কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

বখাটের হুমকিতে ছাত্রীর স্কুলে যাওয়া বন্ধ

প্রকাশিত : ২৬ নভেম্বর ২০১৪
  • অভিযোগ করে বিপাকে পরিবার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার কোমরভাঙ্গি সরকারপাড়া গ্রামে বখাটে শহীদুল ইসলামের এ্যাসিড ছোড়ার হুমকিতে ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী স্কুলে যেতে পারছে না এক সপ্তাহ ধরে। তার দরিদ্র বাবা আবু বক্কর রৌমারী থানায় লিখিত অভিযোগ করলেও কোন লাভ হয়নি। অজ্ঞাত কারণে তদন্তকারী কর্মকর্তা বখাটের পরিবারের পক্ষ নিয়ে স্কুলছাত্রীর পরিবারকে মীমাংসা করার জন্য চাপ প্রয়োগ করছে। স্কুলছাত্রীর বাবা পুলিশে অভিযোগ করায়, বখাটের পরিবার ক্ষিপ্ত হয়ে স্কুলছাত্রীর পরিবারের ওপর বিধিনিষেধ জারি করেছে। দিনমজুর আবু বক্করকে গ্রামের কেউ যাতে কাজে না নেয়, এমন হুমকিতে পরিবারটি দিশেহারা হয়ে পড়েছে। রৌমারী উপজেলার কোমরভাঙ্গি সরকারপাড়া গ্রামের দিনমজুর আবু বক্করের কন্যা মমতাজ খাতুন কোররভাঙ্গি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী। স্কুলে যাতায়াতের পথে একই গ্রামের গোলাম হোসেনের পুত্র শহীদুল ইসলাম মেয়েটির পথ আটকে নানাভাবে উত্যক্ত করে, তাকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়। কিন্তু তার প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় গত ১৭ নবেম্বর ওই বখাটে ওই স্কুলছাত্রীর পথ আটকে এসিডে মুখ ঝলসে দেয়ার হুমকি দেয়। এরপর থেকে মেয়েটি স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দেয়।

কোমরভাঙ্গি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান বলেন, ‘আমি ঘটনাটি শুনেছি কিন্তু ছাত্রী মমতাজ আমার কাছে আসেনি। তবে আমি খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নিব।’

দিনমজুর পিতা আবু বক্কর জানান, মেয়েটি ভয়ে স্কুলে যাচ্ছে না। থানায় অভিযোগ করলাম পুলিশও কিছু করে না। তিনি আরও বলেনÑ পুলিশে অভিযোগ করার কারণে শহীদুল ইসলামের বাবা গোলাম হোসেন, চাচা রফিকুল ইসলাম ও আবু শামা গ্রামে না থাকার হুমকি দিচ্ছে। দুইদিন থেকে গ্রামে কেউ কাজ দিচ্ছে না। বখাটে শহীদুল ইসলামের চাচা রফিকুল ইসলাম বলেন, সব মিথ্যা কথা। পুলিশ বিষয়টি মীমাংসা করতে বলেছে। রৌমারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শামীম হাসান সরদার অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করেন। ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান।

প্রকাশিত : ২৬ নভেম্বর ২০১৪

২৬/১১/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: