আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ঘুরে দাঁড়ানোর চ্যালেঞ্জ ক্যারিবীয়দের

প্রকাশিত : ২৬ ডিসেম্বর ২০১৪
  • পোর্ট এলিজাবেথে দ্বিতীয় টেস্ট জিতলেই সিরিজ দক্ষিণ আফ্রিকার

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সিরিজের প্রথম টেস্টেই নির্মম পরাজয় বরণ করেছে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ক্যারিবীয়দের নিয়ে ছেলেখেলায় মেতে তাদের ইনিংস ও ২২০ রানে হারিয়েছে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা। ‘বক্সিং ডে’ টেস্টে এবার পোর্ট এলিজাবেথে মুখোমুখি হচ্ছে উভয় দল। কোণঠাসা ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য ন্যূনতম ড্র প্রয়োজন তিন টেস্টের সিরিজে নিজেদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার জন্য। হারলেই এক ম্যাচ বাকি রেখে সিরিজ জয় করবে প্রোটিয়া শিবির। ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা বেশ ফুরফুরে মেজাজেই নামবে দ্বিতীয় টেস্টে। বাংলাদেশ সময় দুপুর আড়াইটার সময় ম্যাচটি শুরু হবে।

এক তরফা লড়াইয়ে অসহায় আত্মসমর্পণ করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম টেস্টে। প্রোটিয়া পেসারদের সামনে সামান্যতম প্রতিরোধ গড়তে পারেনি ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যানরা। দ্বিতীয় টেস্টেও নিশ্চিতভাবে তারাই ফেবারিট হিসেবে নামবে। পোর্ট এলিজাবেথের উইকেটে দক্ষিণ আফ্রিকার অন্যান্য ভেন্যুর তুলনায় গতিটা কিছু কম উঠলেও সিমাররা বলে বেশ সুইং পেয়ে থাকেন। আর সাত ব্যাটসম্যান ও চারজন স্পেশালিস্ট পেসার নিয়ে একাদশ সাজানোর পরিকল্পনাটা ফলপ্রসূ হওয়ায় এবারও সেভাবেই নামবে প্রোটিয়া শিবির। এই মাঠে ৭ বছর আগে সর্বশেষবার জিততে পেরেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সে ম্যাচে বর্তমান স্কোয়াডের তিন ক্রিকেটার উল্লেখযোগ্য ভূমিকাও রেখেছিলেন। অভিজ্ঞ শিবনারায়ণ চন্দরপল ১০৪ ও মারলন স্যামুয়েলস ৯৪ রানের দুটি ইনিংস খেলেছিলেন প্রথম ইনিংসেই দলকে বড় একটি সংগ্রহ পাইয়ে দেয়ার ক্ষেত্রে। আর পেসার জেরেমি টেইলর ম্যাচে ১১২ রান দিয়ে নিয়েছিলেন ৬ উইকেট। তবে প্রথম টেস্টে যতটা বিপর্যস্ত ছিল ক্যারিবীয়রা সেটা আর এবার থাকবে না বলেই প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন চন্দরপল। কারণ ২০০৭ সালের সে জয়টা বাড়তি অনুপ্রেরণা জোগাচ্ছে এবার। এ বিষয়ে বর্ষীয়ান এ টেস্ট ক্রিকেটার বলেন, ‘আমরা জানি সেঞ্চুরিয়নে যা ঘটেছে তারচেয়ে আমাদের দলটা অনেক ভাল। তবে বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা বোলিং আক্রমণের বিরুদ্ধে ভাল করাটা বেশ চ্যালেঞ্জিং।’ এবার সিরিজেও নিশ্চিতভাবে ক্যারিবীয় দলের অন্যতম ভরসা চন্দরপল আর স্যামুয়েলস। কিন্তু দু’জনই প্রথম টেস্টে ব্যর্থ হয়েছেন। আর প্রথম টেস্টে ইনজুরিতে পড়া অন্যতম পেসার কেমার রোচের পরিবর্তে এবার দেখা যেতে পারে শ্যানন গ্যাব্রিয়েলকে।

অপরদিকে, প্রথম টেস্টে জয়ের পর এবার নতুন এক ক্রিকেটারকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আনছে প্রোটিয়ারা। ২৪ বছর বয়সী টেমবা বাভুমা দেশের ষষ্ঠ কৃষ্ণাঙ্গ ক্রিকেটার হিসেবে অভিষেকের অপেক্ষায় আছেন। তবে আগের পাঁচজনই ছিলেন স্পেশালিস্ট বোলার। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ স্পেশালিস্ট ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্ট অভিষেক হতে পারে বাভুমার। আর ইনজুরিতে পড়া রবিন পিটারসনের পরিবর্তে দলে জায়গা করে নিতে পারেন ইমরান তাহির। উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান কুইন্টন ডি কক ইনজুরিতে পড়ার পর প্রথম টেস্টে এবি ডি ভিলিয়ার্স দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনিই দ্বিতীয় টেস্টে উইকেটের পেছনে থাকবেন। যদিও পোর্ট এলিজাবেথের উইকেট কিছুটা ধীর প্রকৃতির তবু গতির তোপে প্রতিপক্ষকে নাজেহালের ঘোষণা দিয়েছেন অভিজ্ঞ পেসার ডেল স্টেইন। সেঞ্চুরিয়নে প্রথম ইনিংসে উইকেটশূন্য থাকলেও দ্বিতীয় ইনিংসে ৬ উইকেট নিয়েছিলেন এ পেসার। আর উচ্চতা কিছুটা কম থাকায় এমন উইকেটে তিনিই সবচেয়ে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারেন।

রুনির অভিনন্দন কোচ ভ্যান গালকে

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ দলীয় কোচ লুইস ভ্যান গালকে ‘ধন্যবাদ’ জানিয়েছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড অধিনায়ক ওয়েন রুনি। বড়দিনের ছুটি দেয়ার কারণেই কোচের প্রতি নিজের কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন ইংলিশ তারকা।

ছুটি পাওয়ায় পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে পেরেছেন রুনি। পরিবারের সদস্যদের একান্ত সান্নিধ্যে উদযাপন করেছেন বড়দিনের আনন্দ। তবে বড়দিনের একদিন পরই অর্থাৎ আজই মাঠে নামতে হচ্ছে তারকা এই ফুটবলারকে। কেননা ইপিএলে আজ ‘বক্সিং ডে’ তে মাঠে নামছে তার দল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। রেড ডেভিলদের কলম্বিয়ান স্ট্রাইকার রাদামেল ফ্যালকাও একমাত্র ফুটবলার যিনি ছুটি কাটাতে নিজ দেশে যাননি। তবে রুনি মনে করেন দলের এ ছুটি দলকে আরও চাঙ্গা করবে। সাক্ষাতকারে রুনি বলেন, আমরা এবারের ক্রিসমাসে অনুশীলন করছি না। আমরা এ ছুটি পরিবারের সঙ্গে কাটাচ্ছি। এটা বিদেশী ফুটবলার ও যাদের সন্তান আছে তাদের জন্য দারুণ হয়েছে। ম্যানইউ অধিনায়ক আরও বলেন, আমি বিশ্বাস করি এ ছুটির কারণে দলের ফুটবলাররা পরবর্তী ম্যাচের জন্য নিজেদের আরও ভালভাবে প্রস্তুত করতে পারবে। কোচ ভ্যান গালের এই কাজটা দারুণ হয়েছে। তাকে অশেষ ধন্যবাদ। স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসন বিদায় নেয়ার পর থেকেই ভরাডুবি শুরু ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। তারকা এই কোচের ঘাটতি কিছুতেই পূরণ করতে পারছিল না দলটি। গত মৌসুমে নির্লজ্জ ব্যর্থতার পর এবারও শুরুটা হয় জঘন্য। তবে আশার কথা, ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে টানা ছয়টি ম্যাচ জিতে ভালমতোই নিজেদের আত্মবিশ্বাস ফিরিয়েছে রেড ডেভিলসরা। যে কারণে দলটি এখন শিরোপাস্বপ্ন বুনতে শুরু করেছে। ম্যানইউ কোচ লুইস ভ্যান গালের আশাবাদের পর অধিনায়ক ওয়েন রুনিও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বপ্নের কথা জানিয়েছেন। সাক্ষাতকারে ইউনাইটেড অধিনায়ক রুনি বলেন, আমার ধারণা এবং আমরা বিশ্বাস করি আমাদের শিরোপা জয়ের সুযোগ আছে। আমরা দশ পয়েন্ট পিছিয়ে আছি। তবে সামর্থ অনুযায়ী খেলতে পারলে ব্যবধান ঘোচানো সম্ভব এবং শিরোপাও জিততে পারি আমরা। ২৯ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড বলেন, টানা জয় আমাদের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দিয়েছে। আশা করছি এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারবে দল।

আত্মবিশ্বাসী রুনি আরও বলেন, দুই বছর আগে আমরা সর্বশেষ শিরোপা জিতেছি। এবার সবাই ট্রফি ফিরিয়ে আনতে মুখিয়ে আছে। এ জন্য আমাদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করতে হবে।

প্রকাশিত : ২৬ ডিসেম্বর ২০১৪

২৬/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: