হালকা কুয়াশা, তাপমাত্রা ১৮.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বঙ্গোপসাগরে ২৬ নাবিকসহ ডুবে যাওয়া ট্রলার উদ্ধার কাজ পরিত্যক্ত

প্রকাশিত : ৬ ডিসেম্বর ২০১৪
  • বঙ্গোপসাগরে ২৬ নাবিকসহ ডুবে যাওয়া ট্রলার উদ্ধার কাজ পরিত্যক্ত

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ বঙ্গোপসাগরে ২৬ নাবিকসহ ডুবে যাওয়া ট্রলারটির উদ্ধার কাজ গুটিয়ে ফেলেছে নৌবাহিনী। আনুষ্ঠানিক কোন ঘোষণা না দিলেও উদ্ধার কাজে অংশ নেয়া ডুবুরি দল ও নৌবাহিনীর জাহাজগুলো ঘটনাস্থল থেকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে বৃহস্পতিবার। ফলে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না হলেও ২৬ নাবিকের উদ্ধার কাজ পরিত্যক্তই বলা যায়।

উল্লেখ্য, গত ২৮ নবেম্বর সেন্টমার্টিন দ্বীপের ২৮ নটিক্যাল মাইল দূরে গভীর সমুদ্রের এলিফ্যান্ট পয়েন্টে একটি বাণিজ্যিক জাহাজের ধাক্কায় এফভি বন্ধন নামের একটি ফিশিং ট্রলার ২৯ নাবিক নিয়ে ডুবে যায়। ডুবে যাওয়ার পর নাবিকদের ২ জনকে জীবিত ও ১ জনকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। ওই দিন দুপুর থেকে নৌবাহিনী ও কোস্টগার্ড জাহাজ উদ্ধার কাজে অংশ নেয়। পরবর্তীতে উদ্ধার কাজ জোরালো করা হয়। বিপুলসংখ্যক ডুবুরি দল পাঠানো হয়। টানা ৬ দিন ডুবুরিদের আপ্রাণ চেষ্টার পরও নিখোঁজ ২৬ জনের কাউকে এবং ট্রলারটিকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

শুক্রবার নৌবাহিনী সূত্র জানায়, সমুদ্রে যে কোন ধরনের দুর্ঘটনা ঘটলে তা তাদের রুটিন কাজের অংশ হয়ে দাঁড়ায়। এটিও ছিল সে ধরনের একটি কাজ। নৌবাহিনী সব ধরনের লজিস্টিক সাপোর্ট প্রয়োগ করার পরও ডুবুরিরা প্রায় ১২০ ফুট গভীরে তলিয়ে থাকা ট্রলারটির অভ্যন্তরে প্রবেশ করতে পারেনি। তবে এটিকে চিহ্নিত করে রাখা হয়েছে। সূত্রে আরও জানা গেছে, ট্রলারটি প্রতিনিয়ত কাদা মাটির নিচে দেবে যাচ্ছে। আর মাছ ধরার জালে পেঁচিয়ে রয়েছে। ডুবুরিরা শত চেষ্টা করেও ট্রলারটির কেবিন পর্যন্ত পৌঁছাতে পারেনি। যে কারণে কোন কেবিনের দরজা খোলাও সম্ভব হয়নি। আর এ কেবিন অভ্যন্তরে ঘুমন্ত অবস্থায় ছিলেন ২৬ নাবিক। যাদের এখন সলিল সমাধি হয়েছে বলে নিশ্চিত করা যায়।

প্রকাশিত : ৬ ডিসেম্বর ২০১৪

০৬/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: