রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

সিরাজ মাস্টারের নির্দেশে রাজাকাররা অনেক লোককে হত্যা করে

প্রকাশিত : ১ জানুয়ারী ২০১৫
  • যুদ্ধাপরাধী বিচার
  • সাক্ষী আলতাফের জবানবন্দী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে অভিযুক্ত বাগেরহাটের তিন রাজাকারের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের দশম সাক্ষী মোঃ আলতাফ হোসেন কোটাল জবানবন্দী প্রদান করেছেন। জবানবন্দীতে তিনি বলেছেন, সিরাজ মাস্টারের নির্দেশে রাজাকাররা হাটের একটি গামছার দোকান থেকে গামছা নিয়ে অনেক লোককে জোড়া জোড়া করে বেঁধে ফেলে। এর পর আসামি বাঁশিতে ফুঁ দিলে রাজাকাররা গুলি করে তাদের হত্যা করে। বাজারের মসজিদে আত্মগোপন অবস্থায় এগুলো দেখেছি। জবানবন্দী শেষে সাক্ষীকে জেরা করেন আসামিপক্ষের আইনজীবী। পরবর্তী সাক্ষীর জন্য ১১ জানুয়ারি পরবর্তী দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। অন্যদিকে ব্রিটিশ সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যানকে আদালত অবমাননার দায়ে জরিমানা ও এজলাস কক্ষে দাঁড়িয়ে থাকার রায় বিষয়ে ৫০ নাগরিকের যে বিবৃতি পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছিল সেই কপি জমা দিয়েছে প্রথম আলো। এর পর ট্রাইব্যুনাল এক আদেশে এ্যাডভোকেট শাহদীন মালিকসহ আরও দুজনকে বিবৃতিদানকারী ৫০ জনের নাম ও যোগাযোগের ঠিকানা ১৪ জানুযারির মধ্যে ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রারের কাছে জমা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। পরবর্তী আদেশ ১৪ জানুয়ারি দেয়া হবে।

সাবেক জামায়াত নেতা বর্তমান জাপা নেতা সাখাওয়াত হোসেনের বিরুদ্ধে অগ্রগতি প্রতিবেদন ১ ফেব্রুয়ারি দাখিল করার নির্দেশ দিয়েছে ট্রাইব্যুনাল। একই সঙ্গে তাকে অধিকতর জেরার জন্য প্রসিকিউশনের আবেদন মঞ্জুর করেছে আদালত। বুধবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ ও ২ এ আদেশগুলো প্রদান করে। এদিকে জামায়াতে ইসলামীর মৃত্যুদ-প্রাপ্ত নেতা এটিএম আজহারুল ইসলামের রায়ের দিন আইনজীবী তাজুল ইসলাম সাক্ষী ও তথ্য-উপাত্ত সম্পর্কে কটূক্তি করায় তাঁর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

বাগেরহাটের তিন রাজাকারের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের দশম সাক্ষী মোঃ আলতাফ হোসেন কোটাল জবানবন্দী প্রদান করেছেন। পরবর্তী সাক্ষীর জন্য ১১ জানুয়ারি দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। চেযারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এ আদেশ প্রদান করেছেন। ট্রাইব্যুনালে অন্য দুই সদস্য ছিলেন বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি আনোয়ারুল হক। সাক্ষীকে জবানবন্দীর সময় সহায়তা করেন প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

সাক্ষী তাঁর জবানবন্দীতে বলেন, আমার নাম মোঃ আলতাফ হোসেন কোটাল। আমার বর্তমান বয়স আনুমানিক ৫৬ বছর। আমার ঠিকানা গ্রাম- পিংগুলিয়া, থানা- কচুয়া, জেলা- বাগেরহাট। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় আমার বয়স আনুমানিক ১৫-১৬ বছর ছিল। ১৯৭১ সালের বাংলা কার্তিক মাসের ১৮ তারিখ শুক্রবার ছিল। ওই দিন বিকেল আনুমানিক সাড়ে তিনটায় আমি শাখারীকাঠি বাজারে কেনাকাটার জন্য যাই। কিছুক্ষণ পর আমি দেখি যেÑ দৈবজ্ঞহাটি রাকার ক্যাম্প হতে আসামি সিরাজ মাস্টারের নেতৃত্বে ২৫-৩০ জন রাজাকারের একটি দল অস্ত্রসহ শাখারীকাঠি বাজারে আসে। ওই রাজাকারদের দেখে বাজারে উপস্থিত লোকজন এদিক-সেদিক ছোটাছুটি শুরু করে। লোকজনের ছোটাছুটি দেখে রাজাকাররা তাদের ছোটাছুটি করতে নিষেধ করে এবং বলে যে, বাজারে মুক্তিযোদ্ধারা এসেছে তাদের ধরা হবে। রাজাকারদের মধ্যে আমি আসামি লতিফ তালুকদার, ফজলু তালুকদার, বাবর আলী তালুকদার, আতাহার আলী মোল্লা, মজিবুর রহমান মোল্লাকে চিনতে পারি।

ওই রাজাকাররা হাটের একটি গামছার দোকান হতে গামছা নিয়ে এসে বাজারে আসা লোকজনের অনেককে জোড়া জোড়া করে হাত বেঁধে ফেলে। ওই বাজারের পাশ্চিম পাশে একটি খাল আছে। রাজাকাররা আটককৃতদের ওই খালের পাশে উত্তর-দক্ষিণ মুখোমুখি করে মাটিতে বসায়। আমি সে সময় বাজারে একটি মসজিদে আত্মগোপন করি। সেখান থেকে ঘটনা দেখতে পাই। মসজিদে নিমাইসহ আরও দুই-তিনজন আশ্রয় নিয়েছিল। এর পরে আমি দেখতে পাই যে, আসামি সিরাজ মাস্টার বাঁশিতে হুইসেল দেয়। তখন রাজাকাররা আকটকৃতদের ওপর গুলি চালায়। রাজাকাররা ঘটনাস্থল থেকে চলে গেলে গুলিবিদ্ধ লাশগুলো পড়ে থাকতে দেখি। পরদিন সকালে রাজাকাররা আবার আসে। লাশগুলো নৌকাযোগে নিয়ে রামচন্দ্রপুরে একটি খালে তাদের মাটিচাপা দেয়া হয়। ট্রাইব্যুনালের কাঠগড়ায় তিন আসামি সিরাজুল হক ওরফে সিরাজ মাস্টার, আব্দুল লতিফ তালুকদার ও খান আকরাম হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

প্রথম আলোর কপি জমা দিয়েছে ॥

ব্রিটিশ সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যানকে আদালত অবমাননার দায়ে জরিমানা ও এজলাস কক্ষে দাঁড়িয়ে থাকার রায় বিষয়ে ৫০ নাগরিকের যে বিবৃতি পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছিল, সেই কপি জমা দিয়েছে প্রথম আলো। এ্যাডভোকেট শাহদীন মালিক ও লেখক হানা সামস আহম্মেদকে বিবৃতিদানকারী ৫০ জনের নাম ও যোগাযোগের ঠিকানা ১৪ জানুয়ারির মধ্যে ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রারের কাছে জমা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। পরবর্তী আদেশ ১৪ জানুয়ারি দেয়া হবে। চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান শাহীনের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল এ আদেশ প্রদান করেছেন।

সাখাওয়াত হোসেন ॥ একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আটক যশোর-৬ আসনের জামায়াতের সাবেক সংসদ সদস্য ও বর্তমানে জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা সাখাওয়াত হোসেনকে সেফহোমে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দিয়েছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। সেই সঙ্গে এ মামলার তদন্তের পরবর্তী অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বুধবার ট্রাইব্যুনাল-১ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল এ নির্দেশ দেন।

আদালত অবমাননার অভিযোগ ॥ জামায়াতের আইনজীবী এ্যাডভোকেট তাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগে আবেদন করবে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউশন। তাজুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ হলো তিনি জামায়াত নেতা আজহারের বিরুদ্ধে ট্রাইব্যুনালের দেয়া রায় নিয়ে বিতর্কিত বক্তব্য দিয়েছেন এবং আইনজীবীসুলভ আচরণ করেননি। বুধবার প্রসিকিউটর জেয়াদ আল মালুম এক ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন।

প্রকাশিত : ১ জানুয়ারী ২০১৫

০১/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: