কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রোনাল্ডোর সর্বোচ্চ হ্যাটট্রিক ও ‘২০০’ গোলের অনন্য কীর্তি

প্রকাশিত : ৮ ডিসেম্বর ২০১৪

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ তাঁকে নিয়ে মাতামাতি সবসময়। সেটা কারণে কিংবা অকারণে। স্বভাব অনেকটাই ফুটবল কিংবদন্তি দিয়াগো ম্যারাডোনার মতো। মিডিয়ার আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে থাকা। ফুটবলে নামডাকের কমতি নেই; রূপটাও আগুন ঝড়ানো। তাই তো মুহূর্তেই সুন্দরী রমণীরা তার বাহুডোরে আস্তানা গাড়তে ভিড় জমায়। ২০০৬ সালের বিশ্বকাপে এই তরুণের উদ্ভাসিত নৈপুণ্যে ওপর ভর করে চতুর্থ স্থান অর্জন করেছিল পর্তুগীজরা। এরপর রিয়াল মাদ্রিদ তাঁকে দলে ভেড়ায় ট্রান্সফারের ইতিহাস গড়ে। অর্থাৎ ২০০৯ সালের জুনে ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানইউ থেকে রেকর্ড ৯৪ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে গ্যালাক্টিকোরা তাঁকে দলে ভেড়ায়। সান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে এসে পারফর্মেন্সটা আরও ক্ষুরধার হয়ে ওঠে রোনাল্ডোর। বিশেষ করে গত মৌসুম থেকে যেন সবাইকে ছাড়িয়ে যাওয়ার পণ করেছেন। চলমান মৌসুমেও আছেন অপ্রতিরোধ্য ছন্দে। ভাঙছেন আর গড়ছেন একের পর এক রেকর্ড। এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার আরও দুটি গৌরবময় রেকর্ড গড়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। স্প্যানিশ লা লিগায় সেল্টা ভিগোর বিরুদ্ধে রিয়াল মাদ্রিদের ৩-০ গোলের জয়ে হ্যাটট্রিক করেন বর্তমান ফিফা সেরা ফুটবলার। স্পেনের শীর্ষ লীগে সি আর সেভেনের এটি সর্বোচ্চ ২৩তম হ্যাটট্রিক। তিনি ভেঙ্গে দিয়েছেন সাবেক দুই কিংবদন্তি আলফ্রেডো ডি স্টেফানো ও টেলমো জারার ২২টি করে হ্যাটট্রিকের রেকর্ড। শুধু তাই নয়, রিয়ালের হয়ে লা লিগায় ‘২০০’ গোলের মাইলফলকও ছুঁয়েছেন পর্তুগাল অধিনায়ক। রেকর্ডময় রাতে অসাধারণ রেকর্ডের সঙ্গী হয়েছে রিয়ালও। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে পরশু টানা ১৮ জয় পেয়েছে রিয়াল। অর্থাৎ টানা জয়ের নতুন রেকর্ড গড়েছে কার্লো আনচেলোত্তির দল। এর আগে ফ্রাঙ্ক রাইকার্ডের বার্সিলোনা ২০০৫-০৬ মৌসুমে টানা ১৮ ম্যাচ জিতেছিল। ১৮ জয়ের মধ্যে লা লিগায় টানা ১১ ম্যাচ জিতেছে রিয়াল। ৫ ম্যাচ চ্যাম্পিয়ন্স লীগে আর বাকি দুটি জয় স্প্যানিশ কোপা ডেল’রেতে। গত ১৩ সেপ্টেম্বর ঘরের মাঠ সান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের কাছে সর্বশেষ হেরেছিল ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিনরা। রোনাল্ডো ও রিয়ালের রেকর্ড গড়া রাতে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষস্থান আরও মজবুত করেছে সাবেক চ্যাম্পিয়নরা। ১৪ ম্যাচে রিয়ালের পয়েন্ট সর্বোচ্চ ৩৬। রবিবার রাতে বার্সিলোনার ম্যাচের আগে সমান খেলায় ৩২ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে