কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বখাটেদের ছোরায় এইচএসসি পরীক্ষার্থী খুন

প্রকাশিত : ২০ ডিসেম্বর ২০১৪
বখাটেদের ছোরায় এইচএসসি  পরীক্ষার্থী খুন

নিজস্ব সংবাদদাতা, সিদ্ধিরগঞ্জ, ১৯ ডিসেম্বর ॥ সিদ্ধিরগঞ্জে বখাটেদের ছুরিকাঘাতে মোহাম্মদ রুবেল (১৮) নামে এক এইচএসসি পরীক্ষার্থী নৃশংসভাবে খুন হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার দুপুর ১টায় মিজমিজি পূর্বপাড়া পাগলাবাড়ি এলাকায়। এ ঘটনায় স্থানীয় জনতা ৩ জনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

মিজমিজি পূর্বপাড়া পাগলাবাড়ির বাসিন্দা লেদু মিয়ার পুত্র ও সরকারী আদমজীনগর এমডব্লিউ কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী মোহাম্মদ রুবেল জুমার নামাজ আদায় করার জন্য মসজিদের দিকে যাচ্ছিল। এ সময় ৫/৬ বখাটে যুবক তার গতিরোধ করে বুকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। এতে রুবেল গুরুতর আহত হলে প্রতিবেশীরা তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে।

নিহতের সহপাঠীরা জানায়, গত ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে পায়ে পারা লাগার ঘটনা নিয়ে একই এলাকার আদম স্বর্ণকারের পুত্র শাওনসহ কয়েক যুবকের সঙ্গে রুবেলের বাকবিত-া ও পরে ধাক্কাধাক্কি হয়। এ নিয়ে গত বৃহস্পতিবার স্থানীয়ভাবে মীমাংসাও করা হয়। এছাড়াও মেয়েলি ঘটনা নিয়েও ওই বখাটেদের সঙ্গে বিরোধ চলছিল। শুক্রবার দুপুর ১টায় শাওনের নেতৃত্বে বখাটেরা ছুরিকাঘাত করে রুবেলকে নৃশংসভাবে হত্যা করে বলে স্থানীয়রা জানায়।

এদিকে হাসপাতাল থেকে বেলা ২টায় মিজমিজি পূর্বপাড়ায় রুবেলের লাশ নিয়ে আসলে স্থানীয় লোকজন ক্ষোভে ফেটে পড়ে। নিহত রুবেলের সহপাঠী কায়েস ও ইমরান হোসেন জানায়, ২/১ দিনের মধ্যে মধ্যে রুবেলের এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণ করার কথা ছিল। রুবেল ছিল খুবই শান্ত স্বভাবের। কোন বাজে আড্ডায় যেত না। সহপাঠীরা রুবেল হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। রুবেল নিহত হওয়ার ঘটনায় তার মা জমিলা খাতুন বার বার মূর্ছা যাচ্ছিলেন। তিনি এ প্রতিনিধিকে কান্না বিজড়িত কণ্ঠে জানান, যারা তার নিরপরাধ সন্তানকে বিনা দোষে হত্যা করেছে তাদের ফাঁসি দিতে হবে। রুবেল ছিল ৪ ভাইয়ের মধ্যে সবার ছোট। প্রতিবেশীরা জানায়, রুবেল ছিল গরিব বাবার সন্তান। বাবা লেদু মিয়া স্থানীয় চুন কারখানায় কাজ করে। রুবেল এলাকাবাসীর সহায়তায় লেখাপড়া করে যাচ্ছিল। নিহত রুবেলের পরিবার মিজমিজি পূর্বপাড়ার ভূইয়াবাড়িতে ভাড়া থাকে। তাদের গ্রামের বাড়ি চাঁদপুর জেলার কচুয়া থানার দেরকোঠা গ্রামে। ঘটনার পর পর স্থানীয় লোকজন হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দেহে শাহ আলম, শামীম ও রেজাউল নামে তিনজকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি আলাউদ্দিন জানান, বন্ধুদের সঙ্গে বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে পায়ে পারা লাগার ঘটনা নিয়ে ধাক্কাধাক্কি হয়। এ ঘটনার জের ধরেই শুক্রবার রুবেল খুন হয়। বিষয়টি আরও তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। সন্ধ্যা ৬টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলা হয়নি।

প্রকাশিত : ২০ ডিসেম্বর ২০১৪

২০/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: