মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

রক্ষা পেলেন ফেলপস, তবে...

প্রকাশিত : ২১ ডিসেম্বর ২০১৪
রক্ষা পেলেন ফেলপস, তবে...

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ গাড়ি চালনা সংক্রান্ত অনেক অপরাধ করেছেন মাইকেল ফেলপস। অলিম্পিক ইতিহাসে সর্বাধিক ১৮ স্বর্ণজয়ী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এ তারকা সাঁতারু ক্যারিয়ার শেষ করার আগেই হয়ে গেছেন কিংবদন্তি। কিন্তু সে জন্য দেশের আইন তাঁকে রেহাই দেয়নি। মাতাল অবস্থায় গাড়ি চালানোর অপরাধে আটক হওয়ার পর ৪৫ দিনের জন্য পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে হয়েছে এবং দাঁড়াতে হয়েছে বিচারের জন্য কাঠগড়ায়। অবশ্য কারাদ- এড়াতে পেরেছেন গাড়ি চালনা সংক্রান্ত আইন ভাঙ্গা পুরনো অপরাধী ফেলপস। তবে ৬ মাসের জন্য তাঁকে সাঁতারের যে কোন আসরে অংশ নেয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন মেরিল্যান্ড জেলা আদালতের বিচারক নাথান ব্রেভারম্যান। ফেলপস অপরাধ স্বীকার করে নেয়ার কারণেই শাস্তি কম পেয়েছেন। তবু ২০১৫ বিশ্ব সাঁতার চ্যাম্পিয়নশিপসে অংশ নেয়া হবে না তাঁর। অবশ্য তাঁর আইনজীবী স্টিভেন এটর্নি জানিয়েছেন এখন শুধু ২০১৬ রিও ডি জেনিরো অলিম্পিকের জন্যই প্রস্তুতি নেবেন তিনি। গত ৩০ সেপ্টেম্বর মাতাল হয়ে গতিসীমার চেয়ে অনেক দ্রুতবেগে গাড়ি চালনার অপরাধে পুলিশ ফেলপসকে আটক করে বাল্টিমোর সাগরের তলদেশে ফোর্ট ম্যাকহেনরি টানেল থেকে। সর্বোচ্চ গতিসীমা ঘণ্টায় ৪৫ মাইল হলেও ৮৪ মাইল বেগে গাড়ি চালিয়েছেন ফেলপস। তাঁর গাড়ি থেকে বেশি পরিমাণে এ্যালকোহল উদ্ধার করে পুলিশ এবং পরবর্তীতে টেস্ট করে তাঁর রক্তে ০.১৪ শতাংশ এ্যালকোহল পাওয়া যায়। মেরিল্যান্ডের আইনে যে কোন ব্যক্তির রক্তে এ্যালকোহলের মাত্রা সর্বোচ্চ ০.০৮ শতাংশ পর্যন্ত বৈধ। এরপর তাঁর বিরুদ্ধে গতিসীমা লঙ্ঘন এবং অধিক এ্যালকোহল গ্রহণের দুটি অভিযোগে মামলা করে পুলিশ। অবশ্য ঘণ্টাখানেক পর জামিন নিয়ে টুইটারে নিজের ভুলের জন্য দোষ স্বীকার করেন ফেলপস এবং ভক্তদের কাছে ক্ষমা চান কৃতকর্মের জন্য। তবে আদালতে রাজ্য প্রসিকিউটর তাকে ১ বছরের জন্য নিষেধাজ্ঞার সাজা এবং ১৮ মাসের জন্য কড়া পর্যবেক্ষণে রাখার রায় দাবি করেন। তবে ব্রেভারম্যান বলেন, ‘মনে হচ্ছে তিনি বুঝতে পেরেছেন তাঁর এখন কি করতে হবে। তিনি দেশের বাইরে যেতে পারবেন এবং অনুশীলনও করতে পারবেন। কিন্তু তাঁকে এখন অনেক সতর্ক থাকতে হবে।’

প্রকাশিত : ২১ ডিসেম্বর ২০১৪

২১/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: