মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

গত সপ্তাহে লেনদেন কমেছে ৯ শতাংশ

প্রকাশিত : ১৪ ডিসেম্বর ২০১৪

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ গত সপ্তাহে নতুন প্রজন্মের স্বয়ংক্রিয় লেনদেন ব্যবস্থার সফটওয়্যার চালু করেছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। এই নতুন সফটওয়্যার চালুর দিনে ডিএসইর লেনদেন ও সব ধরনের মূল্যসূচক কমেছে। গত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন কমেছে প্রায় ৯ শতাংশ। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, আগের সপ্তাহের চেয়ে ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ১৭৫ কোটি ২৬ লাখ ৯২ হাজার টাকার। আলোচিত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৮০২ কোটি ২৩ লাখ টাকার। আর আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৯৭৭ কোটি ৫০ লাখ টাকার শেয়ার।

বাজার বিশ্লেষকদের মতে, বৃহস্পতিবার ডিএসইতে স্বয়ংক্রিয় লেনদেন (অটোমেটেড ট্রেডিং সিস্টেম) ব্যবস্থা চালু করা হয়। এই লেনদেন ব্যবস্থা চালুর ফলে দীর্ঘদিনের ভোগান্তি অডলটের ভোগান্তি থেকে মুক্তি পেয়েছে বিনিয়োগকারীরা। তবে এই সব সুফল পেলেও এই নতুন সফটওয়্যার চালুর ফলে লেনদেনে ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। নতুন লেনদেন পদ্ধতি সম্পর্কে বিনিয়োগকারীরা পুরোপুরি বুঝে উঠতে না পারায় লেনদেনে সতর্ক ছিল। এতে সাপ্তাহিক লেনদেনেও প্রভাব পড়েছে।

সমাপ্ত সপ্তাহে ‘এ’ ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৭৮ দশমিক ৯২ শতাংশ। ‘বি’ ক্যাটাগরির কোম্পানির লেনদেন হয়েছে ৩ দশমিক ৮৭ শতাংশ। ‘এন’ ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১১ দশমিক ৮২ শতাংশ। ‘জেড’ ক্যাটাগরির লেনদেন হয়েছে ৫ দশমিক ৩৯ শতাংশ।

এদিকে ডিএসই সার্বিক সূচক বা ডিএসইএক্স সূচক কমেছ দশমিক ৫৮ শতাংশ বা ২৮ পয়েন্ট। সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএস৩০ সূচক কমেছে ১ দশমিক ৯ শতাংশ বা ২০ পয়েন্ট। অপরদিকে শরিয়াহ বা ডিএসইএস সূচক কমেছে দশমিক ৫২ শতাংশ বা ৬ পয়েন্টে।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে তালিকাভুক্ত মোট ৩১৮টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১১৭টি কোম্পানির। আর দর কমেছে ১৭২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৭টির। আর লেনদেন হয়নি ২টি কোম্পানির শেয়ার।

সাপ্তাহিক লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলো : বেক্সিমকো ফার্মা, হামিদ ফেব্রিক্স, সামিট এলায়েন্স পোর্ট লিমিটেড, গ্রামীণফোন লিমিটেড, স্কয়ার ফার্মা, কাসেম ড্রাইসেল, বেক্সিমকো, কেয়া কসমেটিকস, বিডি থাই এলুমিনিয়াম ও যমুনা অয়েল।

দর হারানোর সেরা কোম্পানিগুলো হলো : হামিদ ফেব্রিক্স, সোনালি আঁশ, খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন, ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড, মেঘনা পেট্রোলিয়াম, প্রগতি ইন্স্যুরেন্স, সুহৃদ ইন্ড্রাস্টিজ, রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স, আইসিবি ইসলামী ব্যাংক ও ওরিয়ন ইনফিউশন।

অন্যদিকে সাপ্তাহিক দরবৃদ্ধির তালিকায় রাজত্ব করছে প্রকৌশল ও বস্ত্র খাতের কোম্পানি। কারণ তালিকায় থাকা দশ কোম্পানির মধ্যে ছয় কোম্পানিই আলোচিত দুই খাতের। দরবৃদ্ধির তালিকার শীর্ষে রয়েছে প্রকৌশল খাতের কাশেম ড্রাইসেলস। সপ্তাহের ব্যবধানে শেয়ারটির দর বেড়েছে প্রায় ২৫ শতাংশ। কোম্পানিটি প্রতিদিন গড়ে ৮ কোটি ৮২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন করেছে। এ হিসাবে সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪৪ কোটি ১০ লাখ টাকার। আনোয়ার গ্যালভানাইজিং ২০ দশমিক ১৭ শতাংশ দর বেড়ে গেইনারের দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। কোম্পানিটি প্রতিদিন গড়ে ৮৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন করেছে। এ হিসাবে সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪ কোটি ২০ লাখ টাকার।

প্রকৌশল খাতের বিডি থাই এ্যালুমিনিয়াম ১১ দশমিক ৩৭ শতাংশ দর বেড়ে গেইনারের পঞ্চমস্থানে রয়েছে। কোম্পানিটি প্রতিদিন গড়ে ৬ কোটি ৯১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন করেছে। এ হিসাবে সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩৪ কোটি ৫৫ লাখ টাকার। এ ছাড়া বস্ত্র খাতের আরও ৩ কোম্পানি দরবৃদ্ধির তালিকায় রয়েছে। এই খাতের তুং হাই নিটিং এই তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে। সমাপ্ত সপ্তাহে শেয়ারটির দর বেড়েছে ১৮ দশমিক ৬০ শতাংশ। গত সপ্তাহে কোম্পানিটির গড় লেনদেন ছিল ২ কোটি ৭৩ লাখ টাকার। আর পুরো সপ্তাহে কোম্পানিটি ১৩ কোটি ৬৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন করেছে। অপরদিকে সপ্তাহের ব্যবধানে মোজাফফর হোসেন স্পিনিং মিলসের ৯ দশমিক ৯ শতাংশ ও রহিম টেক্সটাইলের ৮ দশমিক ৪৮ শতাংশ দর বেড়েছে।

প্রকাশিত : ১৪ ডিসেম্বর ২০১৪

১৪/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: