মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

অন্যরকম কারি অস্কার এ্যাওয়ার্ড

প্রকাশিত : ৮ ডিসেম্বর ২০১৪

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে (পহেলা ডিসেম্বর সোমবার ২০১৪ বাংলাদেশ সময় রাত ১২টা এবং লন্ডন সময় সন্ধ্যা ৬টায়) লন্ডন শহরের বেটারসি এভ্যুলশন এ অনুষ্ঠিত হলো কারি অস্কার খ্যাত ‘ব্রিটিশ কারি এ্যাওয়ার্ডস-২০১৪’। এটি ‘ব্রিটিশ কারি এ্যাওয়ার্ডস’ এর দশম আসর। এবারও বাংলাদেশী মালিকানাধীন রেস্টুরেন্টগুলো জয়জয়কার ছিল। মোট ১৩টি এ্যাওয়ার্ডের মধ্যে এবার মোট সাতটি বিভাগে বিজয়ী হন বাংলাদেশী কারি রেস্টুরেন্ট মালিকরা। এর মধ্যে এবার লাইফ টাইম এ্যাওয়ার্ড পান বাংলাদেশী কারি ব্যবসায়ী আলহাজ সামসুদ্দিন খান। যিনি ‘মহারানী’ রেস্টুরেন্টের মধ্য দিয়ে যুক্তরাজ্যের কারি শিল্পে অনেক অবদান রাখেন। আলহাজ সামসুদ্দিন খান যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা কমিটির সভাপতি।

এদিকে সরাসরি ভিডিও বার্তায় এবারের লাইফ টাইম এচিভম্যান্ট এ্যাওয়ার্ডের ঘোষণা দেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ড্যাভিড ক্যামেরুন। অন্যদিকে অনুষ্ঠানে সরাসরি উপস্থিত ছিলেন ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তেরেসা মে। তেরসা মে তাঁর বক্তব্যে বলেনÑ ব্রিটেনের অন্যতম বৃহৎ ব্যবসা সেক্টর কারি ইন্ডাস্ট্রিকে এ পর্যন্ত নিয়ে আসার পেছনে অভিবাসীদের অবদান অনস্বীকার্য। তবে এখন আর শুধু অভিবাসীদের ওপর নির্ভর করলে চলবে না, ব্রিটেনেই এখন থেকে দক্ষ শেফ তৈরি করতে হবে। ব্রিটেনে কারি ইন্ডাস্ট্রির অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতেই এটি এখন সময়ের দাবি।

এদিকে ব্রিটেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এমন বক্তব্যকে সাধুবাদ জানিয়েছেন ‘ব্রিটিশ কারি এ্যাওয়ার্ডস’ এর প্রতিষ্ঠাতা এনাম আলী এমবিই। তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, এটা ঠিক এখন সময় এসেছে ব্রিটেনের নতুন প্রজন্মের মধ্য থেকে দক্ষ কারি শেফ গড়ে তোলা। এদিকে বাংলাদেশে ভিসা অফিস আবারও চালু করার দাবি নিয়ে এনাম আলী এমবিই বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে ব্রিটেনের সম্পর্ক খুব পুরনো এবং বন্ধুত্বপূর্ণ। সেই সুবাদে কারি শিল্পের মধ্য দিয়ে ব্রিটেনের অর্থনীতিতে অনেক সাপোর্ট দেয়ার সুযোগ পেয়েছি আমরা। অথচ হুট করেই বাংলাদেশের ভিসা অফিস বন্ধ হয়ে গেল। যার ফলে ব্রিটেনের সঙ্গে বাংলাদেশের ভিসা আদান-প্রদানের জন্য দৌড়াতে হচ্ছে ভারতে। আমি চাই ঢাকায় আবারও ব্রিটেনের ভিসা অফিস চালু করা হোক। প্রয়োজনে আমরা ভিসা ফি বাড়িয়ে দেব। এদিকে জমকালো এই অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেনÑ ‘ব্রিটিশ কারি এ্যাওয়ার্ডস’ এর প্রযোজক-পরিচালক জাস্টিন আলী।

‘কারি অস্কার’ খ্যাত এই আসরে এবার লাইফ টাইম এচিভমেন্ট এ্যাওয়ার্ড ছাড়াও প্রদান করা হয় আরও ১২টি পুরস্কার। এরমধ্যে এবার লন্ডন সেন্ট্রাল এ্যান্ড সিটি বিভাগে পুরস্কার জিতেছে ‘দ্য সিনামন ক্লাব’ রেস্টুরেন্ট। লন্ডন সাবার্বস বিভাগে ‘সাম্পান থ্রি উইলিং’। সাউথ ইস্ট বিভাগে ‘মালিকস’, সাউথ ওয়েস্ট বিভাগে ‘মিরিস্টিকা’, নর্থ ইস্ট বিভাগে ‘আগ্রা মিডপয়েন্ট’, নর্থ ওয়েস্ট বিভাগে ‘ব্লু টিফিন’, মিডল্যান্ডস বিভাগে ‘মেম সাব’, ওয়ালস বিভাগে ‘রসই ইন্ডিয়ান কিচেন’ এবং স্কটল্যান্ড বিভাগে ‘লাইট অব ব্যঙ্গল’। এছাড়া বিশেষ পুরস্কার পেয়েছে ক্যাজুয়াল ডাইনিং বিভাগে ‘ডিসুম কভেন্ট গার্ডেন’, নিউকামার বিভাগে ‘ফাইভ রিভার্স এ লা কার্ট’ এবং বেস্ট ডেলিভারি বিভাগে পেয়েছে ‘চিলি পিকল’ রেস্টুরেন্ট।

বাংলাদেশে জন্মগ্রহণকারী এনাম আলী এমবিই ২০০৫ সালে ‘ব্রিটিশ কারি এ্যাওয়ার্ডস’ চালু করেন। যুক্তরাজ্যের মেইন স্ট্রিম মিডিয়া তথা কারি বিশ্বে এনাম আলীর পরিচিতি ‘কারি কিং’ হিসেবে। যিনি গত প্রায় তিন দশক ধরে যুক্তরাজ্যের কারি শিল্পকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতে অক্লান্ত প্রয়াস চালিয়ে আসছেন।

‘ব্রিটিশ কারি এ্যাওয়ার্ডস’ এর এবারের আয়োজনের স্পন্সর প্রতিষ্ঠান হিসেবে ছিল জাস্টইট, ওটু, ইউরোফুড এবং কিংফিসার। আর পুরো আয়োজনটির টিভি পার্টনার হিসেবে ছিল কালারস ইন্ডিয়া। অন্যদিকে বাংলাদেশে ‘ব্রিটিশ কারি এ্যাওয়ার্ডস-২০১৪’ এর গণযোগাযোগ পার্টনার হিসেবে কাজ করছে ঢুলি কমিউনিকেশনস।

যাপিত ডেস্ক

প্রকাশিত : ৮ ডিসেম্বর ২০১৪

০৮/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: