আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপের ফাইনালে দুরন্ত রিয়াল মাদ্রিদ

প্রকাশিত : ১৮ ডিসেম্বর ২০১৪
ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপের ফাইনালে দুরন্ত রিয়াল মাদ্রিদ
  • বিশ্বরেকর্ড গড়ার পথে আরও একধাপ অতিক্রম গ্যালাক্টিকোদের, রিয়াল মাদ্রিদ ৪- ক্রুজ এ্যাজুল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ প্রথমবারের মতো ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেছে রিয়াল মাদ্রিদ। মঙ্গলবার আসরের প্রথম সেমিফাইনালে স্প্যানিশ পরাশক্তিরা ৪-০ গোলে পরাজিত করে মেক্সিকান ক্লাব ক্রুজ এ্যাজুলকে। মরক্কোর মারাকেশ স্টেডিয়ামে গ্যালাক্টিকোদের হয়ে গোলগুলো করেন সার্জিও রামোস, করিম বেনজেমা, গ্যারেথ বেল ও ইস্কো। আগামী শনিবার শিরোপা নির্ধারণী ফাইনাল ম্যাচ খেলবে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নরা।

রিয়ালের সবচেয়ে বড় তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো গোল না পেলেও পুরো ম্যাচে খেলেন দুর্দান্ত। এ কারণে ম্যাচ শেষে দলটির কোচ কার্লো আনচেলোত্তি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেছেন, সি আর সেভেন ফাইনালে গোল পাবেন। ম্যাচের প্রথমার্ধে ক্রুজ এ্যাজুল পেনাল্টি থেকে গোল করার সুযোগ হাতছাড়া করার পর আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি। এর আগে একবারই ক্লাব বিশ্বকাপে খেলেছে রিয়াল। ২০০০ সালের ওই আসরে চতুর্থ হয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছিল স্প্যানিশ জায়ান্টদের। এবার ক্লাব বিশ্বকাপ জয়ের জন্য সবচেয়ে ফেবারিট রেকর্ড সর্বোচ্চ ১০ বার ইউরোপ সেরার মুকুট মাথায় পরা দলটি। শিরোপা জিততে দক্ষিণ আমেরিকার চ্যাম্পিয়ন সান লরেঞ্জো বা ওসানিয়া চ্যাম্পিয়ন অকল্যান্ড সিটির বিরুদ্ধে খেলবে রিয়াল। বুধবার রাতেই নির্ধারণ হয়ে গেছে তাদের প্রতিপক্ষ।

এটি সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে রিয়ালের টানা ২১তম জয়। বিশ্বরেকর্ড ছুঁতে তাদের আর ৩টি জয় চাই। ব্রাজিলের ক্লাব করিটিবা ২০১১ সালে সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে টানা ২৪ ম্যাচে জয় পেয়েছিল। গৌরবয় এই রেকর্ডেই পথেই এখন ছুটছে রিয়াল মাদ্রিদ। ম্যাচ দেখতে মাঠে উপস্থিত ছিলেন ফিফা ও উয়েফা প্রধান সেপ ব্লাটার ও মিশেল প্লাতিনি। ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক খেলতে থাকে রিয়াল। ১৫ মিনিটে দলকে এগিয়ে নেন ডিফেন্ডার রামোস। টনি ক্রুসের কর্ণার ক্রস থেকে হেডে গোলটি করেন তিনি। ৩৬ মিনিটে দানিয়াল কারভাজালের সহযোগিতায় রিয়ালের হয়ে দ্বিতীয় গোল করেন বেনজেমা। ম্যাচের ৪০ মিনিটে ব্যবধান কমাতে পারত এ্যাজুল। রিয়ালের বক্সের মধ্যে রামোস ফাউল করলে রেফারি তাকে হলুদ কার্ড দেখায়। পেনাল্টি পায় মেক্সিকান ক্লাবটি। কিন্তু স্পট কিক নিতে আসা জেরার্ডো টোরার্দোর শট দারুণ দক্ষতায় রুখে দেন অভিজ্ঞ গোলরক্ষক একার ক্যাসিয়াস।

বিরতির পর আক্রমণের ধার আরও বাড়িয়ে দেয় রিয়াল। ৫০ মিনিটে এ মৌসুমে গোলের বন্যা বইয়ে দেয়া রোনাল্ডোর পাস থেকে দলের হয়ে তৃতীয় ও নিজের প্রথম গোল করেন বেল। এ্যাজুলের বিপদ সীমানায় বল পেয়ে হেডের মাধ্যমে ওয়েলস তারকার কাছে বল পাস করেন পর্তুগীজ অধিনায়ক। এরপর গোল করতে ভুল করেননি ওয়েলস তারকা। ৭২ মিনিটে আবারও রোনাল্ডোর সহযোগিতায় গোল পায় রিয়াল। ফিফা সেরা তারকার পাস থেকে দলের চার নম্বর গোল করেন মিডফিল্ডার ইস্কো।

ম্যাচ শেষে রিয়াল কোচ কার্লো আনচেলোত্তি দলের পারফর্মেন্সকে ‘কার্যকর’ হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, প্রথমার্ধে খেলাটা উন্মুক্তই ছিল। এ্যাজুল তো একটি পেনাল্টিও পেয়েছিল। কিন্তু কার্যকর পারফর্মেন্সে আমরা প্রতিপক্ষকে পেছনে ফেলেছি। রোনাল্ডোর প্রশংসা করে তিনি বলেন, হতে পারে সে গোল পায়নি। কিন্তু সে পুরো ম্যাচেই দলের আক্রমণ রচনায় ভূমিকা রেখেছে। সে তো কিছু সুযোগও তৈরি করেছে। সে সব সময়ই অসাধারণ।

প্রকাশিত : ১৮ ডিসেম্বর ২০১৪

১৮/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: