কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

নীলফামারীতে ১৭৮ আনন্দ স্কুলের টাকা হরিলুট

প্রকাশিত : ১ জানুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী থেকে ॥ রিচিং আউট অব স্কুল চিলড্রেন (রস্ক) শীর্ষক আনন্দ স্কুল প্রকল্পের নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার ১৭৮ বিদ্যালয়ের বরাদ্দকৃত ৬৮ লাখ ৮৩ হাজার ২০০ টাকা বিতরণের নামে হরিলুটের অভিযোগ উঠেছে। এসব টাকা শিক্ষার্থীদের ৬ মাসের বকেয়া উপবৃত্তি, স্কুল ঘরভাড়া, শিক্ষকদের বেতন এবং সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নেয়া শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের যাতায়াত খরচের জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়েছিল। এর মধ্যে শিক্ষকদের বেতন ও বিদ্যালয়ের ঘর ভাড়া বাবদ ২৪ লাখ ২০ হাজার ৮০০ টাকা ও উপবৃত্তির ৪৪ লাখ ৬২ হাজার ৪০০ টাকা। অভিযোগ মতে গত ১৮ ডিসেম্বর থেকে ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত এসব টাকা বিতরণ দেখা হলেও সুবিধাভোগীরা এর কানাকড়িও হাতে পায়নি। আর এ সব অর্থ সম্পূর্ণরূপে হরিলুটের সঙ্গে জড়িত অভিযোগ উপজেলা শিক্ষা অফিসার মহম্মদ শাহজাহান, রিচিং আউট অব স্কুল চিলড্রেন (রস্ক) এর জলঢাকার দায়িত্বে থাকা ট্রেনিং কো-অডিনেটর শরিফুল আজাদ ও জলঢাকা সোনালী ব্যাংক শাখার সেকেন্ড অফিসার আশফাকুর রহমানের বিরুদ্ধে। এ ঘটনা ফাঁস হয়ে পড়ায় এলাকায় রিতিমতো তোলপাড় শুরু হয়েছে। পাশাপাশি ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। এ ব্যাপারে জলঢাকা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মহম্মদ শাহজানের সঙ্গে কথা বলা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি এ বিষয়ে কিছুই জানি না। কারণ শিক্ষকদের বেতন ও শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা বিতরণের দায়িত্ব ট্রেনিং কো-অডিনেটর শরিফুল আজাদ। তার স্বাক্ষরে সোনালী ব্যাংকের মাধ্যমে টাকা উত্তোলনের পর ব্যাংক কর্মকর্তাদের সঙ্গে তিনি টাকা বিতরণ করেন। বিষয়টি তিনি ভাল বলতে পারবেন। প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার হিসেবে তার সব বিষয়ে দেখা শোনার দায়িত্ব কর্তব্য থাকার পরও কিছুই জানেন না কেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, শুনেছি অনিয়ম হয়েছে এর বেশি কিছু জানি না। এদিকে রিচিং আউট অব স্কুল চিলড্রেন (রস্ক) শীর্ষক আনন্দ স্কুলের শিক্ষকদের বেতন ও শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদানের দায়িত্বে থাকা ট্রেনিং কো-অডিনেটর শরিফুল আজাদের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি। এমন কি তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। জলঢাকার একাধিক ব্যক্তি জানান, এ ঘটনার পর তিনি গা-ঢাকা দিয়েছেন। এ ব্যাপারে সোনালী ব্যাংক জলঢাকা শাখার সেকেন্ড অফিসার আশফাকুর রহমানের সঙ্গে কথা বলা হলে তিনি জানান, রিচিং আউট অব স্কুল চিলড্রেন (রস্ক) এর ১৭৯টি আনন্দ স্কুলের ২ হাজার ৭৮৯ শিক্ষার্থীদের ৬ মাসের বকেয়া উপবৃত্তি, স্কুল ঘরভাড়া, শিক্ষকদের বেতন এবং সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নেয়া শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের যাতায়াত খরচের জন্য সর্বমোট ৬৮ লাখ ৮৩ হাজার ২০০ টাকা বরাদ্দ আসে। যা এর মধ্যে শিক্ষকদের বেতন ও বিদ্যালয়ের ঘর ভাড়া বাবদ ২৪ লাখ ২০ হাজার ৮০০ টাকা ও উপবৃত্তির ৪৪ লাখ ৬২ হাজার ৪০০ টাকা। যা এই সব স্কুলের ট্রেনিং কো-অডিনেটর শরিফুল আজাদের স্বাক্ষরে টাকা উত্তোলনের পর ১৮ ডিসেম্বর থেকে ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে তার উপস্থিতিতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণ করা হয়। এর মধ্যে ৪০২ শিক্ষার্থী সমাপনী পরীক্ষায় অংশ না নেয়ায় তাদের প্রায় ৪ লাখ টাকা ফেরত দেয়া হয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কোন অনিয়ম বা দুর্নীতি করা হয়নি। টাকা বিতরণের সকল কাগজপত্র প্রমাণ হিসেবে রাখা হয়েছে। এ ব্যাপারে জলঢাকা বাবুপাড়া আনন্দ স্কুলের শিক্ষার্থী রহিমা জানায়, আমি ও আমার বোন ফাতেমা একই সঙ্গে এবার প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় পাস করেছি। আমরা রিচিং আউট অব স্কুল চিলড্রেন (রস্ক) প্রকল্পে দ্বিতীয় শ্রেণীতে থাকা অবস্থায় মাত্র দুই দফায় ৩০০ টাকা করে ৬০০ টাকা পেয়েছিলাম। এরপর আর কোন উপবৃত্তির টাকা আমাদের দেয়া হয়নি। শুনেছিলাম কয়েকদিন আগে উপবৃত্তিসহ সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নেয়ার জন্য এক সঙ্গে অনেক টাকা দেবে।

প্রকাশিত : ১ জানুয়ারী ২০১৫

০১/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: