মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রাজশাহীতে অবৈধ ক্লিনিক সিলগালা ॥ পরিচালকের জেল

প্রকাশিত : ৭ ডিসেম্বর ২০১৪
  • চিকিৎসার নামে প্রতারণা

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ চিকিৎসার নামে প্রতারণার অভিযোগে রাজশাহীতে ‘এশিয়ান ক্লিনিক’ নামের একটি অবৈধ ক্লিনিকের পরিচালককে ৬ মাসের জেল ও ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ২ মাসের জেল দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। শনিবার বিকেলে ওই ক্লিনিকে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালায়। এসময় ক্লিনিকের পরিচালক রিয়াজ তালুকদারকে আটকের পর ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মর্তুজা আল মঈদ এ সাজা দেন।

পুুলিশ জানায়, রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল থেকে দালালের মাধ্যমে রোগী ভাগিয়ে ওই ক্লিনিকে নিয়ে আসা হতো। সেখানে রোগী নেয়া হলে চিকিৎসার নামে অনেক টাকা হাতিয়ে নেয় ক্লিনিকের পরিচালক রিয়াজ তালুকদার।

সর্বশেষ বৃহস্পতিবার রামেক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য চার বছরের শিশু তৌহিদকে তার অভিভাবকরা চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসে। তৌহিদ নওগাঁ জেলার পতœীতলা থানার চৌরট এলাকার মমতাজের ছেলে। খেলার সময় শিশু তৌহিদের গলায় দুই টাকার কয়েন আটকে যায়। এরপরে তাকে রামেক হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। পরের দিন শুক্রবার মাহফুজ নামে এক দালাল তাদের ১৫ হাজার টাকায় অপারেশনের কথা বলে এশিয়ান ক্লিনিকে নিয়ে যায়। মমতাজ তার ছেলেকে নিয়ে শুক্রবার সকাল ১০টায় মাহফুজের প্ররোচনায় এশিয়ান ক্লিনিকে আসেন। দুপুর ১২টায় তার অপারেশন করা হয়। অপারেশনের পরে রোগীর অবস্থা খারাপ হতে থাকে। শনিবার সকালে ক্লিনিকের পরিচালক কোন চিকিৎসা দিতে না পারলে রোগীর অভিভাবকরা সিদ্ধান্ত নেয় আবার রামেক হাসপাতালে নিয়ে যায়ার। তবে মমতাজের কাছ থেকে ওই ক্লিনিকের পারিচালক ৭ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন। ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ ওই টাকা ফেরত দিতে অস্বীকার করলে রোগীর অভিভাবক বিষয়টি থানায় জানান।

ভ্রাম্যমাণ আদালতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মর্তুজা আল মঈদ জানান, ক্লিনিকটির কোন বৈধতা নেই। এমনকি প্রস্তাবনার কাগজও নেই। ক্লিনিকটি রোগীদের সঙ্গে যাতে প্রতারণা করতে না পারে সে জন্য সিলগালা করে দেয়া হয়েছে।

প্রকাশিত : ৭ ডিসেম্বর ২০১৪

০৭/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: