কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সমাজতান্ত্রিক দেশ গড়াই ছিল মানবেন্দ্র লারমার মূল লক্ষ্য

প্রকাশিত : ১১ নভেম্বর ২০১৪
  • মৃত্যুবার্ষিকীতে আলোচনা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমা ছিলেন একজন প্রগতিশীল নেতা। তিনি আদিবাসী জনগোষ্ঠীর মধ্যে জাতীয়তাবাদী চেতনা জাগ্রত করতে পেরেছিলেন। তাঁর চেতনার পরিপ্রেক্ষিতেই পার্বত্য শান্তি চুক্তি করা হয়েছে। কিন্তু শাসকশ্রেণী সেই চুক্তি বাস্তবায়নে এগিয়ে আসতে চরম রাজনৈতিক ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছে। সোমবার মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার ৩১তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে ‘বিপ্লবী নেতা মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার জীবন ও সংগ্রাম’ শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে বক্তারা অবিলম্বে পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়নের দাবি জানান। মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার ৩১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন জাতীয় কমিটি এই আলোচনা সভার আয়োজন করে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক রাজীব মীরের সঞ্চালনায় সংগঠনের আহ্বায়ক পঙ্কজ ভট্টাচার্যের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন কলামিস্ট ও গবেষক সৈয়দ আবুল মকসুদ, অর্থনীতিবিদ ও গবেষক ড. আবুল বারাকাত, বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাখী দাস পুরকায়স্থ, বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং প্রমুখ।

এছাড়া আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন আইইডির নির্বাহী পরিচালক নুমান আহম্মদ খান এবং প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির তথ্য ও প্রচার সম্পাদক মঙ্গল কুমার চাকমা। সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমাই সর্বপ্রথম ব্যক্তি, যিনি জাতীয় পর্যায়ে পার্বত্য চট্টগ্রামের জন্য স্বায়ত্তশাসনের কথা তুলে ধরেছিলেন। এ বিষয়ে রাজনৈতিক দলগুলো থেকে আশ্বাস দিলেও বাস্তব ক্ষেত্রে সহযোগিতার জন্য তারা এগিয়ে আসেনি।

প্রকাশিত : ১১ নভেম্বর ২০১৪

১১/১১/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: