রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

আজ হানাদারমুক্ত

প্রকাশিত : ১৪ ডিসেম্বর ২০১৪
  • সিরাজগঞ্জ, পার্বতীপুর, সান্তাহার, ফটিকছড়ি আমতলী, সাভার ও জয়পুরহাট

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ আজ রবিবার, ১৪ ডিসেম্বর। ১৯৭১ সালের এ দিনে সিরাজগঞ্জ, পার্বতীপুর, সান্তাহার, ফটিকছড়ি ও আমতলী হানাদার বাহিনীর কবল থেকে মুক্ত হয়েছে। স্টাফ রিপোর্টার, নিজস্ব সংবাদদাতা ও সংবাদদাতাদের পাঠানো খবরÑ

সিরাজগঞ্জ ॥ আজ ১৪ ডিসেম্বর সিরাজগঞ্জ মুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের আজকের এই দিনে সিরাজগঞ্জ শহর শত্রুমুক্ত হয়। এদিন স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে উৎসবে মেতে উঠেছিলেন শৃঙ্খলমুক্ত সিরাজগঞ্জবাসী। সিরাজগঞ্জ মুক্ত দিবস উপলক্ষে সিরাজগঞ্জ মুক্তিযোদ্ধা সংসদসহ বিভিন্ন সংগঠন নানা কর্মসূচী গ্রহণ করেছে।

পার্বতীপুর ॥ পার্বতীপুরবাসীর বিজয়ের মাহেন্দ্রক্ষণ ১৯৭১ সালের ১৫ ডিসেম্বর। এদিন এ জনপদ পাক হানাদারমুক্ত হয়। মুক্তিবাহিনী ও মিত্রবাহিনীর উপর্যুপরি আক্রমণ ও তাড়া খেয়ে পার্বতীপুর শহরে বসবাসরত অবাঙালী বিহারীরা ১৪ ডিসেম্বর রাত ১২টা ৩০ মিনিটে বিশেষ ট্রেনযোগে পার্শ্ববর্তী সৈয়দপুর শহরে পালিয়ে গেলে পার্বতীপুর ও পার্শ্ববর্তী অঞ্চল বাঙালীদের নিয়ন্ত্রণে আসে।

সান্তাহার ॥ আজ ১৪ ডিসেম্বর অবাঙালী তথা বিহারী অধ্যুষিত বগুড়ার সান্তাহার রেলওয়ে জংশন শহর হানাদার মুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে বীর মুক্তিযোদ্ধারা চার দিক সাঁড়াসি আক্রমণ চালিয়ে পাকি হানাদার বাহিনীর কবল থেকে ৯ মাস ধরে অবরুদ্ধ সান্তাহার জংশন শহরকে মুক্ত করেন।

ফটিকছড়ি ॥ আজ (রবিবার) নাজিরহাট হানাদারমুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের এদিনে পাক হানাদার বাহিনী মুক্তিযোদ্ধা ও ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টের আক্রমণের মুখে টিকতে না পারায় নাজিরহাট ত্যাগ করতে বাধ্য হয়। এর তিন দিন আগে অর্থাৎ ৯ ডিসেম্বর পাকবাহিনী নাজিরহাট দখল করে হত্যাযজ্ঞ চালায়।

আমতলী ॥ আজ ১৪ ডিসেম্বর আমতলী মুক্ত বিদস। ১৯৭১ সালের এই দিনে আমতলী থানা পাক হানাদার মুক্ত হয়েছিল।

’৭১ সালে বরগুনা শহর আগে মুক্ত হলেও যোগাযোগ বিচ্ছিন্নতার কারণে আমতলী মুক্ত হতে বিলম্ব হয়েছিল।

সাভার ॥ আজ রবিবার ১৪ ডিসেম্বর সাভারমুক্ত দিবস। মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে নাস্তানাবুদ হয়ে পশ্চাদপসারণকারী হানাদার বাহিনীর সঙ্গে সাভার উপজেলার আশুলিয়া থানার জিরাব এলাকার ঘোষবাগ-গঙ্গাবাগ গ্রামে নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চুর নেতৃত্বাধীন মুক্তিযোদ্ধাদের এক গেরিলা গ্রুপের সম্মুখ যুদ্ধের মাধ্যমে সাভার হয়েছিল শত্রুমুক্ত। ওই যুদ্ধে গোলাম মোহাম্মদ দস্তগীর টিটু নামে এক অকুতোভয় অসীম সাহসী কিশোর শহীদ হন। তাঁর লাল রক্তে সাভারের লাল মাটি আরও লাল হয়ে সেদিন সাভার হয়েছিল শত্রুমুক্ত।

জয়পুরহাট ॥ ১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর জয়পুরহাটের পাঁচবিবির ভূঁইডোবা সীমান্ত দিয়ে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আসাদুজ্জামান বাবলুর নেতৃত্বে দেড় শতাধিক মুক্তিযোদ্ধা পাঁচবিবি হয়ে জয়পুরহাটে প্রবেশ করে। তারা পাঁচবিবি থানা ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে জয়পুরহাটে এসে জয়পুরহাট ডাকবাংলোতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে। এই সময় মুহুর্মুহু গুলিবর্ষণ করে জানানো হয় বিজয় বার্তা।

প্রকাশিত : ১৪ ডিসেম্বর ২০১৪

১৪/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: