হালকা কুয়াশা, তাপমাত্রা ১৮.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

প্রীতি ফুটবলে জাপানকে মোকাবেলার প্রস্তুতি

প্রকাশিত : ১১ ডিসেম্বর ২০১৪

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ জাপানের দলটি হচ্ছে অনুর্ধ-২১ লেভেলের। তাদের মোকাবেলা করবে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। এক্ষেত্রে কি বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) উচিত ছিল না বাংলাদেশ অনুর্ধ-২১ বা ২৩ দল গড়া? জাপান এমনিতেই শক্তিশালী দল। এই দলটির কাছে বাংলাদেশ জাতীয় দল হেরে গেলে কি কিছুটা হলেও বিব্রতকর অবস্থার সৃষ্টি হবে না?

বাফুফে ভবনে যেদিন জাতীয় ফুটবল দলের ফুটবলাররা কোচ সাইফুল বারী টিটু এবং ম্যানেজার আমিরুল ইসলাম বাবুর কাছে রিপোর্টিং করে, সেদিন বাফুফে ভবনে ঠিক এই প্রশ্নটিই করা হয়েছিল নাসির উদ্দিন চৌধুরীকে। ক’দিন আগেই ভুটান থেকে শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাব লিমিটেডের হয়ে ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক হিসেবে জিতে এসেছেন মর্যাদাকর কিংস কাপের শিরোপা। একসময় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে খেলা সুঠামদেহী এ ডিফেন্ডার বলেন, ‘দেখুন, বাফুফে ২৩ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে, সেখানে ৩/৪ জন ছাড়া বাকি সবার বয়সই কিন্তু ২৩-এর মধ্যে। কাজেই এটা নির্দ্বিধায় বলাই যেতে পারে, এই বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলটি তারুণ্যনির্ভর। আমাদের জাতীয় দল ও অনুর্ধ-২৩ দলের মধ্যে বয়সের পার্থক্য খুঁজতে গেলে দেখবেন দুটো দলই প্রায় একই।’ জাপানের বিরুদ্ধে ড্র করতে পারলেই এটাকে সম্মানজনক রেজাল্ট হিসেবে মেনে নেবেন দলের দ্রোনাচার্য্য সাইফুল বারী টিটু। নাসির উদ্দিনও টিটুর সঙ্গে একমত। তবে গুরুর চেয়ে শিষ্যের চাওয়া বা আত্মবিশ্বাসটা আরেকটু বড়Ñ ‘ড্র হলে মন্দ হবে না। কিন্তু আমরা যেহেতু নিজেদের মাঠে ও চেনা পরিবেশে খেলব, সেক্ষেত্রে নিজেদের স্বাভাবিক খেলা খেললে জিততেও পারি। আশা করতে তো দোষ নেই।’

ভুটানে কিংস কাপ খেলতে যাওয়া ঢাকা আবাহনী লিমিটেড ও শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাবের খেলোয়াড়রা তো খেলার মধ্যেই ছিলেন। জাতীয় দলে ডাক পাওয়া ২৩ ফুটবলারদের মধ্যে জামালের খেলোয়াড়ই বেশি, ১২ জন। এর বাইরে মোহামেডান, মুক্তিযোদ্ধা ও শেখ রাসেলের খেলোয়াড়রাও আছেন। তাঁরা তো কোন প্রতিযোগিতামূলক খেলার মধ্যে ছিলেন না। তাহলে কোচ টিটুর কি তাদের ফিটনেস নিয়ে বেগ পেতে হবে না? ‘আমার তা মনে হয় না।’ নাসিরের জবাব, ‘তারা প্রতিযোগিতামূলক খেলার মধ্যে না থাকলেও নিজ নিজ ক্লাবের যে নিয়মিত অনুশীলন হয়, সেটাতে তো তারা সম্পৃক্ত ছিলেনই। তাই আমার মনে হয়, তাদের ফিটনেস নিয়ে কোচকে কোন ঝামেলা পোহাতে হবে না।’ ভারত, মালয়েশিয়া, নেপাল, শ্রীলঙ্কার পর এবার জাপানের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক প্রীতি ফুটবল ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। তাদের বিপক্ষে জাপান অনুর্ধ-২১ ফুটবল মুখোমুখি হবে ১৮ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে, বিকেল ৫টায়। এ উপলক্ষে আগামী ১৬ ডিসেম্বর ঢাকায় আসছে জাপান ফুটবল দল। এ লক্ষ্যে শনিবার ২৩ সদস্যের প্রাথমিক জাতীয় দল ঘোষণা করে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। এই ২৩ ফুটবলারকে নিয়ে সোমবার থেকে বাফুফে ভবনে শুরু হয় জাতীয় দলের ক্যাম্প। যদিও প্রথমে ঠিক ছিল বিকেএসপিতে হওয়ার। কিন্তু সময় স্বল্পতার কারণে সেই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হয়। মামুনুল ইসলাম ও জামাল ভুঁইয়া বাদে সবাই রিপোর্ট করেন। বাফুফে জানিয়েছে মামুনুলকে পাওয়ার বিষয়ে তারা চিঠি দিয়েছে এ্যাটলেটিকো ডি কলকাতাকে। আইএসএলের সেমিফাইনালে ওঠায় মামুনুলকে জাপানের বিপক্ষে ম্যাচে পাওয়া একটু কঠিন। তার সঙ্গে কলকাতার চুক্তি ২০ ডিসেম্বর পর্যন্ত ঠিক সেদিনই আইএসএলের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হবে। তবে মামুনুল ইসলাম জানিয়েছেন, তিনি ১৫ ডিসেম্বর ক্যাম্পে যোগ দিতে যাচ্ছেন। যেহেতু এখনও কলকাতার জার্সি গায়ে মাঠে পা রাখেননি, তাই দেশের হয়েই খেলতে ব্যাকুল হয়ে আছেন। আর ঢাকায় ড্যানিশ দূতাবাসে ভিসা সংক্রান্ত জটিলতার জন্য জামাল ভুঁইয়া সময় মতো উপস্থিত হতে পারেনি। ক্যাম্পে বাংলাদেশ দলে নিয়মিত সব ফুটবলারই রয়েছেন। বাদ পড়েছেন দু’জন। ইউসুফ সিফাত ও আতিকুর রহমান ফাহাদ। তাদের পরিবর্তে দলে ঢুকেছেন আতিকুর রহমান মিশু ও সাখাওয়াত হোসেন রনি।

প্রকাশিত : ১১ ডিসেম্বর ২০১৪

১১/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: