আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

উৎসবে বড়দিন

প্রকাশিত : ২২ ডিসেম্বর ২০১৪
উৎসবে বড়দিন
  • মেহের নিগার

ক্রীসমাস খ্রিস্টান সম্প্রদায়ে সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব। সারাবিশ্বে সব দেশে একযোগে পালিত হয় এই দিন। আবার বড়দিন ও বলা হয় এদিকে। ২৫ শে ডিসেম্বর এ ধনী-দরিদ্র সবাই আড়ম্বড়ে পূর্ণ উৎসব উদযাপন করে সামর্থ অনুযায়ী। কেনা হয় নুতন জামা-কাপড়, তৈরি হয় উৎসবের আঙ্গিকে নানা ধরনের খাবার সাজানো হয় ঘর-বাড়ী। আপনজন, আত্মীয়-স্বজনদের মধ্যে ক্রীস উপলক্ষে আদান-প্রদান হয় নানা ধরনের অতি সাধারণ বা ব্যায়বহুল উপহার। তৈরি শুভেচ্ছা কার্ড অর্থাৎ ক্রীসমাস কার্ড।

ক্রীসমাস ট্রি ঃ বড়দিন প্রধান সবচেয়ে আকর্ষণীয় ক্রীসমাস ট্রি। প্রতিটি পরিবার নিজের বাড়ীতে বা বাসায় ক্রসিমাস ট্রি সাজিয়ে থাকে। গ্রামে-শহরে অনেকে গাছের ডাল কেটে তাতে নানা রং এ সাজিয়ে আকর্ষণীয় জমকালো করে তোলে উৎসবমুখর বাস-বাড়ীকে। সেই গাছের নিচে গরু, ছাগল, ভেড়া ও উটের ছোট ছোট মুর্তি দিয়ে সাজিয়ে গাছের উপর বাতি সেট করে সাজানো হয়। অনেকে কাগজ-কাপড়-বাশ-পাট কাঠি ইত্যাদিি দয়ে সৃদৃশ্য ক্রসি মাস ট্রি তৈরি করে ছোট ছোট গৃহপালিত পমুর মূর্তিি দয়ে গাছের মধ্যে চোট ছোট বাতি ও জরীর লেইস লাগিয়ে জমকালো করে তোলে। তাছাড়া ঢাকা নিউমার্কেট ও বসুন্ধরা সিটি শপিংমল দেশের সব বড় বড় শপিং মন ও মার্কেটে ক্রীসমাস ট্রি কিনতে পাওয়া যায়। সেসব ক্রিসমাস ট্রিগুলো পার্ট পার্ট খোলা যায় আবার বক্সে ভাজ করে গুছিয়ে রাখা যায়। পরের বৎসর বড়দিনে আবার বক্স থেকে খুলে পার্ট পার্ট জোড়া দিয়ে পূর্ণাঙ্গ ট্রি অতি অল্প সময়ে সাজানো যায়। তাতে গাছের নীচে গৃহপালিত পশুর মূর্তি সুন্দরভাবে সাজানো থাকে এবং গাছের বৈদ্যুতিক বাতিও তার আলাদা থাকে সাজানোর বাতি ও তার সাজিয়ে বৈদ্যুতিক সংযোগ দিলেঝলমলে আলো ছড়াতে থাকে। জমকালো পরিবেশের সৃস্টি হয়ে উৎসব আমেজ ছড়ায়। প্রত্যেকটা ট্রী ছোট বড় ক্রীসমাস ট্রি সুদৃশ্য ও জমকালো হয়। ছোট ও বড় বিভিন্ন আকারের ট্রি বিভিন্ন দামের মধ্যে পাওয়া যায়। বড়দিনে সপ্তাহ পূর্ব থেকে সাজানো শুরু হয় জানুয়ারি পর্যন্ত অনেকের ঘরে সাজানো অবস্তায় থাকে।

ড্রেস ঃ দেশের রীতি অনুযায়ী পোষাক পরা হয় এবং সন্তান, পিতা, মাতা ও আত্মীয়দের জন্যে সেরকম কেনা কাটা হয়। মেয়েদের স্কাট-টপস, সেলোয়ার কামিজ, লেহেঙ্গা, গাউন ও শাড়ি পরে। ছেলেরা শার্ট-প্যান্ট, পাজামা-পাঞ্জাবী ও স্যুট পরে থাকে। শিশুদের জন্যে জমকালো ও রঙীন ড্রেস। ঈদ-পূজা উৎসবের মত গহণা, জুতা, পারফিউম কেনাকাটার তালিকায় থাকে। বড়দিন উপলক্ষে দেশের নামকরা শো-রুম, হাউজ ও মার্কেটগুলো নানা আয়োজন করেছে। বসুন্ধরার লেবেল-৪, দুলহানসহ, ইস্টার্ন প্লাজা, নিউমার্কেট, আজিজ সুপার মার্কেটে, বাঙ্গাল, কাপড়-ই-বাংলা, লণ্ঠন, উত্তরার রাজলক্ষ্মী মার্কেট, বেলী রোড প্রায় সব মার্কেটে বড়দিন উপলক্ষে পোষাক। শান্তা ক্লজের সাদা-লাল-টুপী।

শিশু পোষাক ঃ শিশুদের জন্যে উৎসবে সামর্থ অনুযায়ী ঝলমলে। উৎসবের শিশু পোষাক জমকালো ও রঙীন হলেও শীতের আবহাওয়ায় শিশুদের পোষাক কেনার সময় সতর্ক অভিভাবক খেয়াল রেখে কেনাকাটা করে থাকেন ছেলে শিশুদের ফুল হাতা গেঞ্জি শার্ট, ফুল প্যান্ট-টাউজার সোয়েটার, জ্যাকেট ও স্যুট। মেয়ে শিশুদের জন্যে ফ্রক সোয়েটার, টি-শার্ট, ফুলপ্যান্ট ও ট্রাউজার ইত্যাদি। হুডি পোষাক শিশু উপযোগী।

প্রকাশিত : ২২ ডিসেম্বর ২০১৪

২২/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: