কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রোমাকে হারিয়ে নকআউট পর্বে ম্যানসিটি

প্রকাশিত : ১২ ডিসেম্বর ২০১৪

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কঠিন সমীকরণ জয় করে অবশেষে শেষ ষোলোতে নাম লিখিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। বুধবার উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগ ফুটবলে ‘ই’ গ্রুপের ম্যাচে বেয়ার্ন মিউনিখ ৩-০ গোলে সিএসকেএ মস্কোকে হারালে ও নিজেদের ম্যাচে ম্যানসিটি ২-০ গোলে স্বাগতিক এএস রোমাকে পরাজিত করলে নকআউট পর্ব নিশ্চিত হয় ইংলিশ চ্যাম্পিয়নদের।

আগের ম্যাচে সিটির কাছে হার মানা বেয়ার্ন সহজ জয় পায় টমাস মুলার, সেবাস্টিয়ান রোডে ও মারিও গোয়েটজের গোলে। ফলে বাড়তি আত্মবিশ্বাস নিয়েই পরের পর্বে মিশন শুরু করতে পারবে পেপ গার্ডিওলার দল। অন্যদিকে শুরুর দিকে ধাক্কা খাওয়া সিটি শেষ দুই ম্যাচে দারুণ জয়ে পরের পর্ব নিশ্চিত করেছে। পরশু দলটির হয়ে মহামূল্যবান গোল করেন সামির নাসরি ও পাবলো জাবালেটা। ‘এইচ’ গ্রুপ থেকে পর্তুগালের ক্লাব পোর্তোর সঙ্গে প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালের ছাড়পত্র পেয়েছে ইউক্রেনের ক্লাব শাখতার ডোনেস্ক। পরশু পোর্তো ও শাখতারের মধ্যকার ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়। আরেক ম্যাচে এ্যাথলেটিক বিলবাও ২-০ গোলে বাটে বরিসভকে হারালেও আসর থেকে বিদায় নিতে হয়েছে। মহামূল্যবান ম্যাচে সিটি পায়নি তিন তারকা ফুটবলারকে। দারুণ ছন্দে থাকা আর্জেন্টাইন তারকা সার্জিও এ্যাগুয়েরো খেলতে পারেননি চোটের কারণে। একই কারণে মাঠে ছিলেন না অধিনায়ক ভিনসেন্ট কোম্পানি। বহিষ্কারাদেশ মাঠে নামতে দেয়নি ইয়াইয়া তোরেকে। এরপরও রোমার মাটিতে রোমার বিরুদ্ধে দারুণ জয়ে অসাধ্য সাধন করেছে ম্যানুয়েল পেলেগ্রিনির দল। অবশ্য সমীকরণ মেলানোর ক্ষেত্রে বেয়ার্ন মিউনিখের প্রতি কৃতজ্ঞতা থাকতে হবে সিটিকে। কেননা সিটি মস্কোকে হারালে সমীকরণ সহজ হয়ে যায় ইংলিশ ক্লাবটির।

স্টাডিও অলিম্পিকোতে কঠিন সমীকরণ নিয়ে মাঠে নামে দু’দল। কারণ ম্যাচের আগে দ’দলেরই সমান পাঁচ ম্যাচে পাঁচ পয়েন্ট করে ছিল। তাই জয়ের কোন বিকল্প ছিল না দল দুটির। প্রথমার্ধে দু’দলের বেশ কয়েকটি ভাল আক্রমণ থেকে গোল হয়নি। বিরতির পর নিজেদের আরও গুছিয়ে নেয় ম্যানুয়েল পেলেগ্রিনির শিষ্যরা। ম্যাচের ৬০ মিনিটে দলকে আনন্দে ভাসান ফরাসী তারকা সামির নাসরি। ক্লিশির পাস থেকে বল পেয়ে প্রায় ৩০ গজ দূর থেকে দারুণ শটে রোমার জালে বল জড়ান তিনি। পিছিয়ে পড়া রোমা দুর্ভাগ্যের শিকার কিছুক্ষণ পরেই। মনোলাসের একটি হেড সিটির পোস্টে লেগে ফেরত আসে। এরপর ৮৬ মিনিটে সিটির শেষ ষোলো নিশ্চিত করা গোলটি করন জাবালেটা। এই গোলেও সামির নাসরির ভূমিকা ছিল অনন্য। আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডারকে বলটি পৌঁছে দিয়েছিলেন ফরাসী তারকাই। ম্যাচ চলাকালীন সিটি গোলরক্ষক জো হার্টকে লক্ষ্য করে স্বাগতিক রোমার সমর্থকরা মিসাইলের মতো এক ধরনের বস্তু ছুড়ে মারেন। পরে হার্ট বস্তুটিকে মাঠ থেকে উঠিয়ে ম্যাচের কর্তব্যরত কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করেন। তবে নিয়মিত অধিনায়ক ভিনসেন্ট কোম্পানির পরিবর্তে দলনেতা হিসেবে মাঠে নামা হার্টের গায়ে বস্তুটি আঘাত করেছে কিনা সে ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। আরেক ম্যাচে ঘরের মাঠ এ্যালিয়েঞ্জ এ্যারানায় শুরু থেকেই মস্কোর উপর চড়াও হয়ে খেলতে থাকে বেয়ার্ন। ১৮ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে বাভারিয়ানদের এগিয়ে নেন টমাস মুলার। এটি চ্যাম্পিয়ন্স লীগে মুলারের ২৪তম গোল। ডি বক্সের মধ্যে মস্কোর ইসরাইলী মিডফিল্ডার বিবরাস নাটখো ফরাসী ফরোয়ার্ড ফ্রাঙ্ক রিবেরিকে ফাউল করলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। প্রথমার্ধে আরও কয়েকটি সহজ সুযোগ পেলেও আর কাজে লাগাতে পারেনি স্বাগতিক ফুটবলাররা। বিরতির পর একের পর এক আক্রমণে প্রতিপক্ষের রক্ষণকে ব্যস্ত রাখে বেয়ার্ন। কিন্তু পাচ্ছিলেন না গার্ডিওলার শিষ্যরা। অবশেষে ম্যাচের শেষ ছয় মিনিটে আরও দুই গোল পায় সাবেক চ্যাম্পিয়নরা। ৮৪ মিনিটে স্বদেশী মিডফিল্ডার বাস্তিয়ান শোয়াইনস্টাইগারের ক্রসে হেড করে বল জালে পাঠান সেবাস্টিয়ান রোডে। ৯০ মিনিটে ডি বক্সের মধ্যে থেকে ডান পায়ের শটে গোল করেন ব্রাজিল বিশ্বকাপের ফাইনালের একমাত্র গোলদাতা মারিও গোয়েটজে।

প্রকাশিত : ১২ ডিসেম্বর ২০১৪

১২/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: