মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বেজিংয়ে লড়বেন জেসিকা

প্রকাশিত : ৯ নভেম্বর ২০১৪
  • লক্ষ্য ২১৬ অলিম্পিক

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আগামী বছর চীনের রাজধানী বেজিংয়ে অনুষ্ঠিত হবে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ। আর এই টুর্নামেন্টে লড়বেন ব্রিটিশ এ্যাথলেট জেসিকা এ্যান্নিস-হিল। মূলত অলিম্পিকের স্বর্ণপদক ধরে রাখার জন্যই বিশ্ব এ্যাথলেটিকস চ্যাম্পিয়নশিপে অংশগ্রহণ করবেন বলে জানিয়েছেন ২৮ বছর বয়সী এই বিউটি কুইন। ২০১২ সালে লন্ডন অলিম্পিকে তার স্বর্ণপদকটি নিয়েই সবচেয়ে বেশি বাজি ধরেছিল ব্রিটিশরা। আর তাতে জিতেছেন তারাই। কারণ যুক্তরাজ্যের ‘বিউটি কুইন’ জেসিকা এ্যান্নিসই প্রত্যাশিতভাবে স্বর্ণপদক জিতে নিয়েছিলেন এ্যাথলেটিক্সের কষ্টসাধ্য ইভেন্ট মহিলাদের হেপ্টাথলনে। নিজের ক্যারিয়ারসেরা পারফর্মেন্স করেই হেপ্টাথলনে স্বর্ণপদক জিতেছিলেন তিনি। সেই ইভেন্টে তার থেকে ৩০৬ পয়েন্ট পিছিয়ে থেকে রৌপ্যপদক জিতেছিলেন জার্মানির লিলি শোয়ার্জকফ। আর রাশিয়ার তাতিয়ানা চেরনোভাকে ৬৬২৮ পয়েন্ট নিয়ে ব্রোঞ্জপদকেই খুশি থাকতে হয়েছিল।

লন্ডন অলিম্পিকের আগে জার্মানির বার্লিনে অনুষ্ঠিত বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপেও স্বর্ণপদক জিতেন তিনি। কিন্তু চোটের কারণে গত বছর রাশিয়ার মস্কোতে অনুষ্ঠিত বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে অংশগ্রহণ করতে পারেননি তিনি। চোটের পর গত জুলাই মাসে পুত্র সন্তানের মা হন জেসিকা এ্যান্নিস। যে কারণে ২০১৪ সালের পুরোটা সময়ই ট্র্যাকের বাইরে ছিলেন এই এ্যাথলেট। তাই বেজিংয়ের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে খেলবেন কি না তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় ছিল অনেকের। অবশেষে শনিবার তা নিশ্চিত করলেন এ্যান্নিস হিল। গত বছরের মে মাসে এ্যান্ডি হিলের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন জেসিকা এ্যান্নিস। আর জুলাইয়ে মা হন তিনি। শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে মা হওয়ার দারুণ সেই অভিজ্ঞতার কথাও বললেন ২৮ বছর বয়সী এই ব্রিটিশ এ্যাটলেট। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘মা হওয়ার অভিজ্ঞতাটা সত্যিই বিস্ময়কর। এর প্রতিটি মুহূর্তই দারুণ উপভোগ করছি আমি। অসাধারণ এর অভিজ্ঞতা। এখন আবারও ট্র্যাকে ফিরতে চাই আমি। এটা নিশ্চিত করেই বলতে পারি যে সামনে আমার ব্যস্তসূচী অপেক্ষা করছে।’ এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘এই মুহূর্তে আমি ছোট্ট ছোট্ট পদক্ষেপ নিতে চাই। তবে এটাও জানাতে চাই যে আগামী গ্রীষ্মে আমি লড়াইয়ে নামতে চাই। চীনের বেজিংয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে খেলাটাই আমার মূল লক্ষ্য। আর এখানে পারফর্মেন্স করাটাও দারুণ।’ প্রায় দেড় দশক আগে সিডনি অলিম্পিকে মহিলাদের হেপ্টাথলনে শেষবারের মতো স্বর্ণপদক জিতেছিলেন যুক্তরাজ্যের কিংবদন্তি ডেনিস লুইস। এরপর ২০১২ অলিম্পিকে স্বর্ণ জিতে তার পাশেই বসে পড়ার রেকর্ড গড়েন হেপ্টাথলনের নতুন রানী এ্যান্নিস।

২০১৬ অলিম্পিকের স্বাগতিক ব্রাজিল। আর রিও ডি জেনিরিওতে অনুষ্ঠিতব্য সেই অলিম্পিকের হেপ্টাথলনেও স্বর্ণ পদক জিততে চান তিনি। এ বিষয়ে জেসিকা এ্যান্নিস বলেন, ‘বেজিংয়ে খেলার মূল উদ্দেশ্য হলো রিও অলিম্পিক। আর সেখানে অংশগ্রহণের আগেই বেজিংয়ে আমার সেরাটা দেখাতে চাই।’ বয়সে আটাশকে ছাড়িয়ে গেলেও এখনও আত্মবিশ্বাসে বলীয়ান এ্যান্নিস। চোট কাটিয়ে এবং সন্তানের মা হওয়ার পর আবারও ট্র্যাকে ফিরাটা বেশ কঠিন। সেটা বেশ ভালই জানা তার। তবে নিজের কাছ থেকে সেরা পারফর্মেন্সটা বের করে আনতে কঠোর অনুশীলণই করছেন এখন তিনি। আর আশ্চর্য হলেও সত্য যে নিজের পারফর্মেন্সের ধারাবাহিকতা ধরে রাখার জন্য এই অনুশীলণ গর্বকালীণ সময়েও করেছেন জেসিকা।

প্রকাশিত : ৯ নভেম্বর ২০১৪

০৯/১১/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: