কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

হে আল্লাহ আমাকে একবার ক্ষমতায় বসান, স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি দেব ॥ এরশা

প্রকাশিত : ৯ ডিসেম্বর ২০১৪

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দেশে এখন স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি নেই বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তিনি বলেছেন, দেশে প্রতিদিনই সড়ক দুর্ঘটনাসহ নানা কারণে মানুষ মারা যাচ্ছে। গতকাল সড়ক দুর্ঘটনায় তিনটি মেয়ে মারা গেল। আজ মাগুরায় মারা গেল। প্রতিদিনই এখন শোক দিবস। দেশে এখন স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি নেই।

সোমবার এরশাদের বনানী কার্যালয়ে জাতীয় পার্টি ঢাকা মহানগর উত্তর আয়োজিত দলটির প্রয়াত প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর মোহাম্মদ আদেলের শোকসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।

নিজ দলের মধ্যে বিভক্তি আর সঙ্কটের শেষ না থাকলেও ফের ক্ষমতায় আসার স্বপ্নে বিভোর এক সময়ের স্বৈরশাসক হিসেবে খ্যাত এরশাদ। এখন প্রায় প্রতিটি অনুষ্ঠানেই ক্ষমতায় আসার কথা বলছেন তিনি। দেশের মানুষকে দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি। শান্তি, সুখ আর সন্ত্রাসমুক্ত সোনার বাংলা গড়ে তোলার কথা বলছেন বারবারই। নিজেই হিসেব দিচ্ছেন আগামীতে কতটি আসন পাবেন তিনি। কখনও বলছেন ১৫১ আবার কখনও বলছেন দুই শতাধিক আসন পাওয়ার!

স্মরণ সভায় এরশাদ আরও বলেন, এখন মৃত্যু আমাদের নাড়া দেয় না। মানুষের প্রতি মানুষের প্রেম-ভালবাসা নেই। দয়া নেই। এখন শিক্ষকরাও মারা যাচ্ছেন। অবস্থার প্রতিদিন অবনতি হচ্ছে। এরশাদ বলেন, হে আল্লাহ! আপনি আমাকে জীবনের শেষ সময়ে একবার দেশ পরিচালনার সুযোগ দিন। আমি দেশে শান্তি দেব। স্বাভাবিক মৃত্যুর নিশ্চয়তা দেব।’

ক্ষমতায় থাকতে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে যোগ দিয়ে পুলিশের গুলিতে মারা গিয়েছেন নূর হোসেন। সেই থেকে এ দিনটিকে নূর হোসেন দিবস হিসেবে পালন করা হচ্ছে। এরশাদ নূর হোসেনের মৃত্যু প্রসঙ্গে বলেন, ‘এখন নূর হোসেনকে নিয়ে কত কথা হয়। অথচ নূর হোসেনের জায়গায় একটা স্মৃতিসৌধও কেউ তৈরি করেনি। রাস্তায় সবাই ফুল দেয়। এই জিরো পয়েন্ট তো আমার তৈরি। আমার তৈরি জায়গায় সবাই ফুল দেয়।

এরশাদ বলেন, এখন তো প্রতিদিনই এই ঘটনা ঘটছে। নির্বিচারে মানুষকে হত্যা করা হচ্ছে। অস্বাভাবিক মৃত্যু হচ্ছে দেশজুড়ে। সেদিক বিবেচনা করলে এখন প্রতিদিনই শোক দিবস। প্রতিদিনই নূর হোসেন দিবস। এখন যেসব হত্যাকা- ঘটছে এ নিয়ে কোন দিবস পালন হয় না। কেউ নামও উচ্চারণ করে না। কিন্তু আমার বিরুদ্ধে রাজনৈতিক কারণে সমালোচনা জিইয়ে রাখা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এরশাদ বলেন, আমি কী কাপড় পরি, এটা নিয়ে সমালোচনা হয়। আমি কবিতা লিখি, এটা নিয়ে সমালোচনা হয়। কেন? কবিতা লেখা কি অপরাধ। আমি কি কবিতা লিখতে পারব না? আগে প্রতিদিন রাতে ডায়েরি লিখতাম। বউকে চিঠি লিখতাম। কত ব্যথা মনে। এখন মানুষের প্রতি মানুষের ভালবাসা নেই। আমি মানুষকে ভালবেসে রাজনীতি করি। যতদিন রাজনীতির মাঠে আছি, থাকব ততদিন মানুষের কথা বলে যাব। মানুষের পাশে দাঁড়াব। মানুষের দুঃখের সময় কথা বলব। মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য জাতীয় পার্টির সংগ্রাম চলবেই।

এরশাদ বলেন, দেশের মানুষ এখন জাতীয় পার্টিকে চায়। তারা স্বর্ণযুগে ফিরতে চায়। শান্তিতে থাকতে, ঘুমাতে চায়। মানুষ মনে করে জাতীয় পার্টি ছাড়া শান্তি ফিরবে না। কারণ জাতীয় পার্টির আমলে দেশে সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ, চাঁদাবাজি, টেন্ডার, দলীয়করণ এর কোন কিছুই ছিল না। এখন সবই হচ্ছে। খুন আর গুমে মানুষ সব সময় আতঙ্কে থাকে। চলছে রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন। কেউ কারও ভাল সহ্য করতে পারে না। এসব থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। বিকেলে রাজধানীর বাংলাবাজার এলাকায় একটি গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন এরশাদ। সেখানেও চলমান রাজনীতি, নির্বাচনসহ দেশের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন তিনি।

জাতীয় পার্টি ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি এস এম ফয়সল চিশতীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেনÑ জাপার মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, এম এ হান্নান এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভ রায়, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব এ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, যুগ্ম-মহাসচিব বাহাউদ্দিন বাবুল, নুরুল ইসলাম নুরু প্রমুখ।

প্রকাশিত : ৯ ডিসেম্বর ২০১৪

০৯/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: