রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

আজব হলেও গুজব নয়

প্রকাশিত : ১২ ডিসেম্বর ২০১৪

অভিনব গণবিয়ে

সে এক অভিনব দৃশ্য। ব্রাজিলের রিওতে একসঙ্গে এক হাজার ৯৬০ জন বাঁধা পড়লেন বিবাহ বন্ধনে। রবিবার মারাকানা স্টেডিয়ামের অদূরে এক হলে এই জনমিলনের সাক্ষী থাকল গোটা বিশ্ব। এই গণবিয়ের অনুষ্ঠানে বর-কনেরা ছাড়াও তাঁদের বন্ধু, পরিবার, ক্যাথলিক প্রিস্ট ও ম্যারেজ রেজিস্ট্রাররাসহ জড়ো হয়েছিলেন ১২,০০০ মানুষ।

‘আই ডু ডে’ নামের এই গণবিয়ের অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছিল তাঁদের জন্য, যাদের পক্ষে ব্যানকোয়েট হল বুক করে জাঁকজমক করে বিয়ে করা এতদিন ছিল স্বপ্নাতীত। যে খানে এই গণবিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে, সেখানে সাধারণত বড় বড় কনসার্ট হয়। এই গণবিয়ের আসর অন্যমাত্রা পেল সাম্বাস্টার ডুডু নোবরের কনসার্টে। অতিথিদের জন্য শুধু এই বিয়ে উপলক্ষে ফ্রি ট্রেন রাইডেরও ব্যবস্থা করা হয়েছিল।

হোয়াইট হাউসে ক্রিসমাস ট্রি

খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় বার্ষিক ধর্মীয় উৎসব বড়দিনের আর বেশি বাকি নেই। এ লক্ষ্যে ইতোমধ্যে খ্রিস্টান জনগোষ্ঠীর মধ্যে শুরু হয়ে গেছে প্রস্তুতি। প্রস্তুতির ছোঁয়া লেগেছে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সরকারি বাসভবন হোয়াইট হাউসেও। বড়দিন পালনের একটি বড় উপাদান হচ্ছে ক্রিসমাস ট্রি। হোয়াইট হাউসে সম্প্রতি ঘোড়ার গাড়িতে করে প্রচুর ক্রিসমাস ট্রি নিয়ে আসা হয়। এর মধ্য থেকে সেরা ট্রিটি বেছে নেন ফার্স্ট লেডি মিশেল ওবামা? এরপর পুরো ডিসেম্বরজুড়েই সেই ক্রিসমাস ট্রি সাজানো থাকবে হোয়াইট হাউসের বলরুমে। শুধু মিশেলই নন, ক্রিসমাস ট্রি বাছাইয়ে তার সঙ্গে মেতেছেন তার দুই কন্যা মালিয়া এবং সাশাও।

বলি উৎসব

সংখ্যাগরিষ্ঠ হিন্দু জনগোষ্ঠীর দেশ নেপাল। বারো মাসে তের পার্বণের রীতি নেপালের সংস্কৃতিকে করেছে সমৃদ্ধশালী। তবে এই সাংস্কৃতির চর্চার কিছু কিছু দিক আছে, যা বর্তমান আধুনিক সমাজে চলনসই নয় তেমন। তেমনি এক উৎসব হলো পশু বলি উৎসব। পাঁচ বছর অন্তর বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে এই পশু বলি উৎসব পালন করা হয়। অনেক পশু অধিকার রক্ষা কমিটি বা সংগঠন এই উৎসব বন্ধে বিভিন্ন সময় দাবি জানিয়ে আসছে। তবু বন্ধ হয়নি শত বছর পুরনো এই উৎসব।

দেশটির সাধারণ হিন্দুদের বিশ্বাস মতে, প্রতি পাঁচ বছর পর পর শক্তির দেবী গাধিমাইয়ের উদ্দেশ্যে বিশ্বাস করে পশু বলি দিলে সমাজসহ সংসারের কল্যাণ হয়। তবে এই উৎসবটি যতটা পারিবারিক, তার চেয়েও বেশি সামাজিক। কারণ পাঁচ বছর অন্তর দেয়া পশু বলি যদি ঠিকঠাক মতো হয়, তাহলে পর্বতমাতা সন্তুষ্ট হয়ে সম্প্রদায়ের সবার মঙ্গল করেন, এ রকম বিশ্বাস আজও প্রচলিত আছে নেপালে।

প্রতিবছর পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত থেকে বিপুলসংখ্যক মহিষ, ভেড়া, ছাগল নেপালে আনা হয় পশু বলির জন্য। তবে এবার ভারত সরকার পরিবেশবাদীদের পক্ষ নিয়ে সীমান্ত অতিক্রম করে নেপালে মহিষ, ভেড়া ইত্যাদি নিতে দেয়নি। ধারণা করা হয় এবারের উৎসবে প্রায় ৫ লক্ষ মহিশ বলি দেয়া হয়েছে। গাধিমাই উৎসবের আয়োজন ৪১ বছর বয়সী ধীরেন্দ্র সিং জানান, ‘ভারত সরকারের উচিত হয়নি মহিষ পাঠানো বন্ধ করে দেয়া। তারা আমাদের ধর্ম বিশ্বাসের ওপর আঘাত হেনেছে এবং এটা সত্যি খারাপ। আমরা কখনই থামব না, বরং চালিয়ে যাব। এ বছর আরও অনেক মানুষ এই উৎসবে সামিল হয়েছে।’

সাতসতেরো প্রতিবেদক

প্রকাশিত : ১২ ডিসেম্বর ২০১৪

১২/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: