মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

বঙ্গবন্ধুর ব্লু ইকোনমি ধারণা বাস্তবে রূপ দেয়া হবে

প্রকাশিত : ১২ ডিসেম্বর ২০১৪
  • পটুয়াখালীতে কোস্ট গার্ডের প্রশিক্ষণ ঘাঁটি উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব সংবাদদাতা, পটুয়াখালী, ১১ ডিসেম্বর ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কোস্টগার্ড প্রশিক্ষণ ঘাঁটি ‘সিজি বেইজ অগ্রযাত্রা’ দক্ষিণাঞ্চলের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে। তিনি বলেন, তাঁর সরকার বঙ্গবন্ধুর ‘ব্লু ইকোনমি’র ধারণা বাস্তবে রূপ দিতে অঙ্গীকারাবদ্ধ। বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পটুয়াখালীর (দুর্গাপুর) এলাকায় প্রশিক্ষণ ঘাঁটি উদ্বোধনকালে কোস্টগার্ড সদস্যদের উদ্দেশে এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের সুবিশাল সমুদ্র রক্ষায় কোস্টগার্ড বিশেষ ভূমিকা পালন করবে। সমুদ্রে চোরাচালান রোধ, জলদস্যুতা নিয়ন্ত্রণ, মা ইলিশ ও জাটকা রক্ষায় কোস্টগার্ডের এ ঘাঁটি বিশেষ ভূমিকা পালন করবে। আন্তর্জাতিকভাবে ভৌগলিক দিক থেকে বঙ্গোপসাগরের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। ফলে বিপুল অর্থনৈতিক সম্ভাবনাময় এ ক্ষেত্রকে রক্ষায় কোস্টগার্ড খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের ভূ-খ-ের প্রায় সমপরিমাণ সমুদ্র এলাকা এবং এর সম্পদের ওপর আমাদের দাবি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এই সম্পদ আহরণসহ সমুদ্র এলাকায় সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করতে আমরা বিভিন্ন পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি। জাতির পিতার স্বপ্নে ‘ব্লু ইকোনমির ধারণাকে বাস্তব রূপ দিতে আমরা বদ্ধপরিকর। আমাদের সমুদ্রসম্পদ সঠিকভাবে ব্যবহারের জন্য প্রয়োজন সমুদ্র এলাকার সার্বিক নিরাপত্তা। আর এ জন্য প্রয়োজন একটি শক্তিশালী ‘আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী’। কোস্টগার্ডের মূলমন্ত্র হলো ‘সমুদ্রের অভিভাবক’। তাই বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের সম্প্রসারণ ও আধুনিকায়নের লক্ষ্যে আমরা বিভিন্ন কর্মসূচী বাস্তবায়ন করছি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, জাতীয় স্বার্থ সংরক্ষণ নদীমাতৃক বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ জলজসম্পদ সুরক্ষা এবং নদ-নদীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে একটি শক্তিশালী নিরাপত্তা ব্যবস্থা প্রয়োজন। এ ক্ষেত্রে কোস্টগার্ডের ভূমিকা অপরিসীম।

তিনি বলেন, বিগত বছরগুলোতে চট্টগ্রাম বন্দর ও বহির্নোঙ্গর এলাকায় বাণিজ্যিক জাহাজগুলোর নিরাপত্তায় বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের নিরাপত্তা বহির্বিশ্বে সমাদৃত। পটুয়াখালীতে নবনির্মিত পায়রা সমুদ্র বন্দরের নিরাপত্তা প্রদানেও কোস্টগার্ড অনন্য ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। সুন্দরবন এলাকায় জলদস্যুতা দমন, চোরাচালানবিরোধী অভিযান, জাটকা প্রতিরোধ এবং মা ইলিশ রক্ষায় কোস্টগার্ডকে আরও তৎপর হওয়ার আহ্বান জানান তিনি। মাদক ও মানবসম্পদ পাচার রোধেও কোস্টগার্ডের ভূমিকার প্রশংসা করেন তিনি। নতুন নতুন দায়িত্ব পালনে সক্ষম করে তুলতে কোস্টগার্ডকে একটি যুগোপযোগী বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

এদিকে বেলা ১১টায় পটুয়াখালী ‘সিজি বেইজ অগ্রযাত্রা’র উদ্বেধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমনের কথা থাকলেও দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে তিনি হেলিকপ্টারযোগে দুপুর দুইটায় অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মন্ত্রিপরিষদের একাধিক সদস্য, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সামরিক ও বেসামরিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে তিনি হেলিকপ্টারযোগে আবার ঢাকায় ফিরে যান।

প্রকাশিত : ১২ ডিসেম্বর ২০১৪

১২/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: