মূলত মেঘলা, তাপমাত্রা ২৭.২ °C
 
২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৭, ১১ ফাল্গুন ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

দুই বন্ডগার্ল নিয়ে ব্যস্ত বন্ড!

প্রকাশিত : ১৮ ডিসেম্বর ২০১৪

জেমস বন্ড, যার কথা বললেই ০০৭ এর কথা মনে পড়ে যায়। জেমস বন্ড মানেই এ্যাডভেঞ্চার, রোমান্স, এ্যাকশনের চমৎকার ফিউশন । সময়ের পালাবদলে জেমস বন্ড আজ অনেক বেশি পরিণত,অনেক বেশি বিধ্বংসী। তবে জেমস বন্ড সিরিজের কথা বললেই দর্শকের মনে পড়ে যায় সুন্দরী একঝাঁক বন্ডগার্লের কথা। ০০৭ মুভি ‘ংঢ়বপঃৎব’ নিয়ে জেমস বন্ড ড্যােিনয়ল ক্রেগ সারা বিশ্বের ভক্তদের হৃদয় কাঁপাতে আসছে দুই হার্টথ্রর্ব বন্ডগার্ল মনিকা বেলুচ্চি এবং লিয়া সিয়েডক্সকে সঙ্গে নিয়ে। এর দুই সেনশেনাল বন্ডগার্ল নিয়ে এরই মাঝে মাতামাতি শুরু হয়ে গেছে বিশ্বজুড়ে। পৃথিবীখ্যাত স্পাই জেমস বন্ডে তো আগেভাগেই রয়েছে ক্যাসিনো রয়েলখ্যাত ড্যানিয়েল ক্রেগ, যিনি ইতোমধ্যেই পাকাপোক্তভাবে বন্ড ভক্তদের মাঝে জায়গা করে নিয়েছেন। জেমসবন্ড সিরিজের পরিচালক স্যাম মেন্ডিসের ০০৭-এর শূটিং হচ্ছে পরবর্তী মাসেই যেখানে নতুন করে বন্ডগার্ল হিসেবে যুক্ত হয়েছে মিশন ইম্পসিবলখ্যাত আবেদনময়ী লীয়া সেডক্স। জেমস বন্ড সিরিজের এই ঝচঊঈঞজঊ ফিল্মে জেমস বন্ডরূপী ড্যানিয়েল ক্রেগের রোমান্সের সঙ্গী দুই জেমসগার্ল মনিকা বেলুচ্চি ও লিয়া সেডক্সকে চেনে না এমন দর্শক খুব কমই পাওয়া যাবে। জেমস সিরিজের এই ফিল্মে ৫০ পেরুনো মনিকাকে লুসিয়া স্কারা চরিত্রে রূপদান করতে দেখা যাবে। অন্যদিকে লিয়া করবে মেডেলিন শন নামক সুন্দরীর চরিত্র। গুণী অভিনেত্রী হিসেবে মনিকা বেলুচ্চির অবস্থান একটু ভিন্ন রকম উচ্চতায়। দ্য ম্যাট্রিক্স রিলোডেডের মতো সাড়াকাঁপানো ফিল্মে অভিনয় করা মনিকা হতে যাচ্ছেন ০০৭-এর জেমসবন্ডের সবচাইতে বেশি বয়সি বন্ডগার্ল । যদিও তার বয়স কোন প্রভাবই এখনও পর্যন্ত পড়েনি তার সৌন্দর্যে। মনিকা ১৯৯৭-এ জেমসবন্ড সিরিজের বিখ্যাত ছবি ‘টুমরো নেভার ডাই‘ এর জন্য অডিশন দিলেও ডেসপারেড হাউস ওয়াইভখ্যাত টেরি হাটচার্র এই সুযোগটি লুফে নেয়। অন্যদিকে লিয়া তার অভিনয় ক্যারিয়ার শুরু করেন ফ্রান্স ফিল্ম ‘দ্য লাস্ট মিসট্রেস এ্যান্ড ওন ওয়ার’র মাধ্যমে। তার হলিউড ফিল্মের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে রবিনহুড, মিশন ইম্পসিবল, গোস্ট প্রোটকল ইত্যাদি। জেমসবন্ড ফিল্ম নিয়ে বিখ্যাত বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিন্স একটি হাস্যকর মন্তব্য করেছিলেন। তিনি বলেছেন, জেমস বন্ড ফিল্মের একটি আদর্শ ক্যারেক্টার হচ্ছে খারাপ চরিত্রের লোকটি। তিনি আরও বলেছেন,আমার মনে হয় হুইল চেয়ার আর কম্পিউটার ভয়েজ হলো এই অংশের জন্য একেবারে ফিট। তবে এত কিছুর পর বন্ড ভক্তরা অধীর আগ্রহে বসে আছেন ধামাকা দেখার অপেক্ষায়। এই জেমসবন্ড ফিল্মটি কেমন ব্যবসাসফল হতে পারে তা এখন পরিচালক স্যামের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ। আর সুদর্শন অভিনেতা ক্রেগ ও সেনসেশনাল মনিকা লিয়ার নিপুণ আর অভিনয়শৈলীতে জেমস বন্ড সিরিজের আগামী ফিল্ম কেমন বাজিমাত করতে পারে তা দেখার প্রহর গুনছে কোটি কোটি বন্ডভক্ত। ২০১২ স্কাই ফলসের ব্যাপক সাফল্যের পর জেমসবন্ড সিরিজ পৃথিবীজুড়েই রয়েছে মানুষের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে। বিশেষ করে সকলেই অধীর আগ্রহে থাকে যে কে হবে ভবিষ্যত বন্ডগার্ল? কতটা যৌন আবেদনময়ী হবেন তিনি? জেমসবন্ডের সঙ্গে মানাবে তো? পূর্বের জেমসবন্ড হিসেবে স্বমহিমায় ভাস্বর ছিলেন মড এ্যাডামস। তবে রজার মুরের অভিনয়ে অনেকদিন জেমসভক্তরা বুঁদ হয়েছিল। শন কনারি এবং পিয়ার্স ব্রসনান বন্ড ভক্তদের ভালই আনন্দ দিয়েছেন। বন্ডগার্ল হিসেবে এ যাবতকালে যারা জেমসবন্ডদের সঙ্গ দিয়েছে তারা একইসঙ্গে ছিল বন্ডের বিনোদনের সঙ্গী,বিপদে জেমসের সহযোগী অথবা জেমসকে ফাঁসানোর জন্য ভিলেনের তুরুপের তাস। পর্দায় ক্রেগ,মনিকা আর লিয়ার রসায়ন কেমন দৃশ্যলব্ধ হবে তা কৌতূহলের বিষয়। সেটা দেখার জন্য বন্ড ভক্তদের আরও কিছুদিন অপেক্ষা করতেই হচ্ছে।

পান্থ আফজাল

প্রকাশিত : ১৮ ডিসেম্বর ২০১৪

১৮/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: