মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

বৃষ্টির দাপটে ড্র হলো পোর্ট এলিজাবেথ টেস্ট

প্রকাশিত : ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বৃষ্টির দাপটে ড্র হলো পোর্ট এলিজাবেথ টেস্ট। ঘুরিয়ে বললেÑ বৃষ্টি বাঁচিয়ে দিল সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজকে! খেলা হয়েছে মোট ২০১ ওভার; অর্থাৎ দিনের হিসেবে আড়াই দিনেরও কম সময়। এক ইনিংস করে খেলতে পেরেছে দুই দল। তাতেই নাম্বার ওয়ান দক্ষিণ আফ্রিকানদের দাপটে কোণঠাসা হয়ে পড়েছিল অতিথি ক্যারিবীয়রা। প্রথম ইনিংসে প্রোটিয়াদের ডিক্লেয়ার করা ৮ উইকেটে ৪১৭ রানের জবাবে ২৭৫ রানেই ৯ উইকেট হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সেটি সোমবার চতুর্থ দিন মধ্য পথের ঘটনা। মঙ্গলবার শেষ দিনে আর একটি বলও মাঠে গড়ায়নি। তাতে হয়ত হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছে দিনেশ রামদিনের দল। যদিও সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে ম্যাচসেরার পুরস্কার পকেটে পুরেছেন ওপেনার কর্ক ব্রেথওয়েট। ইতোমধ্যে তিন টেস্টের সিরিজে ১-০তে পিছিয়ে তারা। কেপটাউনে শেষ ম্যাচ শুরু ৬ জানুয়ারি, সিরিজ খোয়াতে না চাইলে যেখানে জিততেই হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে।

দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনে খেলা হয় ৮৮ ওভার, দ্বিতীয় দিনে ৬ ওভার, তৃতীয় দিনে ৭২ ও চতুর্থ দিনে ৩৫ ওভার! পোর্ট এলিজাবেথে বৃষ্টি কী খেলাটা খেলেছে সংক্ষিপ্ত এ চিত্রেই তা পরিষ্কার! আকর্ষণ বলতে এর মধ্য দিয়ে সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন দুই দলের চার ব্যাটসম্যান। প্রথমে দক্ষিণ আফ্রিকার ডিন এলগার, ফ্যাফ ডুপ্লেসিস, এরপর ওয়েস্ট ইন্ডিজের কার্ক ব্রেথওয়েট ও মারলন স্যামুয়েলস। প্রোটিয়াদের চ্যালেঞ্জের বিপরীতে ব্যাট হাতে সেঞ্চুরি করেছেন দুই ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যান ক্রেইগ ব্রেথওয়েট (১০৬) ও মারলন স্যামুয়েলস (১০১)। ব্রেথওয়েটের তৃতীয় ও তারকা স্যামুয়েলসের ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ সেঞ্চুরি এটি। ফলে সোমবার চতুর্থ দিন একপর্যায়ে ২ উইকেটে ১৪৭ রান নিয়ে চতুর্থ দিন শুরু করা ওয়েস্ট ইন্ডিজ ওই দুই উইকেটেই ২৩১ রান করে ফেলেছিল। কিন্তু প্রোটিয়া বোলারদের দারুণ বোলিংয়ে আচমকাই খেই হারায় অতিথিদের ব্যাটিং, ৪৪ রানের মধ্যেই আউট হন সাত ব্যাটসম্যান! ২৭৫-এ নবম উইকেট। ডেভন স্মিথ তৃতীয় সর্বোচ্চ ২২ ও ২০ রান করে সাজঘরে ফেরেন অধিনায়ক রামদিন। দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে পেসার মরনে মরকেল ৪ ও স্পিনার ইমরান তাহির নেন ৩টি করে উইকেট।

আর প্রথম ইনিংসে স্বাগতিকদের চার শতাধিক রানের বড় সংগ্রহের রূপকার দুই সেঞ্চুরিয়ান ডিন এলগার (১২১) ও ফ্যাফ ডুপ্লেসিস (১০৩)। প্রথম দিনেই সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন ওপেনার ডিন এলগার। ১৪তম টেস্টে ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরি তার। ২৩৯ বলে ১২১ রানের ইনিংসটি ছিল ১৮টি দৃষ্টিনন্দন চার দিয়ে সাজানো। ২৩০ বলে ১৩ চার ও ২ ছক্কায় ১০৩ রান করে আউট হন ডুপ্লেসিস। এটি তাঁর ক্যারিয়ারের চতুর্থ সেঞ্চুরি। এছাড়া নয় নম্বরে নেমে ডেল স্টেইনের টি২০ মেজাজে ২৮ বলে ৫৮ রান ছিল বিনোদনময়ী। ৬টি চার ও ৫টি ছক্কা মারেন তিনি! ২৬ বলে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন স্টেইন, যা টেস্ট ইতিহাসের চতুর্থ দ্রুততম হাফসেঞ্চুরির রেকর্ড। ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে ২টি করে উইকেট নেন জেরমো টেইলর, কেনরি পিটার্স ও শ্যানন গ্যাব্রিয়েল।

স্কোর ॥ দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম ইনিংসÑ ৪১৭/৮ ডিক্লে. (১২২ ওভার; এলগার ১২১, ডুপ্লেসিস ১০৩, স্টেইন ৫৮, আমলা ৩৩; টেইলর ২/১১৪, পিটার্স ২/৬৯, গ্যাব্রিয়েল ২/৮০)।

ওয়েস্ট ইন্ডিজÑ ২৭৫/৯ (৭৯ ওভার; ব্রেথওয়েট ১০৬, স্যামুয়েলস ১০১, রামদিন ২০, স্মিথ ২২; মরকেল ৪/৬৯, তাহির ৩/১০৮)।

ফল ॥ ড্র।

ম্যাচসেরা ॥ ব্রেথওয়েট (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)।

সিরিজ ॥ তিন টেস্টের সিরিজে ১-০তে এগিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা।

প্রকাশিত : ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪

৩১/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: