কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

থানায় নিরাপত্তা চাইলেন খালেদা

প্রকাশিত : ১ জানুয়ারী ২০১৫

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ দেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী তিনি আবার বিরোধীদলীয় নেতাও ছিলেন। এখন রাষ্ট্রীয় পদগুলো না থাকলেও তাঁর সামান্যতম নিরাপত্তার অভাব নেই। আছে দলের বিশাল কর্মী বাহিনী। সামরিক বাহিনীর সাবেক কর্মকর্তাদের নিয়ে গড়া আছে নিজস্ব নিরাপত্তা বাহিনী। এরপরও তিনি বছরের শেষ দিন নিরাপত্তা চেয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি করে ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়েছেন।

বুধবার বিকেলে বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার পক্ষে তাঁর আইনজীবীরা নিরাপত্তা চেয়ে চকবাজার থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে গিয়েছিলেন। পুলিশ অবশ্য ডায়েরিটি নথিভুক্ত না করে সিদ্ধান্তের জন্য রেখে দিয়েছে। যে মুহূর্তে বিএনপি সরকার পতনের আন্দোলনের হুঙ্কার দিচ্ছে ঠিক তখন এই ঘটনা বিএনপির নেতাকর্মীর মন ভেঙ্গে দিয়েছে। নেত্রী নিজেই নিরাপত্তাহীনতায় ভুগলে দেশের এত নেতাকর্মীকে নিরাপত্তা দেবেন কিভাবে। আর তাঁরা কার ভরসাতেইবা মাঠে নামবেন। যার জন্য জীবন দিতে চান তিনি নিজের জীবন নিয়েইত শংকিত। বড় ভয় যদি কিছু হয়।

সম্প্রতি আদালতে হাজিরা দিতে যাওয়ার সময়ে বকশীবাজার সংঘর্ষের পর আইনজীবীর মাধ্যমে পুলিশী নিরাপত্তার আবেদন চাইলেন বেগম খালেদা জিয়া। বিএনপি চেয়ারপার্সন আদালতে হাজির হচ্ছেন এমন খবরে নেত্রীকে ঘিরে ছাত্রদলের নেতৃত্বে আদালত পাড়ায় মহড়া শুরু হয়। মূল উদ্দেশ্য ছিল হট্টগোল করে বিচার কাজকে বিঘিœত করা। সেটাতে শতভাগ সফলও হয়েছে তারা। আদালত পাড়া থেকে ভিড় সরিয়ে বিএনপি নেত্রীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চাইলে ওইদিন বিবাদ হয় পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের।

এ্যাডভোকেট জাকির হোসেন বুধবার দুপুরে এ বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়েরির আবেদন নিয়ে রাজধানীর চকবাজার থানায় যান। এ্যাডভোকেট জাকির হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, ‘গত ২৪ ডিসেম্বর খালেদা জিয়া দুদকের মামলায় হাজিরা দিতে বকশীবাজারে আদালতে যাওয়ার সময় ওই এলাকায় হামলা হয়। আগামী ৭ জানুয়ারি আবার শুনানির দিন আছে। আমরা নিরাপত্তার কারণে থানায় জিডির আবেদন করেছি।’ বুধবার রাতে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানা জিডি নথিভুক্ত করেনি বলে চকবাজার থানার এসআই জালাল উদ্দিন জানান।

গত ২৪ ডিসেম্বর বিএনপি ও সরকারদলীয় সংঘর্ষের মধ্যেই বকশীবাজারে আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ আদালতের অস্থায়ী এজলাসে হাজির হন বেগম খালেদা জিয়া। তার বিরুদ্ধে দুদকের করা জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট ও জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার শুনানি চলছে আদালতে। বেগম খালেদার সময়ের আবেদন মঞ্জুর করে মামলার শুনানি ৭ জানুয়ারি পর্যন্ত পিছিয়ে দেন আদালতের বিচারক আবু আহমেদ জমাদার। আগামী ৭ জানুয়ারিতে আদালতে পরবর্তী হাজিরার দিন বেগম খালেদা জিয়ার।

চকবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিজুল হক বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার পক্ষে একটি আবেদন করেছেন তার আইনজীবী। আবেদনটি রেখে দেয়া হয়েছে। উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে এ বিষয়ে পরবর্তী ব্যবস্থা নেবেন। আবেদনটি সাধারণ ডায়েরি হিসেবে নথিভুক্ত করা হয়নি বলে জানান চকবাজার থানার ওসি।

গত ২৪ ডিসেম্বরে বকশীবাজারে সংঘর্ষ ও এমপির ওপর হামলার ঘটনায় চকবাজার এবং শাহবাগ থানায় দুটি মামলা করেছে পুলিশ। যাতে বিএনপির দেড় শতাধিক নেতাকর্মীদের আসামি করা হয়েছে। এর মধ্যে শাহবাগের মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এবং চকবাজারের মামলায় যুবদল সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলালকে ইতোমধ্যে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অপর আসামিদের গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত আছে।

প্রকাশিত : ১ জানুয়ারী ২০১৫

০১/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: