আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

তিন দিন পর খোয়া রাইফেলটি পাওয়া গেছে ॥ কারারক্ষী আটক

প্রকাশিত : ১১ ডিসেম্বর ২০১৪
  • কাশিমপুর কারাগার

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাজীপুর, ১০ ডিসেম্বর ॥ গাজীপুরের কাশিমপুর হাইসিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারের অস্ত্রাগার থেকে খোয়া যাওয়া চাইনিজ রাইফেলটি তিন দিন পর একটি ক্ষুদে বার্তার সূত্র ধরে বুধবার জেলখানার একটি পুকুর থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত আরিফুল ইসলাম (২৫) নামের এক কারারক্ষীকে কর্তৃপক্ষ আটক করেছে। তার বাড়ি মৌলভীবাজার জেলায়। অস্ত্র খুঁজে পাওয়ায় অন্য এক কারারক্ষীকে ১০ হাজার টাকা পুরস্কৃত করেছে কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় ইতোমধ্যে দু’টি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

তদন্ত কমিটির প্রধান ডিআইজি (প্রিজন) মোঃ বজলুর রহমান জানান, বুধবার সকালে কারাগারের জেলার জান্নাতুল ফরহাদের মোবাইলে খোয়া যাওয়া অস্ত্রের খোঁজ জানিয়ে মৌলভীবাজার জেলা এলাকার একটি মোবাইল (বাংলা লিংকের নম্বর) থেকে একটি ক্ষুদে বার্তা আসে। এ বিষয়টি তদন্ত কমিটিকে জানানো হয়। পরে ওই বার্তার সূত্র ধরে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে খোয়া যাওয়া অস্ত্রের সন্ধানে কারাগারের ব্যারাকসংলগ্ন পশ্চিম পাশের একটি পরিত্যক্ত পুকুরে ২৫-৩০ কারারক্ষীকে তল্লাশির জন্য নামানো হয়। তল্লাশির একপর্যায়ে ওই পুকুরেই খোঁয়া যাওয়া চাইনিজ রাইফেলটি খুঁজে পান আল আমিন নামে এক কারারক্ষী। রাইফেলটি উদ্ধারের পর তাৎক্ষণিকভাবে কারারক্ষী আল আমিনকে পাঁচ হাজার টাকা করে মোট ১০ হাজার টাকা পুরস্কার দেন কর্তৃপক্ষ গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান ডিআইজি মোঃ বজলুর রহমান এবং হাইসিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারের সুপার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। অস্ত্র উদ্ধারের পর হাইসিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে কর্মরত মৌলভীবাজার জেলার সকল কারারক্ষীকে জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে কারারক্ষী আরিফুল ইসলাম (২৫) ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। পরে তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদকালে কর্তৃপক্ষকে সে জানায় মৌলভীবাজার এলাকার তার এক ভাগ্নের মোবাইলের মাধ্যমে ওই বার্তাটি পাঠানো হয়েছিল। তবে কেন বা কী কারণে সে অস্ত্রটি লুকিয়েছিল সে ব্যাপারে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। আরিফুল ইসলাম ২০০৮ সালে চাকুরিতে নিয়োগ পায়। সে গত ২০১২ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি হতে এ কারাগারে কর্মরত আছে।

হাইসিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারের সুপার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান জানান, সরকার ও কারাগারের বর্তমান সুশৃঙ্খল নানা কার্যক্রমকে ব্যাহত করতে একটি মহল ষড়যন্ত্র করে এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে এ ব্যাপারে ব্যাপক তদন্ত চলছে। অস্ত্র খোয়া যাওয়ার ঘটনায় ইতোমধ্যে কারাগারের তিন কারারক্ষীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

বরখাস্তকৃতরা হলেনÑ কারারক্ষী মোঃ সিরাজ হাওলাদার, তৌহিদুল ইসলাম ও এহসানুল হক।

প্রকাশিত : ১১ ডিসেম্বর ২০১৪

১১/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: