কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

নবম শ্রেণির পড়াশোনা

প্রকাশিত : ১৩ নভেম্বর ২০১৪
  • রসায়ন

(তৃতীয় অধ্যায়) সৃজনশীল অংশ

প্রিয় শিক্ষার্থীবৃন্দ,

শুভেচ্ছা রইল। আজ তোমাদের পাঠ্যপুস্তকের তৃতীয় অধ্যায় থেকে একটি গুরুত্বপূর্ণ সৃজনশীল প্রশ্ন ও তার উত্তর আলোচনা করা হল।

উদ্দীপক : অ ও ই মৌল দুইটির পারমাণবিক সংখ্যা যথাক্রমে ২৪ এবং ২৯.

প্রশ্ন:

ক) নিউক্লিয়ন সংখ্যা কাকে বলে?

খ) পারমাণবিক ভর ও পরমাণুর ভর এক নয়Ñ ব্যাখ্যা কর।

গ) ই মৌলের ইলেকট্রন বিন্যাসে স্বাভাবিক নিয়মের ভিন্নতা রয়েছেÑ ব্যাখ্যা কর।

ঘ) “অর্ধপূর্ণ অরবিটাল, আংশিক পূর্ণ অরবিটাল অপেক্ষা অধিক সুস্থিত” অ মৌলের ক্ষেত্রে উক্তিটির যথার্থতা বিশ্লেষণ কর।

উত্তর :

ক) উত্তর : পরমাণুর নিউক্লিয়াসে অবস্থিত ও প্রোটন ও নিউট্রনের মোট সংখ্যাকে নিউক্লিয়ন সংখ্যা বলে।

খ) উত্তর : পারমাণবিক ভর ও পরমাণুর ভর এক নয়। কেননা, পারমাণবিক ভর বলতে আমরা বুঝি কোনো মৌলের একটি পরমাণু। একটি কার্বন-১২ পরমাণুর ভরের অংশের তুলনায় কতগুণ ভারী। যেমন হাইড্রোজেনের পারমাণবিক ভর ১.০০৮ অর্থাৎ হাইড্রোজেনের একটি পরমাণুর ভর একটি কার্বন-১২ আইসোটোপের তুলনায় ১.০০৮ গুণ ভারি। অপরদিকে, পরমাণুর ভর বলতে একটি পরমাণুর প্রকৃত ভরকে বোঝায়। যেমন : একটি হাইড্রোজেনের পরমাণুর প্রকৃত ভর ১.৬৭ী১০-২৪ম.

অর্থাৎ বলা যায়, পারমাণবিক ভর ও পরমাণুর ভর এক নয়।

গ) উত্তর : উদ্দীপক হতে দেখা যায়, ই মৌলেল পারমাণবিক সংখ্যা ২৯. আমরা জানি, ২৯ পারমাণবিক সংখ্যাবিশিষ্ট মৌল হল ঈঁ, ঈঁ এর ইলেকট্রন বিন্যাস হল : ২,৮,১৮.১; যা অন্যান্য মৌলের ইলেকট্রন বিন্যাসের তুলনায় কিছুটা ভিন্নধর্মী। নিম্নে এই ভিন্নতার কারণ বিশ্লেষণ করা হল : পরমাণুর ইলেকট্রন বিন্যাসের সময় ইলেকট্রনসমূহ বিভিন্ন অরবিটালে তাদের শক্তির নিম্নক্রম থেকে উচ্চক্রম অনুসারে প্রবেশ করে। অরবিটালসমূহের শক্তিক্রম থেকে আমরা জানি ৩ফ অপেক্ষা ৪ং নিম্নশক্তি অরবিটাল। কাজেই উলেকট্রন প্রথমে ৪ং পূর্ণ করবে, তারপর ৩ফ অরবিটালে প্রবেশ করবে। কিন্তু ২৯ঈঁ এর ক্ষেত্রে এ নিয়মের ব্যতিক্রম পরিলক্ষিত হয় (২৯ঈঁ =১ং২ ২ং২ ২ঢ়৬ ৩ং২ ৩ঢ়৬ ৩ফ১০ ৪ং১)। এর কারণ হল, সমশক্তি সম্পন্ন অরবিটালসমূহ ঠিক অর্ধপূর্ণ হলে বা সম্পূর্ণরূপে ইলেকট্রন দ্বারা দখলীকৃত হলে সেই ইলেকট্রন বিন্যাস অধিকতর সুস্থিত হয় অর্থাৎ হঢ়৩, হঢ়৬, হঢ়৫, হফ১০, হভ৭ এবং হভ১৪ ইলেকট্রন বিন্যাস সবচেয়ে স্থিতিশীল হয়। যেহেতু ফ অরবিটালে সর্বোচ্চ ১০ টি ইলেকট্রন থাকতে পারে, কাজেই ফ৯ ং২ অপেক্ষা ফ১০ং১ অধিকতর স্থায়ী। এ কারণেই ২৯পঁ এর ইলেকট্রন বিন্যাস ১ং২ ২ং২ ২ঢ়২ ৩ং২ ৩ঢ়৬ ৩ফ১০ ৪ং১ হয়েছে। অর্থাৎ উপরিউক্ত আলোচনার ভিত্তিতে বলা যায়, ই মৌলের ইলেকট্রন বিন্যাসে স্বাভাবিক নিয়মের ভিন্নতা রয়েছে।

ঘ) উত্তর : উদ্দীপক হতে দেখা যায়, অ মৌলের পারমাণবিক সংখ্যা ২৪. অর্থাৎ অ মৌলটি হল ক্রোমিয়াম (ঈৎ)। আমরা জানি, অর্ধপূর্ণ অরবিটাল, আংশিক পূর্ণ অরবিটাল সুস্থিত। নিম্নে তা ঈৎ অর্থাৎ অ মৌলটির আলোকে বিশ্লেষণ করা হল : অরবিটালসমূহের শক্তিক্রম থেকে আমরা জানি ৩ফ অপেক্ষা ৪ং উপশক্তিস্তরের শক্তি কম। যেহেতু পরমাণুর ইলেকট্রন বিন্যাসের সময় ইলেকট্রনসমূহ শক্তির নিম্নক্রম থেকে উচ্চক্রম অনুসারে প্রবেশ করে, কাজেই স্থিতিশীলতা অর্জনের জন্য ৪ং উপশক্তিস্তরে আগে ইলেকট্রন প্রবেশ করবে। ৪ং উপশক্তিস্তর পূর্ণ হলে ইলেকট্রন পর্যায়ক্রমে ৩ফ উপশক্তিস্তরে প্রবেশ করবে। সেই অনুসারে পৎ এর ইলেকট্রন বিন্যাস ওং২ ২ং২ ২ঢ়৬ ৩ং২ ৩ঢ়৬ ৩ফ৪ ৪ং২ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ফ উপশক্তিস্তরে মোট ১০টি ইলেকট্রন থাকতে পারে। ফ উপশক্তি স্তরে ৫টি ইলেকট্রন থাকলে এটি অর্ধপূর্ণ হয়। ক্রোমিয়ামের ক্ষেতে ৩ফ৫৪৫ষ. এরূপ বিন্যাসে উপশক্তিস্তর অর্ধপূর্ণ হয়েছে যা ৩ফ৪৪ং২ অপেক্ষা অধিক স্থিতিশীল। তাই পৎ এর প্রকৃত ইলেকট্রন বিন্যাস : ষং২২ং২২ঢ়৬৩ং২৩ঢ়৬৩ফ৫৪ংষ. কাজেই বলা যায় যে. অর্ধপূর্ণ অরবিটাল আংশিক পূর্ণ অরবিটাল অপেক্ষা অধিকতর সুস্থিত।

প্রকাশিত : ১৩ নভেম্বর ২০১৪

১৩/১১/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: