত নয়। অনেক সমাজে মানুষের আকাশে ওড়ার, অন্যান্য অস্বাভাবিক কাজ করার কাহিনী প্রচলিত আছে, কিন্তু সেগুলোকে ইতিহাস হিসেবে ধরা হয় না।

মুখার্জী ভারতের ইতিহাসতত্ত্ব বামঘেঁষা ও পক্ষপাতদুষ্ট বলে প্রায়ই উদ্ধৃত যুক্তির জবাব দেন। তিনি বলেন, যদি সেখানে বহু ধারণা প্রচলিত থাকে, তা হলে কোন সমস্যা হওয়ার কথা নয়। বস্তুত ইতিহাসের সত্যকে যদি চ্যালেঞ্জ করা হয়, সেটা ভাল, কিন্তু আপনি কল্পনাকে ইতিহাস হিসেবে গণ্য করতে পারেন না। মুখার্জী জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের (জেএনইউ) সমাজবিজ্ঞান স্কুলের প্রধান।

রবিবার সম্মেলনের উদ্বোধন করে উপরাষ্ট্রপতি হামিদ আনসারি সতর্ক করে দেন যে, ভারতকে এক জাতির দেশ হিসেবে চিহ্নিত করা হলে সমস্যা দেখা দিতে পারে।

ক্ষমতাসীন বিজেপি দলীয় পরিবেশমন্ত্রী প্রকাশ জারদেকর কোন ধরনের বাকযুদ্ধে লিপ্ত হতে চাননি। তিনি বলেন, কোন গণতান্ত্রিক দেশে লোকজন তাদের মতামত প্রকাশ করতে পারে। কিন্তু ইতিহাস ইতিহাসই এবং তা পরিবর্তন করা যেতে পারে না। কিন্তু বিজেপির মুখপাত্র কমল সন্দেশের নির্বাহী সম্পাদক শিব শক্তি বকশি আইএইচসির নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। জেএনইউ থেকে পিএইচডি করা বকশি বলেন, ইতিহাস লেখার ক্ষেত্রে এক অসহিষ্ণু মার্ক্সবাদী দৃষ্টিভঙ্গি গ্রহণের জন্য পরিচিত এক দল ইতিহাসবিদ ইতিহাস ছিনতাই করে নিয়েছেন।

বিজেপির মুখপাত্র স্বানাক্ষী লেখি বলেন, ইতিহাস সংশোধন প্লাস্টিক সার্জারি নয, বরং কেবল সত্যকেই বিকৃত করেনি বাস্তবতার প্রতিও অশ্রদ্ধা দেখিয়েছে এমন এক ব্রেন টিউমার দূর করার সার্জারি বিশেষ।

প্রকাশিত : ২ জানুয়ারী ২০১৫

০২/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: