আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন বিজনেস কাউন্সিল গঠন করা হবে

প্রকাশিত : ৩ ডিসেম্বর ২০১৪
  • জানালেন তোফায়েল

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ বাণিজ্য সম্প্রসারণ ও বিনিয়াগ বৃদ্ধিতে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন বিজনেস কাউন্সিল গঠন করা হবে বলে জানিয়েছেন, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেছেন, ইরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইইউ) বাংলাদেশ থেকে তৈরি পোশাকের পাশাপাশি ওষুধ, জাহাজ এবং আইসিটি আমদানি করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। বাংলাদেশী পণ্য আমদানি ও সহযোগিতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে বাংলাদেশস্থ ইউরোপিয়ান ইউনিয়নভুক্ত দেশসমূহের রাষ্ট্রদূত এবং সংশ্লিষ্ট চেম্বার অব কমার্সসমূহের ব্যবসায়িক নেতাদের সমন্বয়ে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন বিজনেস কাউন্সিল গঠন করা হবে।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী নিজ কার্যালয়ে বাংলাদেশে নবনিযুক্ত ইউরোপিয়ান ইউনিয়ানের রাষ্ট্রদূত পিয়ারি মেয়াওডনের সঙ্গে মতবিনিময় করে সাংবাদিকদের উদ্দেশে একথা বলেন। তিনি বলেন, ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য বৃদ্ধি পাবে এবং বাণিজ্যের ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা দূর করা সহজ হবে। ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন বাংলাদেশের বিশ্বস্ত বন্ধু। বাংলাদেশের বর্তমান মোট রফতানির ৩০ দশমিক ১৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। এর অর্ধেকের বেশি রফতানি হয় ইরোপিয়ান ইউনিয়নে। ভবিষ্যতে সেখানে রফতানি আরও বাড়বে। এ জন্য ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন সব ধরনের সহযোগিতা দিয়ে যাবে।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশ এবং ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন অর্থনৈতিক ও ব্যবসায়িক সহযোগিতা আরো বৃদ্ধি করতে আগ্রহী। বিশ্ববাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) সিদ্ধান্ত মোতাবেক ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন বাংলাদেশকে ডিউটি ফ্রি ও কোটা ফ্রি সুবিধা দিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের সঙ্গে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের অভিজ্ঞতা বিনিময় এবং বাণিজ্য ক্ষেত্রে যে কোন বিষয়ে সহযোগিতা প্রদান এবং অর্থনৈতিক কর্মকা- বৃদ্ধিতে আগ্রহী। তিনি বলেন, বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশ হলে তখন উন্নত দেশগুলো থেকে বাংলাদেশ জিএসপি প্লাস সুবিধা পাবে। বিশ্বব্যাংকসহ বিশ্বের সকল অর্থনৈতিক গবেষণা প্রতিষ্ঠানের জরিপে বলা হচ্ছে বাংলাদেশে সফলভাবে এগিয়ে যাচ্ছে।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশের ৬ষ্ঠ পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা মোতাবেক রফতানি পণ্য সংখ্যা বৃদ্ধি ও নতুন নতুন বাজার সৃষ্টির উদ্যোগকে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন স্বাগত জানিয়েছে। ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন এক্ষেত্রে বাংলাদেশকে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে। ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন বিশ্বাস করে সেখানে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক রফতানি আরো বৃদ্ধি পাবে। এদিকে বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগ-সিপিডি প্রসঙ্গে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, তাদের গবেষণার উদ্দেশ্য আছে। বিশ্বের সবাই যখন বলছে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, অর্থনৈতিক অবস্থা ভাল, তখন গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি নেগেটিভ কথা বলছে। বিশ্ব ব্যাংকসহ বিশ্বের বড় বড় প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ সম্পর্কে ভাল বলছে, তখন সিপিডি নেগেটিভ কথা বলছে। বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে দায়িত্ব বিদেশে দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি তুলে ধরা। আমরা যখন তা তুলে ধরছি, তখন কতকগুলো সংগঠন নেগেটিভ তুলে ধরছে।

প্রকাশিত : ৩ ডিসেম্বর ২০১৪

০৩/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: