কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সরাইলে দু’পক্ষের সংঘর্ষ ভাংচুর ॥ ১৫ বাড়িতে আগুন, লুট

প্রকাশিত : ২২ ডিসেম্বর ২০১৪
সরাইলে দু’পক্ষের সংঘর্ষ ভাংচুর ॥ ১৫ বাড়িতে আগুন, লুট
  • লাঠিচার্জ, কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ ॥ নারী ও শিশুসহ আহত ৭

স্টাফ রিপোর্টার, বি.বাড়িয়া থেকে ॥ রবিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নারী শিশুসহ কমপক্ষে ৭০ জন আহত হয়েছে। এ সময় ৪০Ñ৪৫টি বাড়িঘর ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট এবং ১৫টি বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করা হয়। জানা যায়, গত শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার কালীর বাজারে গাড়ি সরানোকে কেন্দ্র করে কালিকচ্ছ ইউনিয়নের ট্রাক্টরচালক বাবু মিয়াকে মারধর করে পার্শ্ববর্তী এলাকার মোটরসাইকেলআরোহী ওয়ালী মিয়া। এর জের ধরে রাতেই উভয়পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ি। ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে এসময় উভয়পক্ষের ২০ জন আহত হয়। পুলিশ ব্যাপক লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। একে কেন্দ্র করে রবিবার সকাল ৮টায় উভয়পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। ৪ ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে নারী, শিশুসহ কমপক্ষে অর্ধশত আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে বাবুল মিয়া, হুমায়ুন মিয়া, মোস্তাকিম, ইদ্রিস খান, শহিদ মিয়া, জাহাঙ্গীর আলম, জিলু মিয়া, খলিল মিয়া, মোর্শেদ, জিদান মিয়া, রাব্বী মৃধা, মোঃ জাবির, রাকিব মিয়া, আলী রহমত, রতন মিয়া, রোমান মিয়া, মঞ্জু মিয়া, বাচ্চু মিয়া, কাউসার মিয়া, মঞ্জু মিয়া, ইব্রাহিম মিয়া ও আছমা বেগমকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি এবং অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। সংঘর্ষের সময় কালীকচ্ছ গ্রামের ৪০Ñ৪৫টি বাড়িঘর ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট চালায় প্রতিপক্ষের লোকজন। এছাড়া কমপক্ষে ১৫টি বাড়ি ও বেশ কয়েকটি বনের কুঞ্জে অগ্নিসংযোগ করা হয়। এদিকে সংঘর্ষের খবর পেয়ে সরাইল থানা পুলিশ, র‌্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্পের সদস্যরা এবং এপিবিএন সদস্যরা ব্যাপক লাঠিচার্জ ও কাঁদানো গ্যাস নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলী আরশাদ জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। সংঘর্ষে ৪০ রাউন্ড কাঁদানো গ্যাস ও ১৪১ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

প্রকাশিত : ২২ ডিসেম্বর ২০১৪

২২/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: