কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

নিশ্চিত হলো টোরেসের ‘ঘরে’ ফেরা

প্রকাশিত : ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অবশেষে নিশ্চিত হলো। প্রিয় ক্লাব এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদেই ফিরছেন স্প্যানিশ স্ট্রাইকার ফার্নান্ডো টোরেস। এর ফলে প্রায় আট বছর পর ঘরের ক্লাব এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে ফিরছেন ৩০ বছর বয়সী এই তারকা ফুটবলার। এসি মিলানে ধারে খেলা ফার্নান্ডো টোরেসকে স্প্যানিস জায়ান্টরা নিজেদের দলে চুক্তিবদ্ধ করার বিষয়টি সোমবার নিশ্চিত করেছে বলে নিজেদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে জানিয়েছে। এ বিষয়ে লা লিগার বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ক্লাবটি নিজেদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে উল্লেখ করে, ‘মিলানের সঙ্গে আমাদের ক্লাব একটি চুক্তিতে পৌঁছেছে। আর এই চুক্তির ফলেই ফার্নান্ডো টোরেস আবারও এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে ফিরেছে। মৌসুমের বাকি থাকা সময়টা এমনকি পরের মৌসুমও এখানেই খেলবে সে।’ শুধু তাই নয় তাদের বিশ্বাস টোরেস আবারও তার সেরা ফর্মে ফিরবে। এ বিষয়ে তারা লেখে, ‘আগামী ৫ জানুয়ারি টোরেসের মেডিক্যাল পরীক্ষা হবে। সে আগে যেখানে খেলেছে, অনুশীলন করেছে এখানে আবার খেলবে সে। সে আবারও আমাদের সেরা তারকা হবে।’

স্প্যানিশ ফুটবলার ফার্নান্ডো টোরেস এর আগে ২০০১ সাল থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত লা লিগার অন্যতম সেরা ক্লাব এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের জার্সিতে খেলেছেন। এই ক্লাবের হয়ে ২১৪ ম্যাচ খেলেছেন তিনি। আর এই সময়ের মধ্যে প্রতিপক্ষের জালে ৮২ বার বল জড়িয়েছেন। এরপর স্প্যানিশ ক্লাবটি ছেড়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের সেরা ক্লাব লিভারপুলে নতুন করে ঠিকানা গড়েন তিনি। সাবেক ক্লাব লিভারপুলের হয়ে টোরেস ১০২ ম্যাচ খেলেন। এরপর ২০১১ সালে স্পেনের এই তারকা ফুটবলার ইংলিশ প্রিমিয়ারে লীগের আরেক ফেবারিট দল চেলসিতে নাম লেখান। চেলসির হয়ে ১১০ ম্যাচ খেলা টোরেস এরপর এসি মিলানে ধারে খেলতে যান। তবে, নতুন বছরে এসি মিলানে নয়, টোরেসকে দেখা যাবে পুরনো ক্লাব এ্যাটলেটিকোতে। এ বিষয়ে ৩০ বছর বয়সী স্প্যানিশ এই তারকা ফুটবলার বলেন, ‘অবশেষে আমি ঘরে ফিরলাম। সবাইকে ধন্যবাদ আমার স্বপ্ন পূরণে সাহায্যে করার জন্য।’ ইংলিশ ক্লাব লিভারপুল থেকে রেকর্ড ৫০ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিময়ে চেলসিতে যোগ দিয়েছিলেন। কিন্তু স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে যেন কখনই নিজেকে খোঁজে পাননি এই স্প্যানিয়ার্ড। ব্লুজদের হয়ে ১১০ ম্যাচ খেলে গোল পেয়েছেন মাত্র ২০টি। তাই স্প্যানিশ ফুটবলের প-িত বালেগু মনে করেন এই মুহূর্তে টোরেসের প্রয়োজন ফুটবলকে ভালবেসে আপন করে নেয়া। এ বিষয়ে তার অভিমত হলো, ‘আমি মনে করি টোরেসের প্রয়োজন নিজেকে নতুন করে আবিষ্কার করা। ফুটবলকে ভালবাসা। তার জন্য এটাই এখন গুরুত্বপূর্ণ। আমার যত দূর মনে পড়ে লিভারপুলে তার পারফর্মেন্স ছিল দুর্দান্ত। কিন্তু চেলসিতে আমরা যেন ভিন্ন টোরেসকে দেখতে পাই। সাবেক কোচ রাফায়েল বেনিতেজের অধীনে তার রেকর্ড ঠিক ছিল। কিন্তু টোরেসকে নিয়ে জোশে মরিনহোর কোন পরিকল্পনাই ছিল না।’ তবে চেলসি কিংবা মিলানের পরিকল্পনা না থাকলেও টোরেসকে নিয়ে এখন এ্যাটলেটিকোর পরিকল্পনা অনেক এটা নিশ্চিত করেই বলা যায়। টোরেস নিজেও স্বীকার করেছেন মাদ্রিদে তার যে ভালবাসা সেটা লিভারপুল আর চেলসি কিংবা মিলানে কখনই পাননি। তাই সেই ভালবাসার জায়গা থেকেই নিজের সেরা ফর্মে ফিরবেন এই স্প্যানিয়ার্ড।

প্রকাশিত : ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪

৩১/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: