ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ২০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

এক দশকে বদলে গেছে যশোরের গ্রামীণ অবকাঠামো

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস

প্রকাশিত: ০১:০২, ২৪ নভেম্বর ২০২২

এক দশকে বদলে গেছে যশোরের গ্রামীণ অবকাঠামো

গ্রামীণ রাস্তাঘাট পাকা হওয়ায় প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষ খুব সহজেই শহরে যাতায়াত করতে পারছে

গত এক দশকে কৃষি, শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের অগ্রগতি, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, জীবিকা ও উন্নত জীবন ব্যবস্থা, তথা মানবসম্পদ উন্নয়নসহ যশোরের গ্রামীণ অবকাঠামোর আমূল পরিবর্তন হয়েছে। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) টেকসই অবকাঠামো উন্নয়ন জেলার সব মহলেই এখন প্রশংসিত। আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, নেত্রীর কাছে আমাদের চাওয়া-পাওয়ার আর কিছু নেই। যেটা মনে করবেন, নেত্রী সেটা দেবেন।
এলজিইডি সূত্রে জানা গেছে, পল্লী সড়কসহ অন্যান্য উন্নয়ন বর্তমান সরকারের একটি অগ্রাধিকারপ্রাপ্ত প্রকল্প। এ লক্ষ্য বাস্তবায়নে এলজিইডি নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এরই মধ্যে গত ১০ বছরে জেলার প্রায় ৪ হাজার ২০ কিলোমিটার বিভিন্ন সড়ক নির্মাণ ও রক্ষণাবেক্ষণ করা হয়েছে। ২ হাজার ২৫০ মিটার ব্রিজ নির্মাণসহ রক্ষণাবেক্ষণ করা হয়েছে।

সামাজিক বনায়ন করা হয়েছে প্রায় ২৭ কিলোমিটার। এ ছাড়া ২০টি গ্রামীণ বাজারের অবকাঠামো উন্নয়নসহ নির্মাণ করা হয়েছে। অন্যদিকে প্রায় ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ৪৬টি অসচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধার বাড়ি নির্মাণ করেছে এলজিইডি। একই সঙ্গে প্রায় ১৬ কোটি টাকা ব্যয়ে ৮টি মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। জেলার কেশবপুর উপজেলায় ১.২০ কোটি টাকা ব্যয়ে কৃষক সার্ভিস সেন্টার নির্মাণ করেছে যশোর এলজিইডি। এ ছাড়া ১১.১১ কোটি টাকা ব্যয়ে ২১০টি মসজিদ, মন্দির, ঈদগাহ ও শ্মশান নির্মাণ করেছে তারা।

যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনের এমপি শাহীন চাকলাদার বলেন, এক যুগে যশোরে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। শেখ হাসিনা সফটওয়্যার পার্ক, মেডিক্যাল কলেজসহ এলাকার রাস্তাঘাটের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। আমাদের নেত্রী যা ভালো বোঝেন, যশোরবাসীর জন্য তা-ই দেবেন। আমাদের চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই। যশোর এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী এ কে এম আনিছুজ্জামান জানান, গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে বৃহৎ প্রকল্প বাস্তবায়নে এরই মধ্যে গ্রামের চেহারা পাল্টে গেছে। আরও অনেক প্রকল্প চলমান রয়েছে। গত ১০ বছরে যশোর এলজিইডি গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে প্রায় ২ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে।

monarchmart
monarchmart