বর্তমান শিরোপাধারী এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। এ্যাওয়ে ম্যাচে দিয়াগো সিমিওনের দল ২-০ গোলে পরাজিত করে স্বাগতিক এলচেকে। বিজয়ী দলের হয়ে গোল দুটি করেন উরুগুয়ের গিমেনেজ ডি ভারগাস ও ক্রোয়েশিয়ান তারকা মারিও মানদুকিচ। সান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে রোনাল্ডোর জোড়া রেকর্ড ও রিয়ালের রেকর্ডের রাতে স্পষ্ট প্রাধান্য ছিল আনচেলোত্তি বাহিনীর। শুরু থেকে আক্রণাত্মক ফুটবল খেললেও অবশ্য গোলের জন্য আধাঘণ্টারও বেশি অপেক্ষা করতে হয় স্বাগতিকদের। ৩৬ মিনিটে কাক্সিক্ষত গোল পায় রিয়াল। এ সময় বল পায়ে দ্রুত ডি বক্সে ঢুকে পড়া রোনাল্ডোকে অতিথিদের এক ডিফেন্ডার পেছন থেকে বাধা দিলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। স্পট কিক থেকে রিয়াল ও নিজের প্রথম গোল করেন পর্তুগীজ তারকা। তবে পেনাল্টি আদায়ে রোনাল্ডো নাকি ডাইভের ভান করেছিলেন! বিরতির পর ৬৫ মিনিটে ফের রোনাল্ডোর নৈপুণ্যে ব্যবধান দ্বিগুণ করে রিয়াল। ডি বক্সের মধ্যে থেকে ভলি করে বল জালে পাঠাতে ভুল করেননি রিয়ালের সবচেয়ে সফল তারকা। ৮১ মিনিটে ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার মার্সেলোর পাস পেয়ে ডান পায়ের শটে রেকর্ড হ্যাটট্রিক পূরণ করেন রোনাল্ডো। পাশাপাশি লা লিগায় লস ব্লাঙ্কসদের হয়ে ১৭৮ ম্যাচে ২০০ গোল করে গ্রেটদের পাশে নাম লিখিয়েছেন আধুনিক ফুটবলের মহাতারকা। আর মাত্র ২৯ গোল করলেই রাউল গঞ্জালেসকে পেছনে ফেলে রিয়ালের হয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতা হবেন রোনাল্ডো। রাউল লা লিগায় রিয়ালের হয়ে ২২৮ গোল করেন। বর্তমানে লা লিগায় ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ গোলের দৌড়ে রোনাল্ডোর অবস্থান নয় নম্বরে। ২৫৩ গোল করে সবার উপরে আছেন বার্সিলোনার লিওনেল মেসি। দুই ও তিন নম্বরে আছেন যথাক্রমে টেলমো জারা (২৫১) ও হুগো সানচেজ (২৩৪)। অসাধারণ কীর্তিগাথার পর কোচ ও সতীর্থদের প্রশংসায় ভাসছেন রোনাল্ডো। ম্যাচ শেষে রিয়াল কোচ কার্লো আনচেলোত্তি বলেন, রোনাল্ডোর মতো বিশ্বমানের ফুটবলারকে দলে পাওয়াটা বিশেষ কিছু। সে মাদ্রিদের জন্য অপরিহার্য এবং তার উপস্থিতিতে আক্রমণভাগ বাড়তি সুবিধা পায়। ইতালিয়ান কোচ আরও বলেন, রোনাল্ডো এ মুহূর্তে দুর্দান্ত ফর্মে আছে। সে দলে থাকলে একটি বাড়তি সুবিধা বয়ে আনে। মাঠে সে অসাধারণ ফুটবল খেলে এবং দলের জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। সতীর্থ সার্জিও রামোস বলেন, রোনাল্ডো যে সব রেকর্ড একে একে নিজের করে নিচ্ছে, তা অবিশ্বাস্য। সত্যিকার অর্থে রোনাল্ডোর অর্জনগুলো বর্ণনা করতে নতুন নতুন শব্দের উদ্ভাবন দরকার। তার মতো একজন ফুটবলারকে দলে রাখতে পেরে রিয়াল মাদ্রিদ গর্ব বোধ করে।

প্রকাশিত : ৮ ডিসেম্বর ২০১৪

০৮/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: