কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সড়ক দুর্ঘটনার দায় নিতে কোন পক্ষই রাজি নয়

প্রকাশিত : ৩ ডিসেম্বর ২০১৪
  • তবে ২ দিনে ৩৮ হাজার ফিটনেস সনদ দেয়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সারাদেশে ২০ দিনে ৩৮ হাজার যানবাহনের ফিটনেস সনদ দেয়ার কথা জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ফিটনেসবিহীন গাড়ির বিরুদ্ধে সরকারের চলমান অভিযানের কারণে তা সংগ্রহ করেন মালিকরা, যা অন্য সময়ের চেয়ে দ্বিগুণ। মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর এলেনবাড়িতে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) কার্যালয়ে পরিবহন মালিক-শ্রমিক ও বিআরটিএ কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক যৌথ বৈঠকে তিনি এ তথ্য জানান।

এদিকে নাটোরের বড়াইগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনার জন্য দায়ী বাস ও চালককে এখনও চিহ্নিত করতে না পারায় বৈঠকে ক্ষোভ প্রকাশ করেন ওবায়দুল কাদের। অন্যদিকে খ্যাতিমান সাংবাদিক ও আন্তর্জাতিক বিশ্লেষক জগলুল আহ্মেদ যে বাসের চাপায় নিহত হয়েছেন সেটিরও এখন পর্যন্ত হদিস মেলেনি। সড়ক দুর্ঘটনায় জগলুল আহ্মেদ নিহত হওয়ার ঘটনায় আগামী রবিবার তদন্ত রিপোর্ট দেয়ার কথা জানানো হয় বৈঠকে। যদিও তিন কার্যদিবসের মধ্যে দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে গঠিত কমিটির রিপোর্ট দেয়ার কথা ছিল।

সড়ক দুর্ঘটনারোধে করণীয় ঠিক করতেই এ বৈঠকের আহ্বান করা হয়। দুর্ঘটনার জন্য মালিক-শ্রমিক-বিআরটিএ থেকে শুরু করে সর্বোপরি মন্ত্রীসহ কোন পক্ষই দায় নিতে রাজী নন। পুরো বৈঠকজুড়ে একে অপরের ওপর দায় চাপাতে দেখা যায়। সড়ক নিরাপত্তার স্বার্থে করণীয় ঠিক করতে গুরুত্বপূর্ণ কিছু বিষয় মন্ত্রী নিজেও এড়িয়ে যান। সর্বশেষ সড়ক দুর্ঘটনাসহ পরিবহন সেক্টরে সব সমস্যা চিহ্নিত করতে পরিবহন মালিক শ্রমিকসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে পৃথক পৃথকভাবে বৈঠক করতে বিআরটিএ চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দেন সড়ক পরিবহন মন্ত্রী। ধারাবাহিক এসব বৈঠকের পর মন্ত্রী সবার সঙ্গে কথা বলবেন বলে জানান। তবে সড়ক দুর্ঘটনারোধে করণীয় সম্পর্কে বেশকিছু পরামর্শ উঠে আসে সাংবাদিক, মালিকসহ শ্রমিক নেতাদের পক্ষ থেকে। তবে সমাধানের জন্য কোন সিদ্ধান্ত আসেনি এ বৈঠক থেকে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ফিটনেসবিহীন যানবাহনের বিরদ্ধে ২১ দিনের অভিযানে ১০ হাজার ৯৫৬টি মামলা হয়েছে। জরিমানা করা হয়েছে ৭৮ লাখ ৩২ হাজার টাকা আর কারাদ- দেয়া হয়েছে ৪৫ ব্যক্তিকে। এছাড়া ডাম্পিংয়ে পাঠানো হয়েছে ২৯৬টি যানবাহন। আর ব্যাটারি খুলে নেয়া হয়েছে হাজার হাজার ইজিবাইক, ব্যাটারিচালিত রিক্সা, নসিমন করিমনসহ ছোট ছোট অনুমোদনহীন যানবাহনের।

মন্ত্রী বলেন, বিআরটিএতে ম্যাজিস্ট্রেট দরকার ১১ জন। কিছুদিন আগে ছিলেন ৩ জন। যোগ হয়েছেন আরও দু’জন। তাঁদের সঙ্গে আরও একজন মহিলা ম্যাজিস্ট্রেট খুব শিগগিরই যোগ হবেন। আরও জনবল বাড়াতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে বলা হয়েছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, যানবাহনের ওভারলোডিং ঠেকাতে সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে ৩টি ‘ওয়েট স্কেল মেশিন’ বসনো হচ্ছে। এর মধ্যে একটি আগামী ৪ ডিসেম্বর সীতাকু-ে উদ্বোধন করা হবে। আরও দুইটির একটি ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের আউশকান্দিতে অপরটি রাঙ্গমাটিতে বসানো হচ্ছে। মন্ত্রী আরও বলেন, আগামী জানুয়ারি থেকে মহাসড়কের ১৪৪ দুর্ঘটনাপ্রবণ ব্ল্যাক স্পট সরলীকরণ করা হবে। এজন্য ১৬৫ কোটি টাকা বরাদ্দ পাওয়া গেছে। আগামী জানুয়ারি মাসে টেন্ডারের পর কাজ শুরুর কথা জানান তিনি। ঢাকা আরিচা মহাসড়কসহ ইতোমধ্যে ৮৩টি ব্ল্যাক স্পট সরলীকরণ করা হয়েছে।

নাটোর ট্রাজেডির প্রসঙ্গ তুলে মন্ত্রী বলেন, ‘নাটোরে যে গাড়িটি রাস্তার ওপর পড়ে যাওয়া লোকদের চাপা দিয়ে হত্যা করেছে সেই গাড়ির সন্ধান এখনও পাইনি। গাড়ির মালিক শ্রমিকদের তিনি অনুরোধ করে বলেন, গাড়িটি বের করে দেন এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। এ ব্যাপারে উদাসীনতা দেশের জন্য ক্ষতিকর।

প্রকাশিত : ৩ ডিসেম্বর ২০১৪

০৩/১২/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: