আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ইন্টারনেটে তারুণ্যের বিজয় উৎসব

প্রকাশিত : ১৩ ডিসেম্বর ২০১৪
  • রেজা নওফল হায়দার / সুমন সাহা

আমাদের মহান বিজয় দিবস। আমাদের জন্য সবচেয়ে আনন্দের দিন। বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি দিন। পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে মুক্তির দিন। বিশ্বের মানচিত্রে সৃষ্টি হয় নতুন একটি সার্বভৌম দেশ, বাংলাদেশ। যা বাঙালী জাতিকে এনে দেয় আত্মপরিচয়ের ঠিকানা। যাঁরা বুকের তাজা রক্ত দিয়ে এ বিজয় ছিনিয়ে এনেছেন আজ সেসব শহীদকে বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালবাসায় স্মরণ করছে দেশের সর্বস্থরের মানুষ। বাংলার দামাল মুক্তিযোদ্ধা আর মুক্তিপাগল মানুষের প্রবল প্রতিরোধ আর লড়াইয়ের মুখোমুখি হয়ে বাংলাদেশ থেকে পরাজিত হয়ে বিজয়ের এই দিনে আত্মসমর্পণ করেছিল পাকিস্তনী হানাদার বাহিনী। সেদিনের সেই সূর্যের আলোয় ছিল নতুন দিনের স্বপ্ন। আর এ স্বপ্নের জন্য অকাতরে প্রাণ দিয়েছিলেন ৩০ লাখ মানুষ। তাঁদের প্রাণের বিনিময়ে আমাদের এ বিজয়, এ স্বাধীনতা।

প্রতি বছরেই দেশের বিভিন্ন স্তরের মানুষ এক হয়ে উদযাপন করে দিনটিকে, স্মরণ করে সেই ৩০ লাখ শহীদের, যাঁদের রক্তের দামে পাওয়া এই স্বাধীনতা। এই দিনটি নিয়ে তরুণদের মাতামাতিও কিন্তু একদম কম নয়। এদিনটাকে সাজায় নানাভাবে। তাদের সবচেয়ে পরিচিত সাইট ফেসবুক ঘাঁটলেই বোঝা যায় এই বিজয় দিবস নিয়ে রয়েছে তাদের কত পরিকল্পনা। বিজয়ের মাসের শুরু হতেই ছেয়ে গেছে ফেসবুক, বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা আর দেশাত্মবোধক সব পোস্ট দিয়ে। সবাই এক হয়ে তাদের প্রোফাইলের ছবি সরিয়ে যুক্ত করে দেশের পতাকা। অনেকের টাইম লাইনে শোভা পাচ্ছে সেই পতাকা। এ সময় যেন ফেসবুকজুড়ে থাকে লাল-সবুজের খেলা। শুধু যে প্রফাইলের ছবি বদলে যায় তাও কিন্তু নয় বদলে যায় তাদের প্রোফাইলের কভার পেজ। বিজয় দিবস আসতেই সবাই ফেসবুক টুইটারে মাধ্যমে বন্ধুদের জানায় বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা। অনেকে আবার বানিয়ে নেয় ভিজ্যুয়াল বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা কার্ড, সেগুলো অনলাইনে মেইল বা চ্যাটের মাধ্যমে পাঠিয়ে দেয় বন্ধু, আত্মীয়স্বজন, কলিগদের কাছে। কম করে হলেও বিশটির বেশি ইভেন্ট তৈরি হয়েছে ফেসবুকে এবারের বিজয় দিবসকে ঘিরে। বিজয় দিবসের নামে রয়েছে ৪টা ফেসবুক পেজ যারা সারাবছর দেশের বীরত্ব গাথা কাহিনী সবার কাছে জানিয়ে আসছে। তরুণ প্রজন্মের ব্লগেরাও কিন্তু পিছিয়ে নেই সেদিক থেকে। হাজারো ব্লগ পাওয়া যাবে ইন্টারনেট ঘাঁটলে যেখানে আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধে ঘটে যাওয়া না কাহিনী ফুটে উঠেছে, প্রকাশ করেছে তারা তাদের দেশকে নিয়ে চিন্তাভাবনা, ভালবাসা, আবেগের কথা। স্বাধীনতার বিপক্ষে কেউ কথা বললেই সোচ্চার হয়েছে তাদের কণ্ঠ, প্রতিবাদী সুরে রুখে দিয়েছে সব অপশক্তিকে।

বিশ্ব যখন এগিয়ে চলেছে প্রযুক্তির তালেতালে তখন সবখানেই ছোঁয়া লেগেছে প্রযুক্তির, লেগেছে উৎসব উৎযাপনেও। দেশে রয়েছে অনেকগুলো সাইট। লাখ লাখ প্রবাসী বাঙালী রয়েছে বিশ্বের নানা দেশে। দেশের মাটি থেকে দূরে থাকলেও তারা ভুলে যায় না এই দিনটির কথা, তাদের প্রাণের প্রিয় মাতৃভূমির কথা। অনলাইনের নানা সাইটের মাধ্যমে লাইভ স্ট্রিম সুবিধার মাধ্যমে সরাসরি দেশকে দেখতে পান বিশ্বের যে কোন প্রান্তে বসেই, দেখতে পারেন নানা ধরনের কমেন্ট। বাংলাদেশে রয়েছে হাজার হাজার ওয়েব সাইট, নিউজ পোর্টাল, ব্লগ। অধিকাংশ ব্লগ বা নিউজ পোর্টালে এরই মাঝে প্রচার করা শুরু হয়ে গিয়েছে বিজয় দিবস নিয়ে নানা আর্টিকেল, ব্লগ, রিপোর্ট, কবিতা, গান বা গল্প। কিছু কিছু ওয়েবসাইট ব্লগ তো এরই মাঝে শুরু করেছে গল্প, কবিতা বা দেশাত্মবোধক গানের প্রতিযোগিতা।

বিজয় দিবস আসলেই ভিড় জমে স্মৃতিসৌধ, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে। রাজধানীর সেগুন বাগিচায় অবস্থিত মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে সেদিন পা ফেলার জায়গা হয় না। দেশের মুক্তিযুদ্ধকে আরও কাজ থেকে অনুধাবন করতে, ’৭১-এর সঠিক ইতিহাস জানতে ভিড় জমে সেখানে হাজার হাজার মানুষের। কিন্তু যারা রাজধানী শহরে থাকে না বা প্রবাসী তারা কি জানতে পারবে না দেশের সঠিক ইতিহাস, মুক্তিযুদ্ধ, সেসময়ের ফ্রেমবন্দী ছবিগুলো? হ্যাঁ, পারবে। এজন্য বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রাণালয়ের রয়েছে নিজস্ব একটি ওয়েব সাইট। সেই ওয়েব সাইটের আর্কাইভে স্থান পেয়েছে দেশের সঠিক ইতিহাস, দেশের মুক্তিযোদ্ধাদের একটা তালিকা, দেশের বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জীবনের নানা কাহিনী, তাদের যুদ্ধের কাহিনী। সেখানে স্থান পেয়েছে এক বিশাল ফটো গ্যালারি। সেখানে ফুটে উঠেছে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন ও পরবর্তী সময়ের নানা ছবি। এছাড়া রয়েছে সেসময়ের নানা পত্রিকার পেপার কাটিংয়ের অংশ। এখন যে কেউ দেশের বা বিশ্বে যে কোন প্রান্তে বসেই জেনে নিতে পারেন, দেখে নিতে পারেন দেশে মুক্তিযুদ্ধকে। যেখানে উৎযাপিত হচ্ছে তারুণ্যের বিজয় উৎসব। অনেকে এরই মধ্যে বিভিন্ন থিম নিয়ে কাজ করছে আর মুক্তি দিচ্ছে ফেসবুকে।

এছাড়াও প্রতি বছরেই সরকারসহ নানা বেসরকারি প্রতিষ্ঠান নানা উদ্যোগ গ্রহণ করে থাকে এই দিনটিকে কেন্দ্র করে। আর এই উৎসবের নতুন একমাত্রা বাড়িয়ে দিয়েছে আমাদের ইন্টারনেটের বিভিন্ন সাইটে।

প্রকাশিত : ১৩ ডিসেম্বর ২০১৪

১৩/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: