মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

রাজধানীতে যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু ট্রেনে কাটায় হত ২

প্রকাশিত : ৭ নভেম্বর ২০১৪
  • অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে ৫ জন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর মগবাজারে এক যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। ট্রেনে কাটা পড়ে এক শিশুসহ দুইজন নিহত হয়েছে। পৃথক স্থানে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে ৫ জন সর্বস্ব খুইয়েছেন। চাকরি দেয়ার কথা বলে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে দুই নারীসহ তিন প্রতারককে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার পুলিশ ও মেডিক্যাল সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বুধবার গভীর রাতে রমনা থানাধীন মগবাজার আমবাগান এলাকার ৫২৭/২১/সি নম্বর তিনতলা ভবনের নিচতলা মেসে আজহার মাসুম (২৬) নামে এক যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। ওই বাড়ি থেকে তাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে জরুরী বিভাগে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। মৃত আজহারের বাবার নাম ইমাম আলী। গ্রামের বাড়ি সিলেট জেলার গোলাপগঞ্জ গ্রামে। তিনি নবেম্বর মাসে মগবাজারের আমবাগানের ওই বাড়ির নিচতলায় মেস ভাড়া নেন। ওই বাড়ির ভাড়াটিয়া তোতা মিয়া জানান, বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে আজহার অসুস্থ অবস্থায় বাসার সামনে পড়ে যায়। এ সময় বুক জ্বলে যাচ্ছে বলে আজহার চিৎকার করতে থাকে। একপর্যায়ে গোঙ্গানির শব্দ করে মুখ দিয়ে ফেনা বের হতে থাকে। পরে আজহারকে দ্রুত উদ্ধার করে রমনার একটি কমিউনিটি ক্লিনিকে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে গভীর রাতে আজহারকে ঢামেক হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঢামেক হাসপাতালের জরুরী বিভাগের মেডিক্যাল অফিসার আবদুস সালাম জানান, বিষাক্ত কোনকিছু খেয়ে তার মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তার লাশের ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে পুলিশ জানায়, আজহারের মৃত্যু যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। তদন্ত চলছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে আসল ঘটনা জানা যাবে।

ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত ২ ॥ বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর গোপীবাগ রেলক্রসিংয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত (৬০) এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। ঢাকা রেলওয়ে থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আবদুল কুদ্দুস ফকির জানান, রেললাইনের উপর দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় ট্রেনে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই ওই বৃদ্ধের মৃত্যু হয়। পরে খবর পেয়ে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের পরনে সাদা গেঞ্জি ও লুঙ্গি ছিল। একই দিন ভোর সাড়ে ৫টার দিকে খিলক্ষেত রেলক্রসিংয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে আহত তাসলিমা আক্তার (৪) নামে এক শিশুর ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়েছে। একই দুর্ঘটনায় বুধবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে তার মা রিমা আক্তার (২৫) নিহত হন। ঢাকা রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল মজিদ জানান, বুধবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে খিলক্ষেত রেলক্রসিংয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে রিমা আক্তার নামে এক গৃহবধূর ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়। এ সময় তার সঙ্গে থাকা মেয়ে শিশু তাসলিমা, নিহত রিমার মা ফাতেমা আক্তার (৪০) ও নানি মাহমুদা বেগম (৬০) আহত হন। আহত তিনজনকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নিহত রিমার মেয়ে শিশু তাসলিমার মৃত্যু হয়।

অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে ৫ জন ॥ পৃথক স্থানে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে ৫ জন সর্বস্ব খুইয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত তারা অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে। তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ দিন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে যাত্রাবাড়ী পুলিশ বক্স থেকে ইলেক্ট্রিশিয়ান মোঃ আজাদ হোসেন (৬০) ও কাঠমিস্ত্রি মাধব কুমারকে (৪৫) অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আজাদের মেয়ে মাকসুদা জানান, সকালে তার বাবা আজাদ মাধব দাকে নিয়ে ১০৫/১/বি নম্বর বাড়ি থেকে বের হন। তাঁরা নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপসীতে যাওয়ার জন্য রামপুরা থেকে বাসে উঠেন। বাসেই তাঁরা অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েন। তাঁদের কাছে থাকা নগদ টাকা ও ২টি মোবাইল সেট হাতিয়ে নিয়ে গেছে অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা। পরে বাসের হেলপাররা তাঁদের অচেতন অবস্থায় যাত্রাবাড়ী পুলিশ বক্সে নামিয়ে দেয়। খবর পেয়ে তাঁদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

দুই নারীসহ তিন প্রতারক আটক ॥ বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ চাকরি দেয়ার কথা বলে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে দুই নারীসহ তিন প্রতারককে পল্টন এলাকার ৭০/জি ভবনের ৫ম তলা থেকে আটক করেছে। আটকরা হচ্ছেন- সুমাইয়া শরীফ, সালমা ও রুদ্র। পল্টন থানার এএসআই খালিদ জানান, প্রতারণার অভিযোগে তিন প্রতারককে আটক করে পল্টন থানায় আনা হয়েছে।

প্রকাশিত : ৭ নভেম্বর ২০১৪

০৭/১১/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: