মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ঘুরে দাঁড়াল ইংল্যান্ড, তবু সন্তুষ্ট হতে পারছেন না কুক

প্রকাশিত : ৫ ডিসেম্বর ২০১৪
  • পরাজয়ের জন্য দলের বাজে ফিল্ডিংকে দায়ী করলেন ম্যাথুস

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ টনা দুই ম্যাচে হারের পর অবশেষে ঘুরে দাঁড়িয়েছে ইংল্যান্ড। সাত ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হাম্বানটোটায় তৃতীয় ম্যাচে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাকে বৃষ্টি আইনে ৫ উইকেটে হারিয়েছে তারা। এখনও লঙ্কানরা এগিয়ে ২-১ ব্যবধানে। দল জিতলেও তেমন খুুশি হতে পারেননি ইংলিশ অধিনায়ক এ্যালিস্টার কুক। তিনি মনে করেন সহজ জয়টাকে কঠিন করে জিতেছে দল। শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস মনে করেন বাজে ফিল্ডিংয়ের কারণে এ পরাজয় শিকার করতে হয়েছে দলকে। কারণ ব্যাটসম্যানরা লড়াকু একটি ইনিংসই গড়ে দিয়েছিলেন। বিশেষ করে মিডলঅর্ডারে লাহিরু থিরিমান্নের মাত্র ৪৭ বলে ৭ চারে করা ৬২ রানের সুবাদে ভাল একটি সংগ্রহ পেয়েছিল দল। সে জন্য তাঁর ভূয়সী প্রশংসাও করলেন ম্যাথুস। আগে ব্যাট করে শুরু থেকেই বিপদে পড়েছিল লঙ্কানরা। দারুণ বোলিং করেছেন দুই পেসার স্টিভেন ফিন ও ক্রিস ওকস। তাই দলীয় ৩১ রানের মধ্যেই তিনটি উইকেট খুঁইয়ে বসে স্বাগতিকরা। টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্তটা তাই মনে হচ্ছিল ভুল। তবে চতুর্থ উইকেটে অধিনায়ক এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ও কুমার সাঙ্গাকারার ৮৭ রানের জুটি ম্যাচে ফিরিয়ে আনে লঙ্কানদের। ম্যাথুস ৩৭ রানে ফিরে গেলেও পঞ্চম উইকেটে অভিজ্ঞ সাঙ্গাকারার সঙ্গে আরও ৩২ রান যোগ করেন থিরিমান্নে। সাঙ্গাকারা ৬৩ রান করে ফিরে যান। তবে থিরিমান্নে থামেননি। ব্যাট হাতে শুরু থেকেই তিনি ইংলিশ বোলারদের ওপর চড়াও হয়েছেন। রানের চাকা রেখেছেন গতিশীল। তাঁর ব্যাটিংয়ের কারণেই ৩৫ ওভারে নামিয়ে আনা ম্যাচে ৮ উইকেটে ২৪২ রানের বড় সংগ্রহ পায় লঙ্কানরা। আর সে কারণেই থিরিমান্নের ইনিংসটার প্রশংসা ঝরেছে ম্যাথুসের কণ্ঠে। তিনি বলেন, ‘দারুণ খেলেছেন তিনি। ওই পর্যায়ে তাঁর এমন ইনিংস আমাদের লড়াই করার মতো একটি সংগ্রহ দিয়েছে। প্রয়োজনীয় মুহূর্তে এমন ব্যাটিং যে কোন দলকেই বাঁচাতে পারে।’ তবে এই সংগ্রহটা খুব স্বল্প মনে হয়েছে ইংল্যান্ড ব্যাটিংয়ে নামার পর। উদ্বোধনী জুটিতেই ৮৪ রান তুলে ফেলেন কুক ও মঈন আলী। কুক ৩৪ রানে ফিরে গেলেও মাত্র ৪০ বলে ২ চার ও ৫ ছক্কায় ৫৮ রানের বিস্ফোরক একটি ইনিংস উপহার দেন মঈন। কিন্তু পরের দিকের ব্যাটসম্যানরা খুব বেশি আস্থা নিয়ে ব্যাট চালাতে পারেননি। আর সে কারণে দলের জয় পাওয়টা পরের দিকে বেশ কঠিন করে তুলেছিল। পরে জস বাটলারের ৩৭ বলে ৯ চারে করা অপরাজিত ৫৫ রানে জয়ের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে ইংল্যান্ড। শেষ পর্যন্ত ৩৩.৪ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২৩৬ রান তোলার পর বৃষ্টি নামলে খেলা বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তীতে ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে ইংল্যান্ডকে জয়ী ঘোষণা করা হয়। এর ফলে সিরিজে প্রথম জয়ের মুখ দেখল তারা। ব্যবধান কমিয়ে সিরিজে ২-১ করল ইংল্যান্ড। শুরুটা ভাল হলেও শেষটায় ব্যাটসম্যানদের দায়িত্ব-জ্ঞান ব্যাটিং ম্যাচকে কঠিন করে তুলেছিল। আর সেটাই কিছুটা যেন অসুন্তুষ্টিতে ফেলেছে অধিনায়ক কুককে। দলের জয়ে খুশি হলেও তিনি বলেন, ‘আমি দলের জয়ে অনেক খুশি। শেষ পর্যন্ত এ সফরে আমরা জিততে পারলাম। কিন্তু ব্যাটসম্যানরা বেশি সময় নিয়েছেন। বিশেষ করে পরের দিকে যারা ব্যাটিং করেছেন তাঁরা নিজেদের দায়িত্বটা ভালভাবে পালন করতে পারেননি। আরও আগেই আমাদের জিতে যাওয়া উচিত ছিল।’ সেøা-ওভার রেটের কারণে জরিমানা গোনার পাশাপাশি চতুর্থ ওয়ানডেতে খেলার ওপর নিষেধাজ্ঞাও পেয়েছেন কুক। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এটা খুব কঠিন ছিল। মাঠটা যথেষ্ট বড় এবং বলও সবখানেই যাচ্ছিল। সে কারণে ফিল্ডারদের বল ধরে পাঠাতে সময়টা বেশিই লেগেছে।’ অপরদিকে, ম্যাথুস দোষ দিলেন বোলারদের। সেই সঙ্গে ফিল্ডিংটাও মনঃপুত হয়নি তাঁর কাছে। তিনি বলেন, ‘স্পিনাররা নিজেদের মেলে ধরতে বেশ চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছেন। কারণ যথেষ্ট আর্দ্রতা ছিল। সেই সঙ্গে ফিল্ডিংয়ে আমরা খুব বাজে পারফর্মেন্স দেখিয়েছি। ক্যাচগুলো ঠিকমতো ধরতে পারিনি। বোলাররাও বাজে নৈপুণ্য দেখিয়েছেন এবং নো-বল করেছেন। এটাই আমাদের ম্যাচটাকে নিজেদের করতে দেয়নি।’

স্কোর ॥ শ্রীলঙ্কা ইনিংস-৩৫ ওভারে ২৪২/৮ (সাঙ্গাকারা ৬৩, থিরিমান্নে ৬২*, ম্যাথুস ৩৭; ওকস ৩/৪১, জর্ডান ২/৪৬)।

ইংল্যান্ড ইনিংস-৩৩.৪ ওভারে ২৩৬/৫ (মঈন ৫৮, বাটলার ৫৫*, রুট ৪৮, কুক ৩৪; ম্যাথুস ২/৩৪)।

ফল ॥ বৃষ্টি আইনে ইংল্যান্ড ৫ উইকেটে জয়ী।

প্রকাশিত : ৫ ডিসেম্বর ২০১৪

০৫/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: