রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

কিশোরগঞ্জের রাজাকার কমান্ডার হাসান আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

প্রকাশিত : ১২ নভেম্বর ২০১৪
  • যুদ্ধাপরাধী বিচার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে কিশোরগঞ্জের পলাতক আসামি রাজাকার কমান্ডার সৈয়দ মোঃ হাসান আলী ওরফে আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন ট্রাইব্যুনাল। হত্যা, গণহত্যা, নির্যাতন আটক অগ্নিসংযোগের মতো ছয়টি অভিযোগ আনা হয়েছে। অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে হাসান রাজাকারের বিচার আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে। ৭ ডিসেম্বর সূচনা বক্তব্যের জন্য দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। একই অভিযোগে পলাতক আব্দুল জব্বার ইঞ্জিনিয়ারের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের ২২তম সাক্ষী বিধান চন্দ্র কীর্ত্তনীয়া জবানবন্দীতে বলেছেন, জব্বারের নির্দেশে রাজাকাররা আমার ভগ্নিপতি সুরেন্দ্র নাথ বিশ্বাসসহ ১১ জনকে গুলি করে হত্যা করে। অন্যদিকে জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির আব্দুস সুবহানের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের যুক্তিতর্ক অব্যাহত রয়েছে। মঙ্গলবার প্রসিকিউশন পক্ষ ৫ম দিনের মতো যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন। আজ ষষ্ঠ দিনের মতো যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ ও ২ এ আদেশ প্রদান করেছেন।

মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে কিশোরগঞ্জের পলাতক আসামি সৈয়দ হাসান আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। অভিযোগ গঠনের সময় তথ্যগতি অসঙ্গতির জন্য ট্রাইব্যুনাল সংশ্লিষ্ট প্রসিকিউটরের উপর ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। অভিযোগ গঠনের পর ৭ ডিসেম্বর সূচনা বক্তব্যের জন্য দিন নির্ধারণ করেছেন। চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এ আদেশ প্রদান করেছেন। ট্রাইব্যুনালে অন্য দুই সদস্য ছিলেন বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি আনোয়ারুল হক।

ট্রাইব্যুনাল অভিযোগ গঠনের আগে তথ্যগত অসঙ্গতির জন্য প্রসিকিউটরের উপর ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, অভিযোগের এক জায়গায় আছে পালপাড়া, আবার অন্য জায়গায় আছে পূর্বপাড়া। আসলে ঘটনা কোন জায়গায় ঘটেছে তার উল্লেখ নেই। আবার এক জায়গায় বলা হয়েছে ২০ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও ২৫ হাজার টাকা লুট হয়েছে। আরেক প্যারায় আছে ২ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও ২৪ হাজার টাকা। আদালত এ সময় বলেন, অনেক কিছুই আছে যা প্রকাশ্যে বলতে চাই না।

২২ অক্টোবর অভিযোগ গঠন বিষয়ে শুনানি শেষে মঙ্গলবার আদেশ দেয়ার দিন ধার্য করে দিয়েছিলেন ট্রাইব্যুনাল। অভিযোগ গঠনের পক্ষে শুনানি করেন প্রসিকিউটর মোহাম্মদ আলী ও প্রসিকিউটর আবুল কালাম। অভিযোগ গঠনের বিপক্ষে শুনানি করেন হাসান আলীর পক্ষে রাষ্ট্র নিযুক্ত আইনজীবী আব্দুস শুকুর খান। ১৫ সেপ্টেম্বর হাসান আলীর অনুপস্থিতিতে মামলার বিচারিক কার্যক্রম শুরুর নির্দেশ দেন ট্রাইব্যুনাল। একই সঙ্গে তার পক্ষে কোন আইনজীবী না থাকায় আব্দুস শুকুর খানকে রাষ্ট্রীয় খরচে আসামিপক্ষের আইনজীবী নিয়োগ দেয়া হয়।

২৪ আগস্ট হাসান আলীর বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ (ফরমাল চার্জ) আমলে নিয়ে পলাতক এ রাজাকার কমান্ডারকে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়ে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেয়ার আদেশ দেয় ট্রাইব্যুনাল। পরে তাকে হাজির হতে পত্রিকায় বিজ্ঞাপনও দেয় প্রসিকিউশন। তার বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধের সময় হত্যা, গণহত্যা, অগ্নিসংযোগ, লুট, আটক ও নির্যাতনের ছয়টি অভিযোগ আনা হয়। অভিযোগের মধ্যে রয়েছে একাত্তরের ২৭ এপ্রিল তাড়াইল, পূর্বপাড়া সাচাইলে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ। ২৩ আগস্ট কোনা ভাওয়াল গ্রামের শহীদ তোফাজ্জল ভুইয়ার বসতবাড়িতে তিনজনকে আটক করে নির্যাতন করে পরে তাদের হত্যা করা হয়। ৯ সেপ্টেম্বর শিমুল হাটির পাল বাড়িতে ১২ জনকে হত্যা করা হয়। ২৭ সেপ্টেম্বর তাড়াইল থানাধীন বেলঙ্কা রোডে ৮ জনকে হত্যা করে হাসান আলী। ১১ ডিসেম্বর আড়াইউড়া গ্রামে ২ জনকে হত্যা করা হয়। একইদিন সাচাইল গ্রামের পশ্চিম পাড়ায় হত্যা ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। অর্থাৎ রাজাকার কমান্ডার হাসান আলীর নির্দেশে ২৪ জনকে হত্যা, ১২ জনকে অপহরণ ও আটক এবং ১২৫টি ঘরে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের অভিযোগ রয়েছে।

মুক্তিযুদ্ধের সময় কিশোরগঞ্জের তাড়াইল থানার রাজাকার কমান্ডার ছিলেন হাসান আলী। সে সময় তিনি তাড়াইল থানা এলাকায় ‘রাজাকারের দারোগা’ নামে পরিচিত ছিলেন। তবে তিনি বর্তমানে কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে না থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মাছিহাতা গ্রামে বসবাস করছেন। তদন্তের স্বার্থে আনা এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তার বিরুদ্ধে গত ৩ এপ্রিল গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। তবে এখনও পর্যন্ত তাকে গ্রেফতার করা যায়নি।

আব্দুল জব্বার ॥ একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে অভিযুক্ত পিরোজপুরের পলাতক আসামি ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল জব্বারের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের জবানবন্দী অব্যাহত রয়েছে। আজ আবার নতুন সাক্ষী (সিজার লিস্ট) জবানবন্দীর জন্য দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ মঙ্গলবার এ আদেশ প্রদান করেছেন।

প্রসিকিউশনের সাক্ষী তার জবানবন্দীতে বলেন, আমার নাম বিধান চন্দ্র কীর্ত্তনীয়া। আমার বর্তমান বয়স আনুমানিক ৬২ বছর। আমার ঠিকানা গ্রাম-নলী, থানা-মঠবাড়িয়া, জেলা-পিরোজপুর। ১৯৭১ সালে আমার বয়স ছিল ২০ বছর। সে সময় আমি গুলিশাখালী বেসরকারী হাসপাতালে কম্পাউন্ডার হিসেবে কর্মরত ছিলাম। বর্তমানে আমি বাড়ি-ঘর দেখাশোনা করি। আমি আসামি আব্দুল জব্বার ইঞ্জিনিয়ারকে চিনি। ১৯৭১ সালের পূর্বে আসামি আব্দুস জব্বার ইঞ্জিনিয়ার মুসলিম লীগের একজন নেতা ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে তিনি মঠবাড়িয়া শান্তি কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন এবং তিনি মঠবাড়িয়া এলাকায় রাজাকার বাহিনী গঠন করেন। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে আসামি আব্দুল জব্বার ইঞ্জিনিয়ার ও রাজাকার বাহিনীর লোকজন বিভিন্ন সময় আমাদের এলাকায় হামলা চালায়। একাত্তরের ২২ মে আসামি জব্বারের নেতৃত্বে রাজাকার বাহিনী আমাদের গ্রামে আক্রমণ করে।

আব্দুস সুবহান ॥ একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে অভিযুক্ত জামায়াতের নায়েবে আামির আব্দুস সুবহানের বিরুদ্ধে যুক্তিতর্ক অব্যাহত রয়েছে। মঙ্গলবার পঞ্চম দিনের মতো যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন প্রসিকিউটর সুলতান মাহমুদ সিমন। তিনি অভিযোগ ৭ ও ৮ পর্যন্ত যুক্তিতর্ক করেছেন। আজ আবারও যুক্তিতর্ক অনুষ্ঠিত হবে। চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান শাহীনের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ এ আদেশ প্রদান করেছেন। ট্রাইব্যুনালে অন্য দুই সদস্য ছিলেন বিচারপতি মোঃ মুজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মোঃ শাহিনুর ইসলাম।

প্রকাশিত : ১২ নভেম্বর ২০১৪

১২/১১/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: