মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সুনামগঞ্জে সংঘর্ষে নিহত এক ॥ আহত অর্ধশত

প্রকাশিত : ২৬ অক্টোবর ২০১৪

নিজস্ব সংবাদদাতা, সুনামগঞ্জ, ২৫ অক্টোবর ॥ সুনামগঞ্জের ঝরঝরিয়া ও জগজবীনপুর গ্রামে দুইপক্ষের সংঘর্ষে ১ জন নিহত এবং আহত হয়েছে কমপক্ষে ৫০ জন। সদর উপজেলার জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নের ঝরঝরিয়া গ্রামে জমিসংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে দুইপক্ষের সংঘর্ষে ১ জন নিহত হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছে কমপক্ষে ২০ জন। আহতদের সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। শুক্রবার রাতে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। জানা যায়, সদর উপজেলার জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নের ঝরঝরিয়া গ্রামের নুরুল ইসলাম ও জয়নাল মিয়ার মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ বিরোধের জের ধরে শুক্রবার দুইপক্ষ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে আহতদের সুনামগঞ্জ সদর হাসাপতালে আনা হলে গুরুতর আহত নুরুল ইসলামকে কর্তব্যরত ডাক্তার সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য রেফার করেন। সিলেট নেয়ার পথেই নুরুল ইসলামের মৃত্যু হয়।

এদিকে অপর আরেক ঘটনায় মসজিদের ইমাম নিয়ে ও মসজিদের তহবিলের হিসাবসংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সদর উপজেলার জগজবীনপুর গ্রামে দুইপক্ষের সংঘর্ষে আহত হয়েছে কমপক্ষে ৩০ জন। শুক্রবার জুমার নামাজের পর থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত দফায় দফায় এমরান হেসেন ও আজিম আলীর লোকজনের এ সংঘর্ষ চলে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পশ্চিমাঞ্চলে রেলওয়ের হিসাবরক্ষণ অফিসে অনিয়ম

স্টাফ রিপোর্টার, ঈশ্বরদী ॥ পশ্চিমাঞ্চল রেলের পাকশী ও লালমনিরহাট বিভাগীয় হিসাবরক্ষণ অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ- ঠিকাদারি ও টিএডিএ বিলসহ বিভিন্ন প্রকার বিল ঘুষ ছাড়া পাস করা হয় না। এ কারণে দীর্ঘদিন থেকে ভুক্তভোগীদের নানা প্রকার ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। পাকশী ও লালমনিরহাট বিভাগীয় অফিসের পৃথক দায়িত্বশীল ও ভুক্তভোগীদের দেয়া অভিযোগ সূত্রে এ সব তথ্য জানা গেছে।

সূত্রমতে, বাংলাদেশ রেলওয়ের পাকশী ও লালমনিরহাট বিভাগীয় হিসাবরক্ষণ অফিসে দীর্ঘদিন থেকে বিল পাসের ক্ষেত্রে নানা অনিয়ম চলছে। অফিস দুটিতে রেলওয়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিল, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের টিএডিএ, অফিস খরচের ইমপ্রেস বিল ও অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কর্মচারীদের পেনশন বিলসহ নানা প্রকার বিল পাসে বিভিন্ন অজুহাতে গড়িমসি করা হয়। সংশ্লিষ্ট অফিসের দায়িত্বশীল কর্মকর্তা কর্মচারীদের নির্দিষ্ট হারে টাকা না দিলে বিল পাস করা হয় না। টাকা না পেলে সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীল ব্যক্তিরা নানা টালবাহানা করে অবসরপ্রাপ্ত বৃদ্ধ কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ ভুক্তভোগীদের ঘোরাতে থাকেন। ওই অফিস দুটিতে দীর্ঘদিন থেকে এ অবস্থা চলতে থাকলেও দেখার কেউ নেই।

এ সব অভিযোগের বিষয়ে পাকশী বিভাগীয় হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা রহমত উল্লাহ্ জানান, অভিযোগ অনেক আসে। সব অভিযোগের বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়া যায় না। তবে সুনির্দিষ্ট লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা সম্ভব হবে। একই বিষয়ে লালমনিরহাট বিভাগীয় হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা তানভির ইকবাল জানান, অভিযোগ সঠিক না। আমার অফিসে এ ধরনের ঘটনার কোন লিখিত অভিযোগ পেলে তাৎক্ষণিকভাবে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

প্রকাশিত : ২৬ অক্টোবর ২০১৪

২৬/১০/২০১৪ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